Scores

এশিয়া কাপ বাতিলে এই ৪টি প্রশ্নের কি উত্তর দিবেন সৌরভ?

আগামী সেপ্টেম্বরে এশিয়া কাপ মাঠে গড়ানোর কথা ছিল। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট মাঠে ফিরেছে গতকাল (৮ জুলাই)। সেই হিসেবে সেপ্টেম্বরে ক্রিকেট মাঠে না থাকার কোনো কারণ নেই। তবে এশিয়া কাপ আয়োজনের সিদ্ধান্ত থেকে বোর্ডগুলো সরে এসেছে বলে দাবি সৌরভের। গতকাল এক ইন্সটাগ্রাম লাইভে ভারতীয় সাংবাদিককে এই তথ্য জানান বিসিসিআই প্রধান সৌরভ গাঙ্গুলী।

তবে সৌরভের এইরকম কথায় হচ্ছে নানান আলোচনা-সমালোচনা। অনেক আলোচনা-সমালোচনা হলেও চারটি প্রশ্নই উঠে এসেছে এখানে বড় করে।

Also Read - ঢাকার বাইরের দুই ভেন্যুতে ডিপিএল শুরুর পরিকল্পনা বিসিবির


প্রথম প্রশ্ন এসিসির প্রধান নাজমুল হাসান পাপন। এসিসির এশিয়া কাপ নিয়ে সভা হওয়ার আগেই কীভাবে সৌরভ গাঙ্গুলী নিজে মিডিয়ায় বলে দিলেন এশিয়া কাপ বাতিল? এমন কিছু বলার এখতিয়ার কি তার আসলেই আছে? তিনি এসিসির সিদ্ধান্ত একা নেওয়ার কেউ নন। তাই তার এসিসির সভার আগেই এই ধরনের বক্তব্য জন্ম দিয়েছে সমালোচনার।

দ্বিতীয় প্রশ্ন হচ্ছে এসিসির এই এশিয়া কাপ থেকে হওয়া অর্জিত আয় তাদের বাজেটের বড় অংশ। এই এশিয়া কাপ যদি বাতিল হয় ২ বছরের জন্য তাহলে এর বাজেটের কি হবে? এসিসি এই বাজেটের উপর নির্ভর করেই বয়সভিত্তিক, নারী ও বিভিন্ন আঞ্চলিক প্রতিযোগিতার আয়োজন করে থাকে। বাতিল করলে বিসিসিআই কি এসিসিকে এর কোন ক্ষতিপূরণ দিবে? কারন আপাতদৃষ্টিতে মনে হচ্ছে বিসিসিআইয়ের ইচ্ছাতেই হচ্ছেনা এশিয়া কাপ। এশিয়া কাপ না হওয়া এশিয়ান অঞ্চলের উঠতি দেশের ক্রিকেট অগ্রগতিকে হুমকির মুখে ফেলে দিতে পারে।

তৃতীয় প্রশ্ন আসে এফটিপি নিয়ে। সৌরভ গতকাল জানান যে আইপিএলের পর ভারতের অস্ট্রেলিয়া সিরিজ আছে। অস্ট্রেলিয়া সিরিজ দ্বিপাক্ষিক সিরিজ ও এফটিপির অংশ তাই তাদের না করার কোন কারণ নেই তাই খেলতে হবে এই যুক্তি দেন সৌরভ। প্রশ্ন উঠে তাহলে এশিয়া কাপ বাতিলের কি কারণ বা এশিয়া কাপ খেলতে অনীহা কোথায়? এশিয়া কাপ আইসিসির এফটিপির অংশ না হলেও এশিয়ান দেশগুলোর মাঝে আলোচনা করেই তৈরি করা। এখানে সমস্যাটা কোথায় যেখানে অন্য বোর্ডগুলো রাজি?

এই বিষয়ে চতুর্থ ও শেষ প্রশ্ন আসে এশিয়া কাপ বর্তমান করোনা মহামারির জন্য বাতিলের কথা বলছেন সৌরভ। এখানে প্রশ্ন এশিয়া কাপ হলে সেপ্টেম্বরের মাঝামাঝি সময় সংযুক্ত আরব আমিরাতে হওয়ার কথা ছিল। শোনা যাচ্ছে আইপিএলও সেপ্টেম্বরের শেষ সপ্তাহে সংযুক্ত আরব আমিরাতেই হবে ভারতে আয়োজন না করতে পারলে। প্রশ্ন উঠে এটাই সেপ্টেম্বরের শেষ সপ্তাহে ভারত আইপিএল খেলতে পারলে ২ সপ্তাহ আগের এশিয়া কাপ খেলতে কি বাধা? ২ সপ্তাহে কি করোনা মহামারি চলে যাবে? অন্য কোন বোর্ডের সমস্যা নেই। বিসিবি এশিয়া কাপ নিয়ে নেগেটিভ কিছু বলেনি, পিসিবি রাজি, শ্রীলঙ্কাও রাজি এবং আফগানিস্তানেরও সমস্যা নেই। তো সেপ্টেম্বরে খুব সম্ভাব্য আইপিএল খেলতে পারলে এশিয়া কাপেই কেন সমস্যা? মহামারীর কারনে এশিয়া কাপ বন্ধের যুক্তি তখনই গ্রহনযোগ্যতা পাবে যদি আইপিএলও বন্ধ হয়।

সৌরভ গাঙ্গুলী যখন বিসিসিআইয়ের প্রধান হিসেবে কাজ শুরু করেন তখন বাঙালী হিসেবে বাংলাদেশের ক্রিকেট ভক্তরা তাকে সাধুবাদই জানায়। তবে আইপিএলের জন্য যদি এশিয়ার অন্যতম জনপ্রিয় আসর এশিয়া কাপকে দূরে ঠেলে দেন তাহলে বাংলাদেশের ক্রিকেট ভক্তদের কাছে প্রিয় সৌরভ দাদার গ্রহণযোগ্যতা প্রশ্নের মুখেই পরবে।এমনটা হলে বলতে হবে এক বোর্ডের স্বার্থের কাছে জিম্মি হবে বাকি এশিয়ান বোর্ডগুলোর স্বার্থ।

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

২০২১ টি-২০ বিশ্বকাপ ভারতে, বাড়ল অস্ট্রেলিয়ার অপেক্ষা

আইপিএলের জন্য সিরিজ পেছাল ইংল্যান্ডও

আবারো সন্ত্রাসী হামলার শিকার পাকিস্তানের ক্রিকেট

শীঘ্রই দেশে ফিরছেন সাকিব

১১ নং ব্যাটসম্যানের নির্ভয় ব্যাটিংয়ে প্রতিপক্ষেরও করতালি