এশিয়া থেকেই আসছেন নতুন স্পিন কোচ

বাংলাদেশ জাতীয় দলের পরবর্তী স্পিন কোচ এশিয়া থেকেই বেছে নেওয়া হচ্ছে। ইতোমধ্যে তিন পরাশক্তি ভারত, পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কার তিন কোচের সাথে চলছে বিসিবির কথাবার্তা। আলোচনায় আছেন বাংলাদেশি কোচ সোহেল ইসলামও।

Advertisment

আসন্ন জিম্বাবুয়ে সফরের আগেই বাংলাদেশ দলের নতুন স্পিন কোচ নিয়োগ দিতে চায় বিসিবি। বোর্ডের ভাবনায় থাকা সংক্ষিপ্ত তালিকায় কারা আছেন তা জানাতে না চাইলেও এশিয়া থেকেই কোচ নেওয়া হবে, তা নিশ্চিত করেছেন বিসিবির ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির চেয়ারম্যান আকরাম খান।

তিনি বলেন, ‘স্পিন কোচ এশিয়া থেকে আসবে তিনজন, তার মধ্যে শ্রীলঙ্কান একজন, একজন ভারতের আর আরেকজন পাকিস্তানের। আমরা চেষ্টা করছি, হয়ত কয়েকদিনের মধ্যে তারা দেশে এসে পৌছাবে। সেক্ষেত্রে আমরা দুই-তিন দিনের মধ্যে সিনিয়র ক্রিকেটারদের পরামর্শটা নিব, ওদের কথা-বার্তা আমরা নিই; কোচিং স্টাফও আছে, হেড কোচ আছে… তাদের সঙ্গে আলোচনা করি, আমরাও চিন্তা ভাবনা করি।’

ড্যানিয়েল ভেট্টোরির অনুপস্থিতিতে বাংলাদেশের অন্তর্বর্তীকালীন স্পিন কোচ হিসেবে কাজ করেছেন দেশীয় কোচ সোহেল ইসলাম। তার অধীনে কাজ করে স্পিনাররাও ছিলেন স্বাচ্ছন্দ্যে। তাই বিবেচনায় আছেন তিনি। আকরাম বলেন, ‘পছন্দ-অপছন্দের বিষয়টা খেলোয়াড়দের মধ্যে রয়ে গেছে। এখনো আমাদের কোনো কিছু নিশ্চিত হয়নি। সত্যি কথা বলতে কি, স্পিন কোচ হিসেবে আমাদের সোহেলকেও অনেক খেলোয়াড় চাচ্ছে। তাই আমরা সবকিছু বিচেনা করে এই সিদ্ধান্ত নিব।’

‘এই কোভিডের সময় কোচ নিয়োগ কঠিন হয়ে উঠেছে। তারপরও আমরা ইনশাআল্লাহ জিম্বাবুয়ে যাওয়ার আগেই কোচ নেওয়ার চেষ্টা করব। জিম্বাবুয়ে সফরের পরপরই অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড আসবে, তাই আমরা এখনই চেষ্টা করব।’ 

এদিকে করোনা শুরুর পর এক নিউজিল্যান্ড সফর ছাড়া বাংলাদেশ দলের সাথে কাজ করেননি ভেট্টোরি। চড়া পারিশ্রমিকে টাইগারদের চাকরি পাওয়া এই কোচকে নিয়ে তাই আর আগ্রহ নেই বিসিবির। আকরাম বলেন, ‘এখন যে পরিস্থিতি তাতে তাকে পাওয়া কঠিন। আর এ কারণেই তার ব্যাপারে আমরা আগ্রহ দেখাচ্ছি না। তালিকায় কিছু কোচ আছে যাদের আমরা ২-৩ টা সিরিজের জন্য নিয়ে দেখবো। যদি ভালো করে তবে আমরা কন্টিনিউ করব।’