Scores

কলকাতার রানের পাহাড়ে চাপা পড়ল মুম্বাই

আইপিএলে কলকাতা নাইট রাইডার্সের রানের পাহাড়ের নিচে চাপা পড়েছে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। দুই ওপেনার শুভমান গিল আর ক্রিস লিনের ঝড়ের পর আন্দ্রে রাসেলের বিধ্বংসী ব্যাটিংয়ে ভর করে ২৩২ রান করে কলকাতা নাইট রাইডার্স।

কলকাতার রানের পাহাড়ে চাপা পড়ল মুম্বাই


টস হেরে প্রথমে ব্যাটিং করতে নামে কলকাতা নাইট রাইডার্স। শুরু থেকেই ধ্বংসাত্মক রূপ ধারণ করেন দুই ওপেনার ক্রিস লিন আর শুভমান গিল। একের পর এক চার-ছক্কায় কলকাতা নাইট রাইডার্সের রান বাড়তে থাকে দ্রুত গতিতে। পাওয়েরপ্লেতে অর্ধশতক পূরণের পর দুই ওপেনার আরো ভয়ঙ্কর হয়ে উঠেন। তাদের জুটি ভাঙে দশম ওভারে। রাহুল চাহারের বলে আউট হন ক্রিস লিন। ২৯ বলে ৫৪ রান করেন তিনি। ক্রিস লিনের ইনিংসে ছিল আট চার আর দুই ছক্কা।

Also Read - 'আমার লক্ষ্য ছক্কা হাঁকানো ও শতক করা'


এরপর আন্দ্রে রাসেলকে নিয়ে আরো ৬২ রান যোগ করেন শুভমান গিল। অর্ধশতক তুলে নেন শুভমান গিলও। তার উইকেট নেন হার্দিক পান্ডিয়া। শুভমান গিল শতকের আশা জাগালেও তা হয়নি। ১৯ বছর বয়সী এ তরুণ ৪৫ বলে করেন ৭৬ রান। মারেন ৮ চার আর ২ ছক্কা।

শেষে ঝড় তুলেন আন্দ্রে রাসেল। ব্যাট হাতে এ ক্যারিবিয়ান হার্ডহিটারের তাণ্ডব দেখা গিয়েছে এ ম্যাচেও। তার তুলকালামে দুইশ রানের চৌকাঠ ছাড়িয়ে কলকাতা নাইট রাইডার্স গড়তে থাকে রানের পাহাড়। দীনেশ কার্তিককে সাথে নিয়ে শেষ ২৮ বলে ৭৪ রান তুলেন আন্দ্রে রাসেল। ৬ চার আর ৮ ছক্কা হাঁকানো আন্দ্রে রাসেল অপরাজিত ছিলেন ৪০ বলে ৮০ রান করে।  দীনেশ কার্তিক অপর প্রান্তে অপরাজিত ছিলেন ৭ বলে ১৫ রান করে। ২৩২ রান করে কলকাতা নাইট রাইডার্স। এবারের আইপিএলে এটিই এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ দলীয় স্কোর।

কলকাতা নাইট রাইডার্সের বিধ্বংসী ব্যাটিংয়ে প্রথম ইনিংস শেষেই ম্যাচ থেকে অনেকটা ছিটকে যায় মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। ব্যাটিংয়ে নেমে প্রথম উইকেট হারায় দ্বিতীয় ওভারেই। ওপেনার কুইন্টন ডি কক রানের খাতা খোলার আগেই হন সুনিল নারাইনের শিকার। এরপর হ্যারি গার্নি এসে ফিরিয়ে দেন রোহিত শর্মাকে। ৯ বলে ১২ রান করেন মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের অধিনায়ক। ব্যাট হাতে ধ্বংসযজ্ঞ চালানোর পর বোলিংয়েও জ্বলে উঠেন আন্দ্রে রাসেল। ১৬ বলে ১৫ রান করে তার বলে ফিরে আন এভিন লুইস। ৪১ রানে ৩ উইকেট হারায় মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স।

এভিন লুইসকে ফেরানোর পরের ওভারে আবারো আঘাত হানেন আন্দ্রে রাসেল, ফিরিয়ে দেন সূর্যকুমার যাদবকে। ১৪ বলে ২৬ রানের ছোট্ট ঝড়ো ইনিংস খেলে বিদায় নেন তিনি। এরপর কিরন পোলার্ড আর হার্দিক পান্ডিয়া মিলে গড়েন ৬৩ রানের জুটি। এ জুটিতে ভরক অরে বিপর্যয়ের হাত থেকে রক্ষা পায় মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। ম্যাচে প্রতিদ্বন্দ্বীতা না আসলেও হারের ব্যবধান কমাতে সক্ষম হয় মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। কিরন পোলার্ড ২১ বলে ২০ রান করে ফিরে যান সুনিল নারাইনের বলে।

তবে হার্দিক পান্ডিয়া ছিলেন অদম্য। ৭ ছক্কা আর ১ চারে ১৭ বলে ৫০ তুলে নেন হার্দিক পান্ডিয়া। মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের হয়ে যেন একাই লড়েছেন তিনি। ছক্কার ফোয়ারা ছোটানো হার্দিক পান্ডিয়া থামেন ৯১ রান করে। ৩৪ বলে ৯১ রান করে গার্নির দ্বিতীয় শিকার হন তিনি। দলের পরাজয় তখন অনেকটা নিশ্চিত হলেও হার্দিক পান্ডিয়ার ব্যাটিং বীরত্বে বড় স্কোরের দিকে এগিয়ে যায় মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। ৬ টি চার আর ৯ টি ছক্কা ছিল তার ইনিংসে। শেষে ক্রুনাল পান্ডিয়ার ব্যাটে ভর করে ৭ উইকেটে ১৯৮ রান করে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। ক্রুনাল পান্ডিয়া করেন ১৮ বলে ২৪ রান।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

কলকাতা নাইট রাইডার্স ২৩২/২, ২০ ওভার
রাসেল ৮০*, গিল ৭৬, লিন ৫৪
চাহার ১/৫৪, হার্দিক ১/৩১

মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স  ১৯৮ /৭, ২০ ওভার
হার্দিক ৯১, যাদব ২৬, ক্রুনাল ২৪
রাসেল ২/২৫, গার্নি ২/৩৭, নারাইন ২/৪৪

ফল: কলকাতা নাইট রাইডার্স ৩৪ রানে জয়ী 

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

সর্বশেষ আইপিএল ‘শাপে বর’ হয়েছে সাকিবের জন্য!

“বিশ্বকাপে কন্ডিশন নয়, চাপ সামলানোই বেশি গুরুত্বপূর্ণ”

রক্তাক্ত অবস্থাতেও ব্যাটিং করে যাচ্ছিলেন ওয়াটসন

আইপিএল ২০১৯: একনজরে পুরস্কারসমূহ

আইপিএলের শ্বাসরুদ্ধকর ফাইনাল নিয়ে টুইটারে ঝড়