ওয়েস্ট ইন্ডিয়া, পাকিস্তানের পর ভারত?

bd-india

মোঃ সিয়াম চৌধুরী

বাংলাদেশ ভারত দ্বিপাক্ষিক সিরিজ নিয়ে মাসখানেক আগে একটি প্রোমো বানিয়েছিল ভারতভিত্তিক জনপ্রিয় স্পোর্টস চ্যানেল স্টার স্পোর্টস। প্রোমোটিতে বাংলাদেশকে উপস্থাপন করা হয়েছিল একটি ছোট ছেলে হিসেবে, বড়দের অবহেলার পরও যে একসময় দারুণ ক্রিকেট খেলতে শুরু করে। বিজ্ঞাপনটির মূলমন্ত্র হিসেবে প্রচার করা হয়েছিল- বাচ্চাটি এখন আর বাচ্চা নেই, বড় হয়ে গেছে। প্রথমে প্রোমোটি নিয়ে বেশ আলোচনা-সমালোচনা হলেও বাংলাদেশ সফরে এসে বিজ্ঞাপনের সেই কথাটির প্রমাণ হাতেনাতে পেল দুইবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ভারত। বৃষ্টির কারণে একমাত্র টেস্ট ম্যাচটি ভেসে যাওয়ার পর প্রথম ওয়ানডেতে টাইগারদের কাছে শোচনীয়ভাবে হেরেছে মহেন্দ্র সিং ধোনির দল। রোববার তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডে। মিরপুরে দুপুর ৩টা শুরু হতে যাওয়া ম্যাচটিতে হেরে গেলেও ধোনিরা হবেন তৃতীয় বিশ্বকাপজয়ী দল, যারা বাংলাদেশের কাছে সিরিজ হেরেছেন।

Also Read - ১৮ জুন, টাইগারদের শুভলগ্ন


সেক্ষেত্রে দ্বিতীয়’র স্বাদটা কদিন আগেই পেয়েছে পাকিস্তান। বাংলাদেশের কাছে সিরিজ হারা প্রথম বিশ্বকাপজয়ী দল ছিল প্রথম দুটি বিশ্বকাপের শিরোপা ঘরে তোলা ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ক্লাইভ লয়েড, ইমরান খানদের দলের পর শচীন টেন্ডুলকারের ভারতও এখন বাংলাদেশের কাছে সিরিজ হারের দ্বারপ্রান্তে। হাই ভোল্টেজ ম্যাচটি কোনোমতে জিতে গেলেই সিরিজ পকেটে পুড়ে নেবেন মাশরাফি বিন মুর্তজারা।

সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে ৭৯ রানের বিশাল হারের পর বেশ চাপে আছে মহেন্দ্র সিং ধোনির দল। মুস্তাফিজকে দেওয়া ধাক্কা বিতর্কে হারের সাথে উপরি ঝামেলা জুড়িয়েছেন ধোনি। সাবেক ক্রিকেটার ও ক্রিকেট বিশ্লেষকদের অনেকেই সুর তুলেছেন ধোনিকে অধিনায়কত্ব থেকে বিদায় দেওয়ার। হোটেল-ব্যবস্থাপনা অনুযোগের পর কপালে নতুন করে চিন্তার ভাঁজ ফেলেছে বেশ কয়েকজন ক্রিকেটারের হালকা ইনজুরি। তবে ভারতীয় টীম ম্যানেজমেন্টের দাবি, টানা ক্রিকেটে খেলোয়াড়েরা ক্লান্ত হলেও মাঠের পারফরমেন্সে ইনজুরির প্রভাব পড়বে না।

অপরদিকে দারুণ এক জয়ে টাইগার শিবিরে বিরাজ করছে স্বস্তি ও সিরিজ জয়ের প্রস্তুতি। দলের সবাই আছেন ফুরফুরে মেজাজে। ধুঁকতে থাকা ভারতকে বিন্দুমাত্র ছাড় দিতে নারাজ নাসির-তামিমরা। একাদশে পরিবর্তন আসার সম্ভাবনা নেই, তবে ব্যাটিং অর্ডারে টুকটাক এদিক-ওদিক দেখা দিতে পারে গুঞ্জন ক্রিকেট পাড়ায়।

শৈর্য-বীর্যে ক্রিকেটে ভারতের নামটা বরাবরই উপরের দিকে থাকে। সাম্প্রতিক সময়ে ক্রিকেটের পাতিল নিজেদের দখলে নিয়ে নেওয়ার পর ভারত অনেকটা জোরপূর্বকই হয়ে গেছে বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক। তিন মোড়লের এমন সিদ্ধান্তে প্রথমে রাজী না থাকলেও চাপে পড়ে শেষ পর্যন্ত রাজী হতে হয়েছিল বাংলাদেশকে। এবার সুযোগ ভারতকে মাটিতে নামিয়ে আনার। সোনালি ইতিহাসে লিখে রাখার জন্য বাকী মাত্র একটি জয়। দ্বিতীয় ম্যাচেই কি কাঙ্ক্ষিত সেই জয় পেয়ে যাবে মাশরাফির দল?

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন