SCORE

সর্বশেষ

এশিয়া জয় করল ক্ষুদে আফগানরা

কুয়ালালামপুরে অনূর্ধ্ব ১৯ এশিয়া কাপের ফাইনালে পাকিস্তান  দলকে একরকম উড়িয়ে দিয়ে আফগানিস্তান জিতে নিল এবারের শিরোপা।

afgan fans

কিনরারা একাডেমি ওভালে টস জিতে আফগানদের ব্যাটিং এ পাঠান পাকিস্তানি কাপ্তান হাসান খান। ধীরে শুরু করে দুই ওপেনার রহমান গুল ও ইব্রাহিম জাদরান। তাদের ৬১ রানের ওপেনিং জুটি ভাঙ্গেন মোহাম্মদ মুসা। ৫ চার আর এক ছয়ে ৫৫ বলে ৪০ করেন গুল। দলীয় ৯১ রানে ব্যাক্তিগত ৩৬ করে ফিরে যান আরেক ওপেনার ইব্রাহিম।

Also Read - জন্মদিনে বিশ্বরেকর্ড গড়লেন ড্যাডসওয়েল

এরপর উইকেট রক্ষক ইব্রাহিম ফাইজি এর সাথে জুটি গড়েন দারুইশ রাসুলি। ১৮ রান করে দেড়শ এর কোটা পার করেই ফিরে যান রাসুলি। একপাশ আগলে রেখে খেলতে থাকেন ফাইজি। অন্যপাশে শুরু হয় ব্যাটারদের আসা যাওয়ার মিছিল। এরই মধ্যে শতক তুলে নেন ফাইজি। ১১৩ বলে ১০৭ করে অপরাজিত থাকেন তিনি। নির্ধারিত ৫০ ওভারে সাত উইকেটে ২৪৮ রানে থামে আফগানদের ইনিংস।

পাকিস্তানের হয়ে তিনটি উইকেট নেয় মোহাম্মদ মুসা। এছাড়া দুটি উইকেট নেন শাহিন শাহ আফ্রিদি।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে চোখে সরষের ফুল দেখতে থাকেন পাকিস্তানের সব ব্যাটসম্যানরা। শুরুতেই ফিরে যান দুই ওপেনার। পাকিস্তান ১১ রানে হারায় দুই উইকেট। মাত্র দুইজন পেরিয়েছেন দুই অংকের কোটা। মোহাম্মদ তাহার ব্যাট থেকে আসে সর্বোচ্চ ১৯ রান। অধিনায়ক হাসান খান এর ব্যাট থেকে আসে ১০ রান।

মুড়ি মুড়কির মত পরতে থাকে সদ্য চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি জেতা পাকিস্তান এর উত্তরসূরিদের। এক মুজিব আর কায়েস আহমেদের নিকটই হেরে যায় পাকিস্তান। মাত্র ৬৩ রানে গুটিয়ে যায় পাকিস্তানের ইনিংস। ১৮৫ রানের বিশাল ব্যবধানে হেরে বসে লজ্জায় ডুবে তারা।

সাত ওভার এক বল করে ১৩ রান দিয়ে পাঁচ উইকেট নেন মুজিব। অন্যদিকে ছয় ওভার বল করে আঠারো রান খরচ করে কায়েস আহমেদ নেন তিন উইকেট। ম্যাচসেরা হয়েছেন ইব্রাহিম ফাইজি।

আরো পড়ুনঃ

রাজশাহীর বিপক্ষে পোলার্ডের নতুন রেকর্ড

Related Articles

অনূর্ধ্ব-১৯ দলের সাথে তাসকিনের অনুশীলন

যুবাদের বিশ্বকাপ জেতাতে চান নাভিদ

যুব দলে যুক্ত হচ্ছেন আরও ক’জন কোচিং স্টাফ

এইচপি থেকে ‘এ’ দলে জায়গা পাওয়ার লড়াই

যুব এশিয়া কাপের ভেন্যু চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার