‘ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশ ভালো দল’

0
1833

টেস্টে মুষড়ে পড়া বাংলাদেশ দর্শন সিরিজ শুরুর আগে অপ্রত্যাশিত ছিল সবার কাছেই। মাসখানেক আগে অস্ট্রেলিয়াকে হারানোর পর দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে টাইগাররা এমন অসহায় আত্মসমর্পণ করবে, সেটি ভাবার মতো লোক খুব কমই ছিলেন। এমনকি নিজ দেশের বিপক্ষে বাংলাদেশ এতো খারাপ পারফরমেন্স করবে, সেটি ভাবেননি দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক অধিনায়ক শন পোলকও।

পোলক

Advertisment

সম্প্রতি দেশের শীর্ষস্থানীয় ও জনপ্রিয় সংবাদমাধ্যম বিডিনিউজ২৪-এর সাথে আলাপকালে এমন কথা জানান সর্বকালের অন্যতম সেরা এই পেসার।

প্রথম টেস্ট পঞ্চম দিনে নিতে পারলেও দ্বিতীয় টেস্ট শেষ তিনদিনেই, তাও পরাজয়টা ইনিংস ব্যবধানের। এমন পারফরমেন্সকে পোলক আখ্যা দিচ্ছেন ‘হতাশাজনক’ হিসেবে। সাবেক প্রোটিয়া অধিনায়ক বলেন, ‘এটা নিঃসন্দেহে হতাশাজনক। আমি মনে করি বাংলাদেশ দেশের মাটিতে অনেক উন্নতি করেছে। অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে তারা যেভাবে খেলেছে, তা খুবই প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ছিল। নিউজিল্যান্ডের মাটিতেও তারা কিউইদের বিপক্ষে একটা টেস্টে খুব ভালো খেলেছে। আমি এখানে তাদের পারফরম্যান্সে কিছুটা হতাশ।

পোলকের মতে, পচেফস্ট্রুম ও ব্লুমফন্টেইনের উইকেট দক্ষিণ আফ্রিকার চিরায়ত উইকেটের মতো ছিল না। ব্যাটিং-বান্ধব এই পিচেই বাংলাদেশের ব্যাটিং লাইনআপের ধসে পড়া অবাক করেছে তাকে।

তিনি বলেন, এগুলো দক্ষিণ আফ্রিকার উইকেটগুলোর মতো নয়। পচেফস্ট্রুম আর ব্লুমফন্টেইন সম্ভবত ব্যাটিং করার জন্য সবচেয়ে ফ্ল্যাট উইকেটগুলোর মধ্যে অন্যতম। আমরা যদি বাংলাদেশ বা ভারতে খেলতে গিয়ে এমন উইকেট পাই যেখানে বল খুব একটা টার্ন করে না, তাহলে আমাদের খেলা সহজ হয়ে যায়। এই উইকেটগুলোতে বাউন্স খুব বেশি নেই, গতিও ভয়াবহ নয়। সেজন্যই আমি একটু হতাশ।

দেশের মাটিতে বাংলাদেশ ভালো দল জানিয়ে নিয়ে পোলক বলেন, বাংলাদেশের উচিত বিদেশের মাটিতে নিজেদের উজাড় করে দেওয়া। তবে স্বীকার করে নিলেন, ওয়ানডে ও টি-২০’তে যে বাংলাদেশ ভালো দল- সেটি, বাংলাদেশ অনেক দিন ধরেই খেলছে, তাই যখন তারা বিদেশের মাটিতে খেলবে, তখন তাদের নিজেদের খেলার মান পরের ধাপে নিয়ে যেতে হবে। দেশের মাটিতে তারা খুবই ভালো, কিন্তু বিদেশের মাটিতে তাদের কাছ থেকে আরেকটু ভালো খেলা প্রত্যাশা করি আমি। তারা ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টিতে ভালো দল, কিন্তু টেস্টে তাদের কাছ থেকে আরও ভালো পারফরম্যান্স প্রত্যাশা করি।

  • সিয়াম চৌধুরী, প্রতিবেদক, বিডিক্রিকটাইম