ক্রাইস্টচার্চেও শর্ট-পিচ বল দিয়ে আক্রমণ করবে নিউ জিল্যান্ড

ওয়েলিংটন টেস্টে কিউই পেসারদের শর্ট-পিচ ডেলিভারি বেশ ভুগিয়েছে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের। বিশেষ করে দ্বিতীয় ইনিংসে শর্ট-পিচ ডেলিভারিগুলো বেশ ঝামেলাতেই ফেলেছিলো বাংলাদেশকে। মুশফিকুর রহিমতো টিম সাউদির বাউন্সারে পরাস্ত লুটিয়েই পড়েছিলেন। ক্রাইস্টচার্চে চোট জর্জরিত বাংলাদেশের বিপক্ষে আরও বেশি শর্ট-পিচ ডেলিভারি করবে নিউ জিল্যান্ড।

নিউ জিল্যান্ডের বোলিং আক্রমণের অন্যতম প্রধান অস্ত্র ট্রেন্ট বোল্ট মনে করেন দ্বিতীয় ইনিংসে নিউ জিল্যান্ডের বোলিংয়ে আগ্রাসনই ওলট-পালট করে দিয়েছিলো সফরকারী বাংলাদেশকে।

Also Read - পাকিস্তানের হার, র‍্যাংকিং নিয়ে স্বস্তিতে বাংলাদেশ


বোল্ট বলেন, “সুইং না থাকলে আমরা এমন জায়গায় বল করার চেষ্টা করি যেটা বিপক্ষ দলের প্রতি আক্রমণাত্মক হবে। আমরা এটি কিছুদিন ধরে ব্যবহার করছি। আমরা এটি সফলভাবেই ব্যবহার করছি। আমি নিশ্চিত যে দলের মধ্যে শর্ট-পিচ বোলিংয়ের প্রবণতা থাকবে।”

ট্রেন্ট বোল্ট মনে করেন বাউন্সারের সামনে কঠিন এক পরীক্ষা দিতে হচ্ছে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের। নিউ জিল্যান্ডের কন্ডিশনে এ শর্ট-পিচ ডেলিভারিগুলো টাইগারদের অস্বস্তিতে ফেলছে বলে মনে করেনে পেসার।

সাউদির শর্ট পিচে মুশফিকের মাঠ ছাড়া প্রসঙ্গে বলেন, “আপনি নিশ্চয়ই কাউকে আঘাত করার উদ্দেশ্যে বল ছুঁড়বেন না।”

ক্রাইস্টচার্চের হ্যাগলি ওভালের উইকেটটা সিমারদের সহায়তা করবে বলে বিশ্বাস বোল্টের। বিশেষ করে প্রথম এক বা দুই সেশনে ফাস্ট বোলারদের বেশ সহায়তা করবে উইকেট। সেক্ষেত্রে ইমরুল-মোমিনুল-মুশফিকবিহীন বাংলাদেশকে দিতে হতে পারে এক বড় পরীক্ষা।

-আজমল তানজীম সাকির, প্রতিবেদক, বিডিক্রিকটাইম ডট কম 

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন