Scores

ক্রিকইনফোর সাড়া না পাওয়ায় ক্ষুব্ধ ভারতীয় ভক্তরা

 

সম্প্রতি ভারতের কাশ্মীরে জঙ্গি হামলায় ৪০ জন সৈন্য নিহত হওয়ার পর থেকেই সরগরম ক্রিকেট বিশ্ব। পাকিস্তানের টিটোয়েন্টি লীগকে বয়কটের জন্য উঠে পড়ে লেগেছে ভারতীয় ভক্তরা।

টুইটারে ভারতীয় আন্দোলনে নেমেছে। টুইট করে ক্ষোভ জানিয়েছে তারা পিএসএলের সাথে জড়িত মিডিয়া, খেলোয়াড়, ধারাভাষ্যকার সকলের প্রতি। তাদের লাগাতার আন্দোলনের ফলে পিএসএল সম্পর্কিত সকল খবর বন্ধ করে দিয়েছে ভারতীয় ওয়েবসাইট ক্রিকবাজ। শুধু ক্রিকবাজ নয় ভারতীয় ওয়েবসাইট ক্রিকট্র্যাকারও বন্ধ করে দিয়েছে পিএসএলের সকল খবর।

Also Read - যুব টেস্ট সিরিজেও হোয়াইটওয়াশ ইংলিশরা


ভারতের ফ্যান

ভারতে পিএসএল সম্প্রচারের দায়িত্ব পাওয়া ডি স্পোর্টস বন্ধ করে দিয়েছে পিএসএল সম্প্রচার। ভারতের বিখ্যাত অনলাইন ক্রিকেট প্রেডিকশন এপ ড্রিম ১১ তাদের ওয়েবসাইট থেকে সড়িয়ে নিয়েছে পিএসএলের সকল প্রেডিকশন। পিএসএলের সম্প্রচারের সাথে জড়িত রিলায়েন্স কোম্পানিও তাদের পিএসএলের সম্প্রচার থেকে সড়ে এসেছে। বিকল্প ব্যবস্থা খুজে নিতে হচ্ছে পাকিস্তানকে পিএসএলের সম্প্রচারের জন্য।

তবে এত আন্দোলন ও সমালোচনার পরও বিখ্যাত ক্রিকেট ওয়েবসাইট ক্রিকইনফো পিএসএলের খবর ও পাকিস্তানি দলের খবর প্রচার থেকে সড়ে আসেনি। নিয়মিত ভারতীয় ভক্তরা ক্রিকইনফোর পেইজে অনুরোধ করছে তাদের সৈনিকদের মৃত্যুর উপর সম্মান জানিয়ে ও এর প্রতিবাদে যেন ক্রিকইনফো পিএসএল বয়কট করে।

কিন্তু এত অনুরোধ কোন কাজে আসছে না। তাদের দাবি ক্রিকট্র্যাকার, ক্রিকবাজ পিএসএল বন্ধ করতে পারে তাহলে কেন তাদের এত অনুরোধের পরও ক্রিকইনফো পিএসএলের খবর করা বন্ধ না করে উল্টো আরো বেশি করে পিএসএল ও পাকিস্তান সম্পর্কিত খবর প্রচার করছে।

তবে ব্যাপার হলো ক্রিকবাজ ও ক্রিকট্র্যাকারের জন্য পিএসএলের খবর বন্ধ করা সহজ হলেও ইএসপিএন ক্রিকইনফোর জন্য এটি কঠিন হবে। যেই ওয়েবসাইট গুলো পিএসএলের খবর বন্ধ করেছে সেগুলো সবগুলোই ভারতীয় ওয়েবসাইট ও তাদের সকলের সৃষ্টি ভারত কেন্দ্রিক।

অন্য দিকে ক্রিকইনফোর সৃষ্টি হয় ১৯৯৩ সালে যা মোটেও ভারত কেন্দ্রিক নয়। ক্রিকইনফোর জন্ম ইংল্যান্ডে। পরবর্তীতে উইজডেনের হাত হয়ে ওয়েবসাইটটি আসে ইএসপিএনের কাছে। ইএসপিএনের কাছে বর্তমানে ক্রিকইনফোর মালিকানা। ইএসপিএন একটি যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক ক্রীড়া বিষয়ক সাইট যা সকল খেলার খবর প্রচার করে থাকে।

যেহেতু ক্রিকইনফোর মূল মালিকানা যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক ইএসপিএনের হাতে তাই তাদের জন্য কোন এক বিশেষ দেশের সেনা নিহত হওয়ায় অন্য কোন দেশের খেলার খবর বন্ধ করা বেশ কঠিন হবে ও তাদের নীতি বিরোধী হবে। বৈশ্বিক এই ওয়েবসাইটের উপর প্রচুর চাপ আসলেও এখনো পিছে হটেনি পিএসএলের খবর প্রকাশ থেকে।

তবে তাদের এই পিএসএলের খবর প্রকাশের স্পর্ধা ভালোভাবে নেয়নি ভারতীয় ভক্তরা। রীতিমতো হুমকি দিয়ে যাচ্ছে ক্রিকইনফোর পেইজ আনফলো, আনলাইকের ও ক্রিকইনফোর এপ আনইন্সটলের ও এক রেটিং দিয়ে নামিয়ে আনার। তাদের কথা ভারতীয় ওয়েবসাইট না হলেও তাদের দাবি মানতে হবেই যে করেই হোক ।

শুধু ভারতে নয় পুরো বিশ্বে যেন তাদের ওয়েবসাইটে পিএসএল ও পাকিস্তান সম্পর্কিত কোন খবর না আসে তাদের কথা। ভারতীয়দের দাবি মানতে গেলে তিন দশক ধরে চলে আসা ক্রিকইনফোকে তাদের নীতির বিরুদ্ধে যেতে হবে। দেখার বিষয় হবে এই চাপ সহ্য করে ক্রিকইনফো সামনেও পিএসএলের খবর প্রকাশ করে কিনা।

দেখে নিন ক্রিকইনফোর উপর চটে থাকা ভারতীয় ভক্তদের কিছু টুইট

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

আইপিএলে অধিনায়ক হচ্ছেন সাকিব, গুজব নাকি সত্য?

আইপিএলের মত লাভের ভাগ চায় ফ্র্যাঞ্চাইজিরা

টম মুডির কপাল পোড়ালেন ট্রেভর বেইলিস

বিশ্বকাপজয়ী কোচকে এবার দেখা যাবে ভারতে!

ক্যালিস-কেকেআরের ৯ বছরের সম্পর্ক বিচ্ছেদ