Scores

কীভাবে সামলেছেন স্পিন, জানালেন মুর

স্পিন নিয়ে জিম্বাবুয়ের ভয় নতুন কিছু নয়। উপমহাদেশের কন্ডিশনে খেলতে এসে উইকেট হারাতে হুমড়ি খেয়ে পড়া যেন জিম্বাবুয়ের ক্রিকেটারদের নিত্য চিত্রই। তবে এবার ব্যতিক্রম ছিলেন পিটার মুর। এই জিম্বাবুইয়ান ব্যাটসম্যান বেশ সাবলীলভাবেই সামলাচ্ছেন বাংলাদেশের স্পিনারদের।

 

সিলেট টেস্ট জয়ের পর সিরিজ জেতার জন্য যা করণীয়, তাই করব আমরা। প্রথম টেস্ট আমাদের জন্য ছিল একটি স্মরণীয় জয়। আমি ছাড়াও আমাদের দলের আরো সাতজনের এটা ছিল প্রথম টেস্ট জয়।  সবার জন্যই জয়টি বিশেষ কিছু। এবার বিদেশের মাটিতে টেস্ট সিরিজ জয় করে আরো বড় মুহূর্তের জন্ম দিতে চাই আমরা। মিরপুরের অনিশ্চয়তায় ভরা উইকেট আর জয়ের জন্য ক্ষুধার্ত বাংলাদেশের বিপক্ষে আমাদের কাজটা সহজ হবে না। যদিও আমরা কঠিন লড়াইয়ের জন্য মানসিকভাবে প্রস্তুত।  পুরো দলই খুব ভালো অবস্থায় আছি। আমরা জানি, আমাদের সামনে খুবই কঠিন একটা ম্যাচ অপেক্ষা করে আছে। সিলেটের চেয়ে এখানকার উইকেটও ভিন্ন থাকবে বলে মনে হচ্ছে। আর সিরিজে হার এড়ানোর জন্য মরিয়া থাকবে স্বাগতিকরাও। কেননা এ টেস্টে অনেক কিছু প্রমাণ করার আছে স্বাগতিকদের।  আমি মনে করি, আমাদের জন্য সামনের কয়েকটা দিন খুবই কঠিন হবে। তবে চ্যালেঞ্জ নিতে আমাদের দলের সবাই প্রস্তুত।

তবে কতটুকু সফলভাবে এই রপ্ত করা হয়েছে, তা নিজেই জানেন না মুর। তিনি বলেন, ‘স্পিন সামলেছি, সেটা আমি আসলে ঠিক নিশ্চিত করে বলতে পারছি না।’ তবে জিম্বাবুয়ের সাবেক ব্যাটিং কোচ ল্যান্স ক্লুজনার তার স্পিনের বিপক্ষে ব্যাটিং উন্নত করেছেন বলে অভিমত মুরের।

Also Read - অবশেষে বিতর্ক নিয়ে মুখ খুললেন কোহলি


তিনি বলেন, তবে ক্লুজনারের সাথে আমি গত বছর বাংলাদেশে এসেও অনেক কাজ করেছি। তিনি আমাকে ব্যাট কীভাবে প্যাডের সামনে আনতে হয়, সেটা নিয়ে ভালো ধারণা দিয়েছেন। এখানে তাকে কৃতিত্ব দেওয়া উচিত।’

স্পিন নিয়ে খাটুনি কম হয়নি মুরের। সাফল্য তাই কেনই বা পাবেন না তিনি! নিজের খাটুনির কথা জানিয়ে মুর আবারও উল্লেখ করেন ক্লুজনারের কথা। তিনি বলেন, ‘আমার মনে হয় আমি এই ব্যাপারটা নিয়ে বেশ খেটেছি। অবশ্যই জিম্বাবুয়েতে ওই অর্থে স্পিন বান্ধব উইকেট নেই, তবে তার পরামর্শ আমাকে সাহায্য করেছে। এবার উপমহাদেশে এসে সেজন্যই স্পিনটা ভালোভাবে সামলাতে পেরেছি।’

স্পিনের বিপক্ষে নিজের রক্ষণ আগের চেয়ে ভালো হয়েছে বলে মনে করেন ২৭ বছর বয়সী এই ডানহাতি ব্যাটসম্যান। এমনকি প্রথম টেস্টের আগেও এই ব্যাপারটি নিয়েই ভাবছিলেন তিনি। নিজের সেরাটা ধেলে দেওয়ার সুযোগ কাজে লাগিয়ে বেজায় খুশি হওয়া এই ক্রিকেটার বলেন, ‘স্পিনের বিপক্ষে আমার রক্ষণ এখন আগের চেয়ে ভালো হয়েছে। প্রথম টেস্টের আগে আমি এই ব্যাপারটা নিয়েই ভাবছিলাম। শুরুতে ব্যাট করলে আমার সেরা সুযোগ আসবে, সেটাও আমি জানতাম। আমি সেটা পুরোপুরি কাজে লাগাতে চেয়েছি, নিশ্চিত করতে চেয়েছি যেন গোটা দিন ব্যাট করতে পারি। আশা করি, পরের ম্যাচেও ধরে রাখতে পারব।’

আরও পড়ুন: অবশেষে বিতর্ক নিয়ে মুখ খুললেন কোহলি

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন


Related Articles

বাংলাদেশে বসছে ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজ

জিম্বাবুয়ে ক্রিকেটে আবারো ‘ঝড়ের হানা’

জিম্বাবুয়ে দলে ফিরলেন টেলর-মাসাকাদজা

ক্রিকেটের বিশ্বায়নে আইসিসির যুগান্তকারী পদক্ষেপ

‘পরামর্শক’ ক্রেমার লড়বেন জিম্বাবুয়ের বিপক্ষেই