Scores

কুমিল্লাকে জেতালেন মাশরাফি

mashrafe

আজমল তানজীম সাকির 

শুভাগত হোম আর মারলন স্যামুয়েলস মিলে রানের গতি ভালোই বাড়ান। ১৬ বলে ৩০ রানের মারকুটে ইনিংস খেলেন শুভাগত। শুভাগত হোমের বিদায়ের পর হয়তো অলক কাপালি বা মাহমুদুল হাসানকে ব্যাট হাতে নামতে দেখার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন দর্শকেরা। কিন্তু সবাইকে অবাক করে দিয়ে পাঁচ নম্বরে ব্যাট করতে নামলেন অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। ইনিংসের তখন অষ্টম ওভার। সাধরণত লোয়ার অর্ডারে ব্যাট করা মাশরাফি হঠাৎ নামলেন মিডল অর্ডারে।

আর মিডল অর্ডারে তার হঠাৎ করে নামাই বদলে দিল ম্যাচের চিত্র। ঝড়টা শুরু করেন আসিফ আহমেদকে ছক্কা হাঁকিয়ে। খেলা তখনো চট্টগ্রাম ভাইকিংসের অনুকুলে। ছয় মারার পর কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের জিততে রান দরকার ছিল ৬৩ বলে ১০৪। স্যামুয়েলসকে নিয়ে হাল ধরেন অধিনায়ক। প্রতি ওভারেই ছিল নান্দনিক স্ট্রোকের ফুলঝুড়ি। তাদের জুটিতে খেলায় ফিরে আসে কুমিল্লা।

Also Read - সিলেটের মালিকের বিরুদ্ধে তামিমকে গালি দেয়ার অভিযোগ


সাত ওভারে কুমিল্লার দরকার ছিল ৭২। পরের ওভারে বল করতে আসলেন সাঈদ আজমল। তার করা ৯ বলের ওভারেই যেন বদলে গেল সব। ২০ রান আসে ঐ ওভার থেকে। তারপর কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স আর পিছনে ফিরে তাকায়নি। স্যামুয়েলস ও মাশরাফি মিলে সাত বল আগেই দলকে জয়ের বন্দরে পৌছে দেন। ৪ টি চার ও ৩ টি ছক্কায় ৩২ বলে ৫৬ রান করে মাশরাফি ও ৮ টি চার ও ১ টি ছক্কায় ৬৯ রান করে অপরাজিত থাকেন স্যামুয়েলস। তবে দলের অন্য দুই ব্যাটসম্যান লিটন ও ইমরুল প্রথম ম্যাচের মতো ব্যার্থ ছিলেন। লিটন ৯ ও ইমরুল ০ রান করেন।

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা বেশ ভালো হয় চট্টগ্রাম ভাইকিংসের। দুই ওপেনার তামিম ইকবাল ও তিলাকরত্নে দিলশান দলকে ৬৩ রানের ভিত দেন। দিলশান করেন ৩৬ রান। প্রথম দুই ম্যাচে ফিফটি হাঁকানো তামিম ইকবাল করেন ৩৩।  সেই ভিত কাজে লাগান মিডল অর্ডারের ব্যাটসম্যানরা। আনামুল হক বিজয় রান করেন ৩৯। তবে দলের স্কোর বড় করার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন জিয়াউর রহমান। ১৬ বলে ৩৯ রানের ঝড়ো ইনিংস চট্টগ্রামকে ১৭৬ রানের বড় স্কোর উপহার দেয়। ৪ টি উইকেটেড় মধ্যে কুমিল্লার জাইদি ২ টি,  নারাইন ১ টি ও অধিনায়ক মাশরাফি  ১ টি উইকেট শিকার করেন।

টুর্নামেন্টে এটি কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের প্রথম জয়। আর ভাইকিংসদের জন্য দ্বিতীয় হার।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

চট্টগ্রাম ভাইকিংস ১৭৬/৪ (২০ ওভার)
জিয়াউর ৩৯, আনামুল ৩৯; জাইদি ২৯/২

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সঃ ১৭৭/৩ (১৮.৫ ওভার)
স্যামুয়েলস৬৯, মাশরাফি ৫৬; আমির ২৭/২

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

ওবায়দুল কাদেরকে দেখতে হাসপাতালে মাশরাফি

এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ জিতলো ভারত

মেডিকেল রিপোর্টের উপরেই নির্ভর করছে সাকিবের এনওসি

শঙ্কা কাটিয়ে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে খেলছেন মুস্তাফিজ

দুদকের শুভেচ্ছাদূত হলেন সাকিব