কাপালি-শামসুরে গাজী গ্রুপের সহজ জয়

অধিনায়ক অলক কাপালির ঘূর্ণি জাদুর পর শামসুর রহমান মেহেদী হাসানের দৃঢ়তায় ডিপিএলের ষষ্ঠ রাউন্ডে কলাবাগান ক্রিকেট একাডেমীর বিপক্ষে জয় পেয়েছে গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স। ডিপিএলে গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্সের চতুর্থ জয়ের বিপরীতে এটি কলাবাগান ক্রিকেট একাডেমীর টানা ষষ্ঠ হার!

অর্ধ-শতকের পর সতীর্থদের অভিবাদনের জবাব দিচ্ছেন বিজয়।

আগে ব্যাট করতে গিয়ে শুরুটা ভালো করলেও বরাবরের মতো আজও শেষটা ভালো হয়নি কলাবাগান ক্রিকেট একাডেমীর। উদ্বোধনী জুটিতে ৪১ রান যোগ করার পর সাঈদের বলে পরাস্ত হয়ে সাজঘরে ফিরেন ২১ রান করা ইরফান শুক্কুর। এর ৬ রান পর ১৪.৪ ওভারের সময় আরেক উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান মাইশুকুর রহমানকেও আউট করেন সাঈদ আনোয়ার।

Also Read - মাশরাফির টর্নেডো সেঞ্চুরী


তৃতীয় উইকেট জুটিতে ৪৪ রানের জুটিরর মাধ্যমে প্রতিরোধ গড়ার চেষ্টা করলেও ৪৪ রান করার পর অলক কাপালির ঘূর্ন শ্রীলংকান ব্যাটসম্যান স্যাক্সেনার বিদায়ের পর আবার ছন্দপতন ঘটে কলাবাগান একাডেমীর। ১০৮ রানের মধ্যে ৫ উইকেট হারিয়ে ধু্ঁকতে থাকা কলাবাগানের হাল নিজের কাঁধে নিয়ে খেলতে থাকেন দলনেতা
মাহমুদুল হাসান ও নুরুজ্জামান । তবে ৪১ তম ওভারে অলকের বলে মাহমুদুলের উইকেট হারালে আর শেষ রক্ষা হয়নি কলাবাগান একাডেমীর। অলক কাপালির ৫ উইকেট শিকারের দিন কলাবাগান একাডেমীকে থামতে হয় ১৮৬ রানেই।

জবাবে দলকে আবারো দুর্দান্ত সূচনা এনে দেন এনামুল হক ও শামসুর রহমান। ২৯ রান করে দলীয় ৫১ রানের সময় এনামুল ফিরে গেলেও ব্যাট হাতে দলের জয়ের রাস্তা একাই সহজ করে দেন শামসুর রহমান। মেহেদী হাসান ৩৯ করে আউট হলেও ৮ চার আর ৩ ছয়ে অপরাজিত ৯৫ রান করে ৫৮ বল বাকি থাকতেই দলকে শেষ হাসি এনে দিয়ে মাঠ ছাড়েন শামসুর রহমান।

সংক্ষিপ্তস্কোরঃ
কলাবাগান ক্রিকেট একাডেমীঃ ১৮৬-১০ (৪৭.৩ ওভার)
স্যাক্সেনা ৪৪, মাহমুদুল ৪১; কাপালি ৪৪-৫
গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্সঃ ১৮৭-২ (৪০.২ ওভার)
শামসুর ৯৫*, মেহেদী ৩৯; মিরাজ ৩১-১

ফলাফলঃ গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স ৮ উইকেটে জয়ী।