কবে নাগাদ ফিট হতে পারবেন সাকিব?

0
1508

ঘরের মাঠে আসন্ন জিম্বাবুয়ে ও উইন্ডিজ সিরিজে থাকছেন না সাকিব আল হাসান। ইনজুরির কারণে লম্বা সময়ের জন্য ছিঁটকে গেছেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার।তবে কবে নাগাদ ফিট হতে পারবেন সাকিব? অস্ট্রেলিয়ায় চিকিৎসা করতে যাওয়ার পূর্বে এই বিষয়ে একটা ধারণা দিয়েছেন সাকিব নিজেই।  

সাকিবের মন্তব্যে বিব্রত বিসিবি

ইনজুরি নিয়ে এশিয়া কাপ খেলতে গিয়েছিলেন সাকিব। কিন্তু হাতের অবস্থা ভয়াবহ হওয়ায় টুর্নামেন্টের মাঝপথে দেশে ফিরে আসতে হয় সাকিবকে। ২৬ সেপ্টেম্বর দেশে ফিরে আসার পরের দিনই অ্যাপোলো হাসপাতালে ভর্তি হোন সাকিব,যেখানে জরুরি একটি অস্ত্রোপচার হয় তাঁর। এরপর রোববার (৩০ জুলাই) হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়ে বাসায় ফিরেন সাকিব।

Advertisment
আর পাঁচ দিন পর গতকাল(শুক্রবার) অস্ট্রেলিয়ার পথে পাড়ি জমান। পরবর্তি চিকিৎসা হবে অস্ট্রেলিয়ার চিকিৎসকের পরামর্শেই। অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার আগে একটি বে-সরকারি টিভি চ্যানেলের সঙ্গে আলাপকালে নিজের ইনজুরি নিয়ে সাকিব বলেন, ‘ইনফেকশটাই আমার সবচেয়ে বড় টেনশনের জায়গা। কারণ ইনফেকশন থাকলেই সার্জন আর ওখানে হাত দেবে না। কারণ, ইনফেকশনের সময় হাত দিলে সেটা হাঁড়ে চলে যাবে,হাঁড়ে গেলে তখন পুরো হাতই নষ্ট হয়ে যাবে। আঙুলটা আর কখনো পুরোপুরি (শতভাগ) ঠিক হবে না। কারণ, যে হাড্ডিটা ভেঙেছে সেটা নরম হাড্ডি। যেটা কখনও জোড়া লাগার সম্ভাবনা নেই।’

বাম হাতের কনিষ্ঠ আঙুল পুরোপুরি ঠিক না হলেও ক্রিকেট খেলাটা চালিয়ে যেতে পারবেন সাকিব। এই প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘পুরোপুরি ঠিক হবে না। তবে সার্জারিটা হবে এমনভাবে যেন এবং তারা (ডাক্তাররা) এমন একটা অবস্থায় এনে দেবে হাতটা, যেখান থেকে আমি ভালোভাবে ব্যাট ধরতে পারবো। ক্রিকেট খেলাটা চালাতে পারবো।’ 


২০ অক্টোবর থেকে শুরু হচ্ছে জিম্বাবুয়ে সিরিজ।এরপরেই আসবে উইন্ডিজ। এই দুই সিরিজে সাকিব থাকছেন না, সেটাই আগেই জানা গেছে। তবে কবে নাগাদ আবার মাঠে ফিরবেন দেশসেরা এই ক্রিকেটার? এই প্রসঙ্গে সাকিব জানিয়েছেন, ‘মূল যে অস্ত্রোপচারটা করার কথা, সেটা হলে ৬ থেকে ৮ সপ্তাহ সময় লাগে। সাধারণত ৬ সপ্তাহের ভেতরেই ঠিক হয়ে যায়। ২ সপ্তাহ অতিরিক্ত হাতে রাখা হয়। ৬ সপ্তাহের মধ্যে ঠিক হয়ে যায়, তাহলে তো বিপিএলের বেশ আগেই ফিট হয়ে যাবো।’
 

[আরও পড়ুনঃ ধন্যবাদ জানালেন মাশরাফি]