ভিডিওঃ এবাদতের দুর্দান্ত ইয়র্কারে বোল্ড ওয়াটসন

৬ ম্যাচে ১ জয়ে দুই পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের তলানিতে অবস্থান করছিল রংপুর রেঞ্জার্স। আজ সিলেট থান্ডারের বিপক্ষে হারলে অনেকটা ফিকে হয়ে যেত প্লে-অফের আশা। তবে ৭ উইকেটে জয় তুলে নিয়ে নিভতে বসা সলতেটা জ্বালিয়ে রাখল রংপুর। তবে রংপুর অধিনায়ক ওয়াটসনকে দুর্দান্ত এক ইয়র্কারে বোল্ড করে নজর কেড়েছেন সিলেটের পেসার এবাদত হোসেন। 

Advertisment

এদিন আগে ব্যাট করে রংপুরের সামনে ১৩৪ রানের লক্ষ্য দাঁড় করে সিলেট। মামুলি এই টার্গেট টপকাতে নেমে আজও সমর্থকদের হতাশ করেন অধিনায়ক শেন ওয়াটসন। এবাদত হোসেনের দুর্দান্ত এক ডেলিভারিতে বোল্ড হয়েছেন ১ রান করে।

ওয়াটসনের আউটের পর নতুন ব্যাটসম্যান ক্যামেরুন ডেলপোর্টকে নিয়ে ইনিংস মেরারমতের কাজ করেন আরেক ওপেনার নাইম শেখ। তবে তিনি একপ্রান্ত ধরে খেললেও আরেক প্রান্তে নিজ ব্যাটে ঝড় তোলেন ডেলপোর্ট। মাত্র ২৪ বলে তুলে নেন চলতি বিপিএলে নিজের প্রথম ফিফটি।

পরে ডেলপোর্ট ২৮ বলে ৬৩ ও গ্রেগরি ৪ রান করে বিদায় নিলে মোহাম্মদ নবীকে নিয়ে জয়ের বাকি আনুষ্ঠানিকতা সারেন নাইম। দলের ৭ উইকেটের জয়ে নিজে অপরাজিত থাকেন ৩৮ রানে। নবীর ব্যাট থেকে আসে ১৮ রান।

এর আগে টসে হেরে ব্যাট করতে নামে সিলেট থান্ডার। দলের হয়ে ইনিংস শুরু করতে এসে দ্বিতীয় বলেই আরাফাত সানির শিকারে পরিণত হন আন্দ্রে ফ্লেচার। দলীয় ১৬ রানের সময় আরেক ওপেনার জনসন চার্লসও ৯ রান করে আউট হলে খানিক বিপদে পড়ে সিলেট।

সেখান থেকে দলের হাল ধরেন অধিনায়ক মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত ও মোহাম্মদ মিঠুন। তৃতীয় উইকেটে দুজন যোগ করেন ৬০ রান। যেখানে মোসাদ্দেকের ব্যাট থেকে আসে ১৫ রান। এরপর রাদারফোর্ড ৯ বলে ১৬ রান আউট হলে বড় রানের স্বপ্নে ভাটা পড়ে রংপুরের। সতীর্থদের আসাযাওয়ার ফাঁকে নিজের অর্ধশতক তুলে নেন মিঠুন। পরে মুস্তাফিজের বলে আউট হয়েছেন ৪৭ বলে ৬২ রান করে।

শেষদিকে সোহাগ গাজির ১২ ও নাঈম হাসানের ৮ রানের কল্যাণে নির্ধারিত ওভার শেষে ১৩৩ রানের সংগ্রহ দাঁড় করে সিলেট থান্ডার। রংপুর রেঞ্জার্সের হয়ে মাত্র ১০ রান খরচায় ৩ উইকেট তুলে নেন পেসার মুস্তাফিজুর রহমান।

আজকের এই ম্যাচ হারের ফলে প্লে-অফের আশা অনেকটাই শেষ হয়ে গেল সিলেট থান্ডারের। এখন পর্যন্ত ৮ ম্যাচে মাত্র ১ জয়ে পয়েন্ট টেবিলের তলানিতে অবস্থান করছে দলটি।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

সিলেট থান্ডার: ১৩৩/৯ (২০ ওভার)
মিঠুন ৬২, গাজি ১২, রাদারফোর্ড ১৬; মুস্তাফিজ ৩/১০, গ্রগরি ১/২১।

রংপুর রেঞ্জার্স: ১৩৪/৩ (১৭.২ ওভার)
ডেলপোর্ট ৬৩, নাইম ৩৮*, নবী ১৮*; নাভিন ২/১৩, এবাদত ১/১২।

ভিডিওতে দেখুন এবাদতের দুর্দান্ত ইয়র্কারটি-

ফল: রংপুর ৭ উইকেটে জয়ী।