Scores

‘এভাবে ক্রিকেট খেলা সম্ভব নয়’

ক’রোনাভাইরাসের কারণে জৈব সুরক্ষার বলয়ের মধ্যে থেকে ক্রিকেট খেলতে হচ্ছে ক্রিকেটারদের। ইংল্যান্ডের অধিনায়ক এউইন মরগ্যান এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের অধিনায়ক জেসন হোল্ডারের মতে এভাবে ক্রিকেট খেলা সম্ভব নয়।

পুরো বিশ্বে ক’রোনাভাইরাসের কারণে বন্ধ ছিল সব ধরণের খেলা। গত জুলাইয়ে ক’রোনাকে উপেক্ষা করে প্রথম দুই দল হিসেবে মাঠে নামে ইংল্যান্ড ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ। দুই দেশের মধ্যকার সিরিজ দিয়েই শুরু হয় ক’রোনাকালীন ক্রিকেট। তবে এই সিরিজের জন্য বেশ বেগ পোহাতে হয়েছিল ইসিবিকে। কম বেগ পোহাতে হয়নি ক্রিকেটারদেরও।

Also Read - ‘সাকিবকে বাদ দিয়ে দল করার প্রশ্নই আসে না’


ক্রিকেটার হতে সংশ্লিষ্ট সকল স্টাফদের থাকতে হয়েছে কোয়ারেন্টিনে। ইসিবির দেখানো পথে হেটেছে বাকিরাও। ধীরে ধীরে মাঠে ক্রিকেট ফিরিয়েছে বিসিবি, বিসিসিআই। তবে এর জন্য ক্রিকেটারদের থাকতে হচ্ছে জৈব সুরক্ষার বলয়ের মধ্যে। যা কি না ক্রিকেটারদের জন্য ক্ষতিই হচ্ছে বলেন ইংল্যান্ড অধিনায়ক মরগ্যান।

“আমরা আমাদের ঘরের মাঠে ক্রিকেট ফিরিয়ে এনেছি এবং শেষ করতে পেরেছি। এটা আমাদের জন্য অবিশ্বাস্য এক অর্জন। তাছাড়া ইসিবিও তাদের চেষ্টার কমতি রাখেনি। তবে ১২ মাস ধরে এই বাবল ধরে রাখা কিংবা টানা বাবলের মধ্যে থেকে খেলা অসমর্থনযোগ্য। আমি মনে করি, ক্রিকেট সংশ্লিষ্ট যে কারও জন্য যে কঠিন চ্যালেঞ্জের পরিস্থিতি।”

তিনি আরও যোগ করেন, “দল হিসেবে আমরা মেনে নিয়েছি যে, খেলোয়াড়রা জৈব সুরক্ষার বাইরে আসবে-যাবে, কেননা এর সঙ্গে মানসিক স্বাস্থ্যও জড়িত। আমার মনে হয়, অনেক খেলোয়াড় এখন সফর থেকে নাম সরিয়ে নেবে। এটাই বাস্তবতা। এমনটা ভাবা উচিত হবে না যে, তারা দেশের প্রতি দায়িত্ববোধ দেখাচ্ছে না।”

মরগ্যানের সঙ্গেই একমত পোষণ করেছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের অধিনায়ক হোল্ডারও। তবে নিজেকে ভাগ্যবানও বলছেন তিনি। কেননা ক’রোনাভাইরাসের থাবার পর অনেকেই চাকরি হারিয়েছেন। তবে মাঠের মানুষ মাঠে ফিরতে পেরে নিজেকে সৌভাগ্যবান মনে করছেন তিনি। সেই সাথে ক্রিকেটারদের মানসিক স্বাস্থ্যের দিকেও নজর দিতে বলেছেন তিনি।

“মাঠে ফেরাটা তখন বড় প্রয়োজন হয়ে দাঁড়িয়েছিল আমাদের জন্য, চ্যালেঞ্জিংও ছিল। আমি ভাগ্যবান যে এখনও কাজ করে যাচ্ছি। বিশ্বে অনেক মানুষ আছে যারা করোনাভাইরাসের কারণে কাজ হারিয়ে বসে আছে। কিন্তু এটিও মাথায় রাখতে হবে যে, সেরাটা পেতে হলে খেলোয়াড়দের মানসিক স্বাস্থ্যের দিকটিও চিন্তা করতে হবে। ইংল্যান্ডে আমাকে দুই মাস জৈব সুরক্ষার বলয়ের মধ্যে থাকতে হয়েছে। এরপর মাত্র দুইদিন বাড়িতে আবার দেড় মাসের জন্য সিপিএল খেলতে ত্রিনিদাদ চলে যাই। এটি শেষ করে ৪-৫ দিন বার্বাডোজে নিজ বাড়িতে থাকতে পেরেছি, পরে আইপিএল থেকে ডাক পেলাম। এখানেও রীতিমতো আইসোলেশনেই থাকতে হচ্ছে।”

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

Related Articles

বিশ্বকাপে পাকিস্তানের মিডল অর্ডারে মালিককে চান আফ্রিদি

জিম্বাবুয়ের টি-টোয়েন্টি দলে ‘৩’ নতুন মুখ

ওয়াহর তোলা ছবি জিতল উইজডেনের বর্ষসেরার খেতাব

ভারত সফর নিয়ে দুশ্চিন্তা কাটল পাকিস্তানি ক্রিকেটারদের

৯টি ভেন্যুতে হবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ