এশিয়া কাপে থাকছেন সাকিব!

ঘনিয়ে আসছে এশিয়া কাপ। ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হবে এবারের আসর। যত দিন যাচ্ছে, ততই যেন জোরালো হচ্ছে এশিয়া কাপে বাংলাদেশ দলে অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানের থাকা না থাকা নিয়ে।

সাকিবের বিকল্প নিয়ে এখনই ভাবছেন না নান্নু

Advertisment

এখন পর্যন্ত এশিয়া কাপে সাকিবের খেলা নিয়ে রয়েছে প্রবল অনিশ্চয়তা। আঙুলের চোট নিয়েই খেলেছেন উইন্ডিজের বিপক্ষে। এবার করাতে হবে অস্ত্রোপচার। ধারণা করা হচ্ছে জিম্বাবুয়ে সিরিজের সময়ে অস্ত্রোপচার করাবেন তিনি। সেক্ষেত্রে এশিয়া কাপে হয়তো দলের সঙ্গেই থাকছেন তিনি। নিদাহাস ট্রফির মতো শেষদিকে দুই গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে মাঠে দেখা গিয়েছিল সাকিববে। এশিয়া কাপেও সুপার ফোরে উঠলে মাঠে নামতে পারেন সাকিব।

হজ্ব পালনে সৌদি আরব গিয়েছেন সাকিব। দেশে ফিরবেন বুধবার। আগামী দু-এক দিনের মধ্যেই আসবে সাকিব আল হাসানের থাকা না থাকার ব্যাপারে চুড়ান্ত ঘোষণা। বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন সিদ্ধান্ত ছেড়ে দিয়েছেন সাকিবের উপরে। তবে তিনি ব্যক্তিগতভাবে চান সাকিবের অস্ত্রোপচার হোক অক্টোবর-নভেম্বরের জিম্বাবুয়ে সিরিজের সময়।

অস্ট্রেলিয়ান শল্যবিদ গ্রেগ হয় চূরান্ত সিদ্ধান্ত নিতে চান সাকিবের আঙুল দেখে। জানা গিয়েছে, এশিয়া কাপের পরেই অস্ট্রেলিয়ায় গিয়ে গ্রেগ হয়ের শরণাপন্ন হবেন সাকিব।

জিম্বাবুয়ে সিরিজের সময় সাকিবের অস্ত্রোপচার করানোর সম্ভাবনাই বেশি। সেক্ষেত্রে এশিয়া কাপে সাকিবকে পাবে বাংলাদেশ। তবে তা শুরু থেকে না সুপার ফোর থেকে তা এখনো নিশ্চিত নয়।

জানুয়ারিতে ঘরের মাঠে ত্রিদেশীয় সিরিজের শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ফাইনালে ফিল্ডিং করতে গিয়ে চোট পেয়েছিলেন সাকিব। সাথে সাথেই মাঠ ছাড়তে হয় তাকে। এরপর ঐ ম্যাচে আর মাঠে নামেননি তিনি। দেওয়া হয়েছিল সেলাই। মার্চে নিদাহাস ট্রফি দিয়ে আবারো ক্রিকেটে ফিরেন সাকিব। তবে এখনো চোট থেকে শতভাগ সেরে উঠতে পারেননি এ অলরাউন্ডার। উইন্ডিজ সফরে ব্যথানাশক ইঞ্জেকশন দিয়ে মাঠে নেমেছিলেন তিনি।

১৫ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হব এবারের এশিয়া কাপ। সংযুক্ত আরব আমিরাতে বাংলাদেশ বনাম শ্রীলঙ্কা ম্যাচ দিয়ে পর্দা উঠবে এশিয়া কাপের।


আরো পড়ুনঃব্যক্তিগত লক্ষ্য নেই, খেলবেন দলের জন্য