Scores

কে এই রাহুল তেভাতিয়া

স্যামসন-স্মিথ ঝলকে আইপিএল ইতিহাসের সর্বোচ্চ রানের তাড়া করতে যাচ্ছে রাজস্থান রয়্যালস। সেখানে ১৯ বলে মাত্র ৮ রান করে ‘ঘরের শত্রু বিভীষণে’ পরিণত হয়ে গেছেন রাহুল তেভাতিয়া। রবিন উথাপ্পাকে রেখে কেন তাকে ব্যাটিংয়ে পাঠানো হলো? পুরোদুস্তর ব্যাটসম্যানকে কেন ব্যাটিংয়ে পাঠানো হলো না? এ নিয়ে কমেন্ট্রি বক্সে চলছে বিস্তর আলোচনা। তেভাতিয়ার স্বদেশী গ্রেট সুনীল গাভাষ্কার-পুত্র রোহান গাভাষ্কার তার পক্ষে নানা যুক্তি দিয়ে তাকে বাঁচানোর প্রাণপণ চেষ্টা চালাচ্ছেন। পমি এমবাংয়া উথাপ্পাকে না দিয়ে তেওয়াতিয়াকে পাঠানোয় করছেন তার বিরোধিতা।

কে এই রাহুল তেভাতিয়া

তেভাতিয়াও অসহায় হয়ে পড়েছেন। কোনোতেই বল ব্যাটে লাগছে না। যেই বিষ্ণইকে সর্বহারা করার জন্য তাকে পাঠানো হয়েছিলো সেই বিষ্ণইয়ের একের পর এক গুগলিতে তিনি হচ্ছেন সর্বহারা। ২২৪ রান তাড়ায় লেগ স্পিনার বিষ্ণইয়ের ৮ বল খেলে শেষমেশ মাত্র এক ছয় হাঁকিয়ে ৭ রান করতে পারেন রাহুল তেভাতিয়া। কোচদের আস্থা থাকলেও ততক্ষণে সাঞ্জু স্যামসনের সঙ্গে সঙ্গে কোচরাও হয়তো ‘নিজের কপালে নিজে কুড়াল মারা’- এমন কিছু ভাবতে শুরু করেছেন। তেওয়াতিয়ার উপরে স্যামসন বিশ্বাস হারিয়ে ম্যাক্সওয়েলের ওভারে পরপর দুই ছক্কা মেরে ম্যাচে রাজস্থানকে বাঁচিয়ে রেখে পরের বলে সিঙ্গেল নেওয়ার সুযোগ থাকলেও স্যামসন তা করেননি। রাহুল হয়তো তখন খুব অপমান বোধই করেছিলেন। ব্যাটে বল লাগাতে না পারা রাহুল পরে এ আসরের সেরা বোলারদের একজন শেল্ডন কটরেলকে এক ওভারে ৫ ছক্কা মেরে জবাব দিয়েছেন সবকিছুর। প্রথম ২১ বলে মাত্র ১৪ রান করা তেওয়াতিয়া দলকে জয়ের বন্দরে পৌছে দিয়ে থেমেছেন ৩১ বলে ৫৩ রান করে। তেভাতিয়ার অমন অবিশ্বাস্য ব্যাটিং দেখে হয়তো কটরেলেরও স্যালুট দিতে মন চাইছিলো! ৫ ছক্কার মার যদি তার উপর দিয়ে না যেতো তাহলে হয়তো তা করেও ফেলতেন এই ওয়েষ্ট ইন্ডিয়ান।

Also Read - এলপিএলে সাকিবের এনওসি নিয়ে ধোঁয়াশা রাখলেন পাপন






কৃষক পরিবারে বেড়ে উঠা তেভাতিয়ার দাদা চাইতেন তাকে কুস্তিগীর বানাতে। কিন্ত ক্রিকেটীয় সম্বন্ধহীন পরিবারের রাহুল তেভাতিয়া ছোট থেকেই প্রেমে পড়ে যান ব্যাট-বলের খেলায়। ৫ বছরে শুরু করেন ক্রিকেট শেখা। উকিল বাবা ক্রিকেটে ছেলের আগ্রহ দেখে ফরিদাবাদের একটি একাডেমিতে তাকে ভর্তি করিয়ে দেন। এরপর আরেকটি একাডেমিতে ভর্তি হন যেখানে তিনি তাঁর গুরু বিজয় যাদবকে পান। ক্যারিয়ারে যে বিজয় যাদবের অবদান অনেক। ক্রিকেটীয় ক্যারিয়ারে তেভাতিয়া মা-বাবার চেয়ে বেশি সহায়তা পেয়েছেন দুজনের কাছ থেকে। বিজয় যাদবের পাশাপাশি তার চাচাও তাকে বেশ সমর্থন যুগিয়েছেন। ২০১৪ সালে হারিয়ানা রাজ্যের হয়ে রঞ্জি ট্রফিতে অভিষেক হয়ে যায় অত্যন্ত পরিশ্রমী তেভাতিয়ার। পরের বছরই আইপিএলে রাজস্থান রয়্যালসে ডাক পেয়ে যান তিনি।

২০১৪-১৫ সালে দুই বছর খেলেন রয়্যালসের জার্সিতেই। এ দুই মৌসুমে ৪ ম্যাচ খেলে ৩ উইকেট শিকার করেন। একবার ব্যাটিংয়ের সুযোগ পেয়ে ১৩ বলে করেন ১৬ রান। ফিক্সিং কেলেঙ্কারির জন্যে এরপর চেন্নাই সুপার কিংসের সাথে রাজস্থান রয়্যালসও নিষিদ্ধ হয় দুই বছরের জন্য। রয়্যালসের নিষিদ্ধ সময়ের প্রথম বছরে কোনো দল পাননি তেভাতিয়া। ২০১৭ সালে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবে জায়গা হয় কেন্দ্রীয় আয়কর বিভাগে কর সহকারী পদে চাকরি করা তেভাতিয়ার। প্রীতি জিনতার দলের হয়ে সে বছর ৩ ম্যাচ খেলে ৩ উইকেটের পাশাপাশি ২ ইনিংস ব্যাটিং করে ১৯ রানও করেন বাঁহাতি এ ব্যাটসম্যান।






২০১৮ সালে তেভাতিয়াকে দলে ভেড়ায় প্রিয় আরেক শহর। প্রাথমিক পড়াশোনা গ্রামে চালিয়ে গেলেও তিনি গ্রাজুয়েশন শেষ করেন দিল্লিতেই।। দিল্লি ডেয়ারডেভিলসে ৩ কোটিতে বিক্রি হয়ে ৮ ম্যাচে ৫ জনকে পাঠাতে পেরেছেন সাজঘরে। ৫ ইনিংস ব্যাট করে দিল্লিকে দিয়েছেন ৫০ রান। পরের বছর ভাগ্য বদলানোর আশায় নাম বদলায় দিল্লি। কিন্ত তেওয়াতিয়াকে ছাড়ে না। ২০১৯ সালে দিল্লি ক্যাপিটালসে রিটেইনড হয়ে ৪ ইনিংসে ২৬ রান করেন এই লেগ স্পিনার। ৫ ম্যাচে ৩৮ বল করে ৪২ রান দিয়ে শিকার করেছেন ২ উইকেট।

কে এই রাহুল তেভাতিয়া

যেই রাজস্থান রয়্যালস দিয়ে শুরু করেছিলেন সেই রয়্যালসেই এবার ফিরে এসেছেন। রয়্যালস তার উপর বিশ্বাস রেখেছিলো শুরু থেকেই, তিনিও সে বিশ্বাস ভঙ্গ করেননি। ৭ ফার্স্ট ক্লাস ও ২১ লিস্ট-এ ম্যাচ খেলা তেওয়াতিয়া প্রথম ম্যাচেই ৩ উইকেট নিয়ে রাজস্থান রয়্যালসের জয়ে বিশেষ ভুমিকা রেখেছেন। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে ১৫৪ স্ট্রাইক রেটে খেলা তেভাতিয়ার স্লগ ওভার হিটিং সামর্থ্যে বিশ্বাস রেখেছিলো রাজস্থান রয়্যালস। কাল তার সেই সামর্থ্যে সকলের অবিশ্বাসকে ভেঙ্গেছেন আউট হওয়ার আগের শেষ ১০ বলে ৩৯ রান করে। স্বপ্ন বহুদুর যাওয়ার, ভারতের জার্সি গায়ে দেওয়ার। দুঃসাধ্য হলেও দুঃসাধ্যর সঙ্গে সখ্য করা তেওয়াতিয়া হয়তো সে পথও পাড়ি দেবেন! অসাধ্য সাধন করে আজ মাত্র দেখিয়ে দিলেন নিজের নাম, চেনালেন নিজেকে। রাহুল তেভাতিয়াকে।

লিখেছেন- রিফাত বিন জামাল

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

Related Articles

দুশ্চিন্তার মধ্যেই দুঃসংবাদ পেল হায়দরাবাদ

জার্সিতে কিছু যায় আসে না স্টোকসের

রেকর্ড গড়ার ম্যাচে গেইলের জরিমানা

যুক্তরাজ্যে ইপিএলের চেয়েও আইপিএলের দর্শক বেশি!

কোন টুর্নামেন্টে কত ছক্কা হাঁকিয়েছেন গেইল?