Scores

ওয়ানডে সিরিজে এগিয়ে গেল আফগানিস্তান

 টি-টোয়েন্টি সিরিজের জয়রথ ওয়ানডে সিরিজেও যেন ধরে রেখেছে আফগানিস্তান। স্বাগতিক আয়ারল্যান্ডকে সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে ২৯ রানে হারিয়ে ১-০ তে এগিয়ে গিয়েছে আফগানরা। পুঁজি স্বল্প হলেও বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিং এনে দিয়েছে জয়।

৬৪ রানের ইনিংসের পথে গুলদাবিন। ©ক্রিকেট আয়ারল্যান্ড টুইটার

বেলফাস্টে টস হেরে প্রথমে ব্যাটিং করতে নামে আফগানিস্তান। উদ্বোধনী জুটিটা তেমন বড় হয়নি। টি-টোয়েন্টি সিরিজে ঝড় তোলা হযরতউল্লাহ যাযাই এ ম্যাচেও দিয়েছিলেন ঝড়ের পূর্বাভাস। শুরুতেই হাঁকান এক ছক্কা ও এক চার। কিন্তু ইনিংস লম্বা করতে পারেননি যাযাই। ৯ বলে ১৪ রান করে বয়েড র‍্যাঙ্কিনের বলে সিমি সিংয়ের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান তিনি।

ইহসানউল্লাহ এবং গুলদাবিন নাইব কিছুটা দেখেশুনে খেলতেও চাইলেও তাদের জুটিও ছিল ক্ষণস্থায়ী। নিজের বলে নিজে ক্যাচ নিয়ে দলীয় ২৫ রানের মাথায় ইহসানউল্লাহকে ফিরিয়ে দিয়ে জুটি ভাঙেন টিম মুরট্যাঘ। ২৪ বলে ৯ রান করেন ইহসানউল্লাহ।

Also Read - ক্রিকেটারদের 'ব্যক্তিগত চুক্তি'র জন্যই রবির সরে যাওয়া!


তৃতীয় উইকেটে রহমত শাহকে সাথে নিয়ে ৫৩ রান যোগ করেন গুলদাবিন নাইব। রানের গতিটা অবশ্য ছিল আয়ারল্যান্ডের নিয়ন্ত্রণে। থিতু হলেও বড় স্কোর গড়তে পারেননি রহমত শাহ। ২৯ বলে ২৯ রান করে হন অ্যান্ডি ম্যাকব্রাইনের শিকার। হাল ধরেন হাসমতউল্লাহ শাহিদি।। গুলদাবিন নাইব ও হাসমতউল্লাহ শাহিদি মিলে গড়েন ৭৭ রানের জুটি। অর্ধশতক তুলে নেন গুলদাবিন। ৯৮ বলে ৬৪ রানের ইনিংস খেলে র‍্যাঙ্কিনের বলে এলবিডব্লিউ হন তিনি।

অর্ধশতক হাঁকান শাহিদিও। অধিনায়ক আসগর আফগানকে সাথে নিয়ে ৪২ রান যোগ করেন তিনি। ২৩ বলে ২৫ রান করে পিটার চেজের বলে বিদায় নেন আসগর। পরের ওভারে ৮২ বলে ৫৪ রান করে মুরট্যাঘের শিকার হন শাহিদি। শেষদিকে আফগানিস্তানকে চেপে রাখেন টিম মুরট্যাঘ। পান মোহাম্মদ নবি ও রশিদ খানের উইকেট। দলের প্রয়োজনের সময় ব্যর্থ হন নবি। ২ বলে করেন ১। শফিকুল্লাহ ও আফতাবের ১১ করে স্কোরের পর আফগানিস্তানের সংগ্রহ দাঁড়ায় ৯ উইকেটে ২২৭। ৪ উইকেট শিকার করেন মুরট্যাঘ।

আয়ারল্যান্ডের লক্ষ্য তেমন কঠিন ছিল না। হুমকি ছিল দুই আফগান বোলার রশিদ খান ও মুজিব উর রহমান। তবে তাদের আগেই ধাক্কা দিয়েছেন গুলদাবিন নাইব এবং আফতাব আলম। দলীয় ১৯ রানের মাথায় পল স্টার্লিং ফিরে যান আফতাবের শিকার হয়ে। ২০ বলে করেন ১০ রান। ৩৩ বলে ১৬ রান করে দলীয় ৩৫ রানের মাথায় পোর্টারফিল্ড ক্যাচ দেন উইকেটরক্ষকের হাতে। উইকেট পান নাইব।

নিল ও’ব্রায়েন টিকেননি বেশিক্ষণ। আয়ারল্যান্ডের মিডল অর্ডারের এ গুরুত্বপূর্ণ ব্যাটসম্যান ১১ রান করে উইকেট বিসর্জন দিয়েছেন রান আউট হয়ে।

এরপর প্রতিরোধ গড়েন অ্যান্ডি ব্যালবিরনি এবং সিমি সিং। দুজনে মিলে গড়েন ৪০ রানের জুটি। তাদের জুটি ভাঙেন মোহাম্মদ নবি। ৩১ বলে ১৬ রান করে বোল্ড হয়ে যান সিমি সিং। এরপর হাল ধরেন কেভিন ও’ব্রায়েন। ব্যালবিরনিকে সাথে নিয়ে যোগ করেন ৩৭ রান।

ব্যালবিরনি ফিরেন ৫৫ রানের ইনিংস খেলে। ৬ চারে ৮৪ বলে ৫৫ রান করে তিনি শিকার হন মুজিব উর রহমানের। এরপর ১৪৫ রানের মাথায় ভাইয়ের মতো কেভিনও বিদায় নেন রান আউট হয়ে। ভয়ঙ্কর হয়ে উঠার আগেই ফিরে যান। ৩১ বলে করেন ২২ রান। একদিকে আফগান বোলারদের মিতব্যায়ী বোলিং, অন্যদিকে দুই থিতু হওয়া ব্যাটসম্যানকে দ্রুত হারিয়ে যেন ম্যাচ থেকে ছিটকে পড়ে আইরিশরা।

প্রতিরোধ গড়েছিলেন গ্যারি উইলসন এবং অ্যান্ডি ম্যাকব্রাইন। ১৬ বলে ১২ রান করে নবির শিকার হন ম্যাকব্রাইন। ৭ বলে ২ রান করে আফতাবের বলে বোল্ড হন মুরট্যাঘ। এক প্রান্ত আগলে রাখা উইলসনকে বোল্ড করেন রশিদ। ৫০ বলে ৩৮ রান করেন তিনি। পরের বলেই পিটার চেজকে ফিরিয়ে দিয়ে ২৯ রানের জয় নিশ্চিত করেন রশিদ।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

আফগানিস্তান ২২৭/৯, ৫০ ওভার
গুলদাবিন ৬৪, শাহিদি ৫৪, রহমত ২৯
মুরট্যাঘ ৪/৩১, র‍্যাঙ্কিন ৩/৪৪

আয়ারল্যান্ড ১৯৮/১০, ৪৮.৩ ওভার
ব্যালবিরনি ৫৫, উইলসন ৩৮, কেভিন ২২
আফতাব ২/৩৪,  রশিদ ২/৪১, নবি ২/৪২


আরো পড়ুনঃ মোসাদ্দেকসহ প্রথম দিনে অনুশীলন করলেন ২৯ ক্রিকেটার


নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন


Related Articles

আনন্দবাজারের বিশ্বকাপ একাদশে দুই বাংলাদেশি ক্রিকেটার

এই বিশ্বকাপ আমাদের: স্টোকস

নিশাম-গ্র্যান্ডহোমের ব্যাটে নিউজিল্যান্ডের দুর্দান্ত প্রতিরোধ

অবসর ইস্যুতে সিদ্ধান্ত পাল্টালেন গেইল

জয়ের ধারা ধরে রাখতে জার্সি বদলাবে না লঙ্কানরা!