Scores

কারা দেখাবে টাইগারদের খেলা, উত্তরের খোঁজে বিসিবি

করোনা দুর্যোগে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) দুশ্চিন্তার বিষয় সম্প্রচার স্বত্ব। গত এপ্রিলে শেষ হয়েছে সম্প্রচারের সর্বশেষ চুক্তির মেয়াদ। ফলে গাজী টেলিভিশন বা জিটিভি আর বোর্ডের সম্প্রচার পার্টনার হিসেবে নেই। বর্তমান অচলাবস্থায় নতুন সম্প্রচার প্রতিষ্ঠান পাওয়া যাবে কি না, এ নিয়ে রয়েছে ধোঁয়াশা ও অনিশ্চয়তা।

করোনায় আক্রান্ত বিসিবি পরিচালক নাদেল

অনিশ্চয়তা থাকাটা অস্বাভাবিকও নয়। করোনাকাল শুরুর আগে টিম স্পন্সরের জন্য মাথা ঘামিয়েও সমাধান পায়নি বোর্ড। খুচরো স্পন্সরে কাজ চলেছে জিম্বাবুয়ে সিরিজে। এবার শেষ হয়েছে সম্প্রচার স্বত্বের চুক্তি। করোনার কারণে ইতোমধ্যে দুটি টেস্ট সিরিজ (অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের বাংলাদেশ সফর) স্থগিতাদেশ পেয়েছে। বাংলাদেশের পরবর্তী হোম সিরিজ আদৌ কবে মাঠে গড়াবে, সেটি এখন বড় এক প্রশ্ন।

Also Read - করোনামুক্ত হলেন মাশরাফির শাশুড়ি






এই প্রশ্নের উত্তর মিললে তবেই খুঁজতে হবে ‘সম্প্রচার স্বত্ব কারা পাবে?’ সেই প্রশ্নের উত্তর। করোনার কারণে অর্থনৈতিক মন্দা নেমে এসেছে কমবেশি সব প্রতিষ্ঠানে। এরই মধ্যে অনিশ্চয়তা জেগেছে ক্রিকেট নিয়ে, যার জেরে দীর্ঘদিন ধরে দেশের ক্রিকেট মাঠের বাইরে। এমন পরিস্থিতিতে যখন হোম সিরিজ মাঠে গড়াবে, তখন কি বিসিবির সাথে সম্প্রচার স্বত্বের চুক্তি করতে রাজি হবে কোনো সম্প্রচার প্রতিষ্ঠান?

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন জানালেন, অতীতের মত দীর্ঘস্থায়ী চুক্তিতেই তাদের দৃষ্টি। বিডিক্রিকটাইমকে তিনি বলেন, ‘জিটিভির সাথে আমাদের সম্প্রচার চুক্তির মেয়াদ আরও আগেই শেষ হয়ে গেছে। এখন আমাদের কারও সাথে চুক্তি নেই। ভবিষ্যতে আমরা দীর্ঘস্থায়ী চুক্তি করবো। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে টেন্ডারের মাধ্যমে এই প্রক্রিয়া সম্পন্ন করবো। সবকিছুই একটা প্রক্রিয়ার মাধ্যমে করতে হবে। প্রচলিত প্রক্রিয়াতেই করতে হবে।’






মহামারীর এই সময়ে স্বাভাবিক প্রক্রিয়ায় সব করাও তো কষ্টসাধ্য! বোর্ড সভার পর সিদ্ধান্ত নিয়েও তো বাকি কাজ কম নেই। যদি দীর্ঘস্থায়ী ব্রডকাস্ট পার্টনার পাওয়া না যায় কিংবা দীর্ঘস্থায়ী ব্রডকাস্ট পার্টনার খোঁজার পরিস্থিতি পাওয়া না যায়, তাহলে টাইগারদের খেলা সম্প্রচারের দায়িত্ব কি একটি সিরিজের জন্য দেওয়া হবে সর্বশেষ পার্টনার জিটিভিকেই? ক্রিকেট অঙ্গনে শোরগোল ফেলা এই প্রশ্নের উত্তর আপাতত সময়ের হাতেই ছেড়ে দেওয়া যায়! তবে একটি জিজ্ঞাসা থাকেই- হোম সিরিজ মাঠে গড়ালে বিসিবি কি খেলা আয়োজন নিয়ে ভাববে, নাকি খেলা দেখানো নিয়ে?

সুজন বলেন, ‘ব্রডকাস্টার চূড়ান্ত করার ক্ষেত্রে আমরা যে প্রক্রিয়া অনুসরণ করবো, তাতে আগ্রহী হলে জিটিভি আসতেই পারে, বা অন্য কোনো চ্যানেল আসতেই পারে। যারা সর্বশেষ ছিলেন (জিটিভি) তারা চাইলে তাদেরকে সুযোগ দেওয়া যেতে পারে। কীভাবে আমরা করছি সেটার উপর নির্ভর করছে। এই সিদ্ধান্ত বোর্ডই নেবে। এ মুহূর্তে এটার ব্যাপারে কিছু বলা যাবে না।’  

অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের মত দলের বিপক্ষে হোম টেস্ট খেলা বাংলাদেশের জন্য বড় প্রাপ্তি। সেই প্রাপ্তি হাতছাড়া হয়েছে করোনায় সিরিজ দুটি স্থগিত হওয়ায়। করোনা পরবর্তী সময়ে ঠাসা সূচিতে জায়গা দিতে গেলে এই সিরিজ দুটির ভবিষ্যৎ কখন নির্ধারিত হবে তাও ভাবনার বিষয়।

বিসিবির প্রধান নির্বাহী জানালেন, এই দুই সিরিজ স্থগিত না হওয়ায় অর্থনৈতিক ক্ষতি বেশি না হলেও ‘ক্রিকেটীয় ক্ষতি’ হয়েছে আহত হওয়ার মতই।

তিনি বলেন, ‘অর্থনৈতিক দিক থেকে ক্ষতি অবশ্যই আছে, তবে খুব বেশি নেই। কিন্তু যে দুইটা হোম সিরিজ বাতিল হয়েছে এই দুইটা টেস্ট সিরিজ। টেস্ট সিরিজ থেকে আমরা আর্থিকভাবে খুব একটা লাভবান হই না। বরং এসব সিরিজে আমাদের খরচই হয় বেশি। সেই হিসেবে এটা খুব বড় কোনো ক্ষতি নয়। তবে ক্রিকেটীয় দিক থেকে এটা বিশাল ক্ষতি। বড় দুইটা টেস্ট খেলুড়ে দলের বিপক্ষে খেলতে পারলাম না। এটা আমরা সবসময় চাই- বড় দলের বিপক্ষে টেস্ট খেলবো। ব্যক্তিগতভাবে আমি মনে করি এদিক থেকে বড় ক্ষতি হল।’

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

 

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

শ্রীলঙ্কা সফরের আগে আবাসিক ক্যাম্প টাইগারদের

শ্রীলঙ্কায় আইসোলেশনে থাকতে হবে না বাংলাদেশ দলকে

বিশ্বকাপ পেছানোয় স্থগিত দুই সিরিজে আগ্রহী বিসিবি

বিদেশের মাটিতে ‘হাই-পারফরম্যান্স’ দলের ক্যাম্প

পিছিয়ে থাকারও ইতিবাচক দিক দেখছে বিসিবি