Scores

ক্যারিয়ার বাঁচাতেই আইসিএল বেছে নেন নাফীস

নিজের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার বাঁচাতেই আইসিএলে খেলতে গিয়েছিলেন তিনি, এমনটাই দাবি শাহরিয়ার নাফীসের। নিজের সত্যায়িত ফেসবুজ পেজে আইসিএল; ‘দ্য আনটোল্ড ট্রুথ’ ভিডিওতে এমনটাি জানিয়েছেন তিনি।

২০০৮ সালে বাংলাদেশের ক্রিকেট ঘিরে সৃষ্টি হয়েছিলেক বিতর্ক। সে সময় ভারতে অনুষ্ঠিত আইসিএল খেলতে গিয়েছিল বাংলাদেশের ১৩ সদস্যের একটি দল। সে দলে ছিলেন শাহরিয়ার নাফীস, হাবিবুল বাশার, আফতাব আহমেদের মতো তারকা ক্রিকেটাররা। তবে সে সময়টায় আইসিসি থেকে টুর্নামেন্টটি স্বীকৃত না থাকায় নিষিদ্ধ করা হয়েছিল নাফীসদের।

Also Read - আর্চারকে নিয়ম মেনে চলতে বলে ঠাট্টার শিকার সালমান


পরবর্তীতে নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ কমিয়ে আনা হয় এবং আবারো জাতীয় দলে খেলেন নাফীস। তবে সে সময়টায় থেমে যায় অনেকেরই ক্যারিয়ার। আইসিএল ইস্যুতে নিজের ফেসবুকে এক ভিডিও বার্তায় অনেকটাই খোলামেলা কথা বলেছেন নাফীস। মূলত নিজেকে প্রমাণ করতেই আইসিএলে গিয়েছিলেন এ ক্রিকেটার।

“একজন ক্রিকেটারের ২০০৫ সালে অভিষেক হলো, ২০০৬ সালে ১ হাজার রান করলো। ওয়ানডেতে, টেস্টে ভালো করলো, এরপর একটি টুর্নামেন্টে ৩-৪টি ম্যাচ খেলার পর যদি আপনি তাকে ছুঁড়ে ফেলতে চান, তাহলে সে কীভাবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করবে, আমি সে উত্তর এখনও খুঁজে পাই না। তখন বাংলাদেশ বেশিরভাগ ম্যাচই ওয়ানডে খেলতো, যখনোই সুযোগ পেয়েছি, ভালো খেলার চেষ্টা করেছি। কিন্তু আমার কোনো খেলাই যেন কারও জন্য যথেষ্ট ছিল না।”

তিনি আরও যোগ করেন, “আমি চেয়েছিলাম, এই সিস্টেমের বাইরে গিয়ে এমন একটা জায়গায় খেলতে, যেখানকার মান ভাল, এবং ভাল খেললে সবাই স্বীকৃতি দেবে। এবং আমি এখনও বিশ্বাস করি, তখন তো করতামই, যে আমি আইসিএলে গিয়েছিলাম, ভালো খেলেছিলাম বলেই আত্মবিশ্বাস নিয়েই ফিরেছিলাম। এরপর জাতীয় দলে কতোখানি সুযোগ পেলাম, কী করলাম, কী হতে পারত, সেসব অন্য বিতর্ক, সেদিকে যেতে চাচ্ছি না। তবে আমি ক্যারিয়ার বাঁচানোর জন্যই আইসিএলে গিয়েছিলাম।”

২০০৮ এশিয়া কাপের আগে বোর্ডের ব্যবহারের কষ্ট পেয়েছিলেন নাফীস। মূলত ২০০৭ এর পর থেকেই জাতীয় দলে আসা-যাওয়ার মধ্যে ছিলেন তিনি। তবে একজন ক্রিকেটারকে বাদ দেওয়ার প্রক্রিয়া মোটেই পছন্দ হয়নি নাফীসের।

“আপনি একটি সিরিজে সেরা ক্রিকেটার হবেন, এরপরের সিরিজে একটি ম্যাচ খারাপ খেললেই বাদ দেবেন, তখন তার কাছে কী বার্তা যায়, আমি নিশ্চিত ছিলাম না। ২০০৮ সালে যখন এশিয়া কাপ খেলতে যাই, আমার কানে এমন কথাও এসেছে যে, ‘প্রয়োজনে ফার্স্ট বোলারকে দিয়ে ওপেন করানো হবে, কিন্তু শাহরিয়ার নাফীসকে কোনও সুযোগ দেওয়া হবে না। আমার জাতীয় দলের অবস্থা ছিল এমন।”

 

Related Articles

“টাকার জন্য নয়, নিজেকে প্রমাণের জন্য আইসিএলে গিয়েছিলাম”

আশরাফুলের আইসিএলের দল গোছানোর খবর আংশিক সত্য : নাফীস

আইসিএল খেলতে যাওয়ার কারণ জানালেন আফতাব

১৫ কোটি টাকার প্রস্তাব পেয়েও আইসিএলে যাইনি : আশরাফুল