‘কারো জন্য কেউ অপেক্ষা করে না’

0
587

বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের দুই বড় ভরসা সাকিব আল হাসান ও তামিম ইকবাল নেই ভারত সফরের দলে। তবুও তারুণ্য ও অভিজ্ঞতার মিশেলে জয় দিয়ে সিরিজ শুরু করতে পেরেছে দল। প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু স্মরণ করে দিলেন এর আগে ত্রিদেশীয় সিরিজেও সাকিবকে ছাড়া শক্তির প্রমাণ দিয়েছিল বাংলাদেশ।

Advertisment

 

দেশ ছাড়ার আগে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ বলেছিলেন, দেশের জন্য জান দিয়ে খেলায় তাদের কাজ। আরেক অভিজ্ঞ ক্রিকেটার মুশফিকুর রহিম বলেছিলেন চ্যালেঞ্জিং হলেই খেলাটা বেশি ভালো হয়। সবগুলো ম্যাচেই তারা শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বিতা গড়ে তুলতে চান। দিল্লিতে সফরের প্রথম ম্যাচে সেই কথা রেখে জয়টাও ছিনিয়ে এনেছে রিয়াদের দল।

নান্নু বলেন, ‘ত্রিদেশীয় সিরিজেও কিন্তু সাকিব ফাইনাল ম্যাচটা খেলতে পেরেছিল না। তখনও কিন্তু দল জিতেছিল। এখন এটা মাথায় ঠিক না যে, কে খেলছে না আর কে খেলছে। যেদিন যে সুযোগ পাবে তাকে সুযোগ কাজে লাগাতে হবে। কারো জন্য কেউ অপেক্ষা করে না।’

শুধু অভিজ্ঞ মুশফিক- রিয়াদ নয়, তরুণ আফিফ হোসেন ধ্রুব, আমিনুল ইসলাম বিপ্লব, অভিষিক্ত নাইম শেখরাও রেখেছেন গুরুত্বপূর্ণ অবদান। তরুণদের এই সাফল্য উচ্ছ্বসিত করে দলের নির্বাচককেও, ‘নির্বাচকরা কখনো সবাইকে সন্তুষ্ট করতে পারে না। আমরা গত তিন মাসে এ দল, এইচপির হয়ে ওদের অনেক ম্যাচ খেলার সুযোগ দিয়েছি। গত তিন মাসে অনেক ম্যাচ খেলার সুযোগ পাওয়ায় নাইম, বিপ্লবরা ভালো করেছে এখানে এসে।’

বাংলাদেশের পরবর্তী ম্যাচ গুজরাটের রাজকোটে। দিল্লির থেকে ভিন্ন আবহাওয়া এখানে। নান্নু মনে করছেন, ক্রিকেটাররা যত দ্রুত এই আবহাওয়ার সাথে মানিয়ে নিতে পারবেন ম্যাচের ফলাফল ততই ভালো হবে। বাংলাদেশ অপরিবর্তিত একাদশ নিয়েই খেলার ইঙ্গিত দিয়েছেন প্রধান নির্বাচক।

পরবর্তী ম্যাচ নিয়ে দলের পরিকল্পনার অংশ হিসাবে তিনি বলেন, ‘ভারতের মাঠে ভারতকে হারানো অনেক বড় অর্জন। খেলোয়াড়দের আত্মবিশ্বাস আছে। রাজকোটের ম্যাচটাকে আমরা শুধু আরেকটা ম্যাচ হিসাবেই দেখছি। সিরিজ নিয়ে এখনই ভাবতে চাচ্ছি না। আমাদের মাথায় রাখতে দল হিসাবে টি-টোয়েন্টিতে ভারত অনেক এগিয়ে।’