Scores

করোনার মাঝেও ‘ভালো আছেন’ বাংলাদেশের ভারতীয় কিউরেটররা

কোভিড-১৯ এর ভয়াবহতা বেশ ভালোভাবেই টের পাচ্ছে গোটা বিশ্ব। বাংলাদেশও এর বাইরে নয়। প্রাণঘাতী এই ভাইরাসের আতঙ্কের মধ্যেও খুব বেশি শঙ্কিত নন বাংলাদেশে অবস্থানরত ভারতীয় কিউরেটররা। ভয় আর শঙ্কা ঝেড়ে ‘ভালো আছেন’ প্রবীন হিংগানিকার ও সঞ্জীব আগারওয়াল।

বাংলাদেশ ক্রিকেটের জন্য ব্যস্ত তিন ভেন্যু ঢাকা, সিলেট আর চট্টগ্রাম। এই তিন ভেন্যুর উইকেট দেখভালের গুরুদায়িত্বে আছেন তিনজন বিদেশি কিউরেটর। মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের দায়িত্বে থাকা প্রধান কিউরেটর গামিনি ডি সিলভা শ্রীলঙ্কান। করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের মধ্যেও ঢাকাতেই আছেন তিনি।

Also Read - পাল্টাপাল্টি অবস্থানে ল্যাঙ্গার-ওয়াকার


এছাড়া চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামের কিউরেটর হিসেবে কাজ করছেন ভারতের সাবেক ক্রিকেটার প্রবীন হিংগানিকার। গত বছর থেকে বাংলাদেশে কাজ করার সুযোগ হলেও নাগপুরেই রয়েছে তার পরিবার ও ক্রিকেট একাডেমি।

চলমান পরিস্থিতিতে ভারতে পরিবারের কাছে যাওয়া হয়নি প্রবীনের। সে নিয়ে কিছুটা ভয় অবশ্য কাজ করছে প্রবীনের মধ্যে। তবে প্রতিদিনই ফোনে খোঁজখবর রাখছেন তিনি। বাংলাদেশেও নেহায়েত মন্দ সময় কাটছে না তার। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডকে প্রশংসা বন্যায় ভাসিয়ে এই ভারতীয় জানান, করোনার মাঝেও বেশ স্বস্তিতে আছেন তিনি।

এ প্রসঙ্গে প্রবীন বলেন, ‘কিছুটা সময় কোয়ারেন্টিনে আর কিছুটা মাঠের কাজ করে কাটছে। দুই সপ্তাহ আগে স্টেডিয়ামে গিয়েছিলাম। সেখানে উইকেটে পানি দেওয়ার কাজটা দেখাতে হয়। আর কিছু ব্যবস্থাপনা ছিল। এখন বাসায় আছি।’

‘বিসিবি দারুণ কাজ করেছে। তারা আমাদের বাসায় থেকে কাজ করার নির্দেশ দিয়েছে অনেক আগেই। আমাদের গ্রাউন্ডের কর্মকর্তা বাতেন (সৈয়দ আবদুল বাতেন) খোঁজ নিচ্ছেন ফোন করে। এছাড়াও আরো অনেকেই জানতে চাচ্ছেন কেমন আছি। সত্যি কথা বলতে ভালো আছি।’– সাথে আরও যোগ করেন তিনি।

ভারতীয় আরেক কিউরেটর সঞ্জীব আগারওয়াল সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম দেখভালের দায়িত্ব আছেন। বর্তমানে দেশে ক্রিকেট সংশ্লিষ্ট সকল কার্যক্রম বন্ধ থাকলেও তিনি স্বেচ্ছায় আজও মাঠে গিয়ে উইকেট নিয়ে কাজ করেছেন।

করোনাভাইরাসের মধ্যে পরিবার ছেড়ে ভিন্ন এক দেশে সময়টা কিভাবে কাটছে জানাতে গিয়ে সঞ্জীব বলেন, ‘আজও মাঠে গিয়েছিলাম বিকেলে। কারণ উইকেটে পানি দেওয়া, ঘাসের যত্ন নেওয়া খুবই দরকার। আমি মাঠে যাচ্ছি সব নিয়ম মেনে, সতর্ক থেকে। আমার সঙ্গে যারা কাজ করে তাদেরও একইভাবে পরামর্শ দেয়া হয়েছে।’

‘বিসিবি করোনায় তাদের স্টাফদের নিরাপদ রাখার ক্ষেত্রে দারুণ কাজ করছে। সবার পাশে আছে তারা। ঢাকা থেকে আমাকে নিয়মিত ফোন দিয়ে কেউ না কেউ খবর নিচ্ছে। এর মধ্যে বাতেন ভাই যোগাযোগ রাখছেন ফোন দিয়ে। পরিস্তিতি যেমনই হোক, এখন পর্যন্ত ভালো আছি।’– আরও জানান তিনি।

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

ক্রিকেটারদের ট্রেনিংয়ের ‘তিন পরিকল্পনা’ প্রস্তুত করেছে বিসিবি

চার প্রক্রিয়ায় অনুশীলনের পরিকল্পনা সাজিয়েছে ভারত

করোনার পর কেমন হবে ক্রিকেট?

জাতীয় দলে ফেরা নিয়ে নাসিরের ভাবনা

মোটা অঙ্কের বেতন কাটার সিদ্ধান্ত ক্রিকেট ওয়েস্ট ইন্ডিজের