ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে খেলতে হবে মুস্তাফিজকে

আইপিএলের অনাপত্তিপত্র থাকায় শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে আসন্ন টেস্ট সিরিজের দলে মুস্তাফিজুর রহমানকে রাখা না হলেও ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টাইগারদের পরবর্তী সিরিজে দলে রাখা হবে মুস্তাফিজকে। এমন আভাস দিয়েছেন জাতীয় দলের টিম ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ সুজন।

মুস্তাফিজকে টেস্টে ফিরিয়ে আনতে চায় বিসিবি
এখন পর্যন্ত ১৪টি টেস্ট খেলা হয়েছে মুস্তাফিজের, শিকার করেছেন ৩০ উইকেট।

সাম্প্রতিক সময়ে পেস বোলিং ইউনিটে হানা দিয়েছে ইঞ্জুরি। তাসকিন আহমেদ তো শ্রীলঙ্কা সিরিজে খেলতেই পারবেন না। এবাদত হোসেন চৌধুরী, শরিফুল ইসলামরাও লড়েছেন চোটের সাথে। এমন পরিস্থিতিতে মুস্তাফিজ থাকলে বাকি পেসারদের ওপর চাপ কমত।

Advertisment

এই সিরিজে মুস্তাফিজ না থাকলেও ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজের দলে রাখা হতে পারে। টিম ডিরেক্টর জানান, ‘যেহেতু ওকে আমরা ছুটি দিয়ে দিয়েছি, আইপিএল খেলছে, এখন ওকে ডিস্টার্ব করতে চাই না। আইপিএল খেলুক। আইপিএলে আমাদের একজন প্রতিনিধিত্ব করছে এটা আমাদের জন্য বড় একটা ব্যাপার। আমরা চাই ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজে একটা টেস্ট হলেও খেলুক।’

মুস্তাফিজের মত বিশ্বমানের পেসারকে টেস্টের মত অভিজাত ফরম্যাটে পেতে চান সুজন। তিনি বলেন, ‘আমি তো চাই মুস্তাফিজ টেস্ট খেলুক। কেন না? আমাদের তো এত বোলার নেই। হাতে গুনলে এবাদত, তাসকিন, শরিফুল, খালেদ, রাহী… এরপর বোলার কই? বাংলাদেশের সেরা ফাস্ট বোলারই তো মুস্তাফিজ। অভিজ্ঞতা বলুন, নৈপুণ্য বলুন, টেকনিক-টেকটিকস বলুন। এসব দিক থেকে তো মুস্তাফিজই সেরা।’

টেস্টের জন্য আলাদা কয়েকজন পেসার থাকলেও তাসকিন ও শরিফুল নিয়মিত খেলছেন তিন ফরম্যাটে। এতে তাদের চোটের পড়া শঙ্কাও বেশি। ইঞ্জুরিপ্রবণতা কাটিয়ে উঠতে তাদের বিশ্রাম দিয়ে দিয়ে খেলানোর পরিকল্পনা সাবেক অধিনায়কের।

সবার মধ্যে মুস্তাফিজই সবচেয়ে কঠিন কাজটা করে তামিম 
সীমিত ওভারের ক্রিকেটে নিয়মিতই খেলছেন মুস্তাফিজ। ফাইল ছবি

‘আমাদের ছেলেরা স্টার্ক, হ্যাজলউডের মত না। আমাদের এরা ইঞ্জুরিপ্রবণ। সুতরাং আমরা চাই সবাই বিরতি নিয়ে নিয়ে খেলুক। তাহলে লম্বা সময় ধরে ওদের সার্ভিস পাব। এমনিই শক্তি কম। তার মধ্যে যদি সেরাদের ছাড়া খেলি! আজ তাসকিন ইঞ্জুরড। আমাদের মূল বোলারদের একজন খেলতে পারবে না। মুস্তাফিজ থাকলে দলের ভারসাম্য ঠিক থাকত। শরিফুলও যেকোনো সময় ইঞ্জুরিতে পড়তে পারে। তাসকিন ও শরিফুল এমন খেলোয়াড় যারা যেকোনো সময় ইঞ্জুরিতে পড়তে পারে। সেক্ষেত্রে মুস্তাফিজ থাকলে আমরা ঘুরিয়ে-ফিরিয়ে খেলাতে পারতাম।’

অনেকেই মনে করেন, মুস্তাফিজ ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি বেশি কার্যকরী। তবে টেস্টেও মুস্তাফিজ প্রতিপক্ষের হুমকি হয়ে ওঠার সামর্থ্য রাখেন, মনে করেন সুজন, ‘মুস্তাফিজকে এখানে সাহায্য করার জন্য হলেও রাখা উচিৎ। বোলার যখন তৈরি হয়ে যাবে তখন হয়ত মুস্তাফিজকে প্রয়োজন হবে না। আমি এটা জানি সাদা বলে মুস্তাফিজ ভয়ংকর। কিন্তু এটাও জানি, লাল বলেও সে প্রতিপক্ষের কাছে ভয়ংকর হয়ে উঠতে পারে।’

সুজনের আশা, দেশ ও দলের স্বার্থে বোর্ডের চাওয়া পূরণ করবেন মুস্তাফিজ। তিনি বলেন, ‘আমি মনে করি মুস্তাফিজ বুঝবে। ওকে আমাদের দরকার। এ মুহূর্তে ওকে খুবই প্রয়োজন। ক্রিকেট বোর্ড মানেই মুস্তাফিজ, মুস্তাফিজ মানেই ক্রিকেট বোর্ড। এটা তো আলাদা কিছু না।’

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।