SCORE

সর্বশেষ

ক্রিকেটারদের কাছে এতটাই গুরুত্ববহ ঘরোয়া ক্রিকেট!

পর্যটন এলাকা হিসেবে সিলেটের রয়েছে বিশেষ খ্যাতি। যান্ত্রিক কিংবা কর্মব্যস্ত জীবনে হাঁপিয়ে উঠলেই দেশের মানুষ ছুটে যান প্রকৃতির অপরূপ লীলাভূমি সিলেটে। সেই সিলেটেই ছিল বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার মধ্যকার মাসব্যাপী দ্বিপাক্ষিক লড়াইয়ের শেষ ম্যাচ, অর্থাৎ দুই ম্যাচ সিরিজের শেষ টি-২০।

হারের কারণ ব্যাখ্যা রিয়াদের

ঐ ম্যাচে অবশ্য শ্রীলঙ্কার কাছে হেরে যায় বাংলাদেশ। ব্যর্থতার বৃত্তে বন্দী থাকা বাংলাদেশের জন্য হারটি ছিল কষ্টের। এমন পরিস্থিতিতে সিলেটের মতো নৈসর্গিক এলাকায় কিছুটা শান্তি খুঁজে পেতে পারতেন ক্রিকেটাররা। তবে সেটি দূরে থাক, টি-২০ স্কোয়াডের বেশ কয়েকজন ক্রিকেটার যে সিলেট ছেড়েছেন ম্যাচ শেষ হওয়ার ঘণ্টাখানেকের মধ্যেই!

Also Read - খেলাঘরকে বড় ব্যবধানে হারাল শাইনপুকুর

তাড়াহুড়া করে ক্রিকেটারদের সিলেট ছাড়ার কারণ শুনলে ভ্রূ কুঁচকাতে পারেন পাঠকরা। চলমান ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে কোনো না কোনো দলে আছেন টি-২০ স্কোয়াডের ক্রিকেটাররা। জাতীয় দলে ডাক পাওয়া তরুণ ক্রিকেটাররা দলের সাথে যোগ দিতে গিয়ে খেলতে পারছিলেন না ডিপিএলে। ঘরোয়া ক্রিকেটে আবার তাদের চাহিদাই বেশি। সেই চাহিদা পূরণেই হয়ত, সিরিজের দ্বিতীয় টি-২০ শেষ হওয়ার সাথে সাথে ট্রেনযোগে ঢাকার পথে রওয়ানা হন ডিপিএলে অগ্রণী ব্যাংকের ক্রিকেটার সৌম্য সরকার, প্রাইম ব্যাংকের ক্রিকেটার আরিফুল হক, জাকির হাসান, শেখ জামালের আবু জায়েদ রাহী এবং শাইনপুকুরের সাইফউদ্দিন এবং আফিফ হোসেন।

জাতীয় দলের ম্যাচ শেষ করেই ঘরোয়া আসরের ম্যাচের জন্য এমন তাড়াহুড়া করা কতটা উচিত হয়েছে, স্বভাবতই উঠছে সেই প্রশ্ন। ম্যাচের পাশাপাশি হারের ক্লান্তি নিয়ে ক্রিকেটাররা পরদিনই ডিপিএলের ম্যাচ খেলার জন্য ফিট ছিলেন কি না, সেই প্রশ্নও উঠছে। অবশ্য এই ক্রিকেটারদের কেউই ডিপিএলের সোমবারের খেলায় আহামরি ভালো করতে পারেননি। তাদের হুট করে ঢাকা চলে আসার পেছনে আঙুল তুলে ধরার যথেষ্ট কারণও তাই পাচ্ছেন সমালোচকরা।

অবশ্য ক্রিকেটারদের এমন কাণ্ডকে ‘কাজ’-এর আওতায় ফেলে তাদের পক্ষেই ব্যাট চালালেন বিসিবি ডিসিপ্লিনারি কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান শেখ সোহেল। বিবিসি বাংলাকে তিনি বলেন, ‘এটা সম্পূর্ণ পেশাদারি ব্যাপার। আজ যদি চাকরি করার জন্য কাউকে বলা হয় যে চট্টগ্রাম যেতে তবে এখনই যেতে হবে। আজ যদি আপনার শরীর খারাপ করে তবুও কিন্তু আপনাকে অফিস করতেই হবে। দেশের হয়ে খেলার পরপরই ক্লাব ক্রিকেটে অংশ নেয়া শৃঙ্খলা পরিপন্থী কাজ নয়। তারা সবাই বেতন-ভুক্ত ক্রিকেটার। বেতন না পেলে অন্যান্য বিষয়গুলো সামনে আসতো।’

আরও পড়ুনঃ জিয়াউর রহমানের ব্যাটে ভর করে জিতল শেখ জামাল

Related Articles

আরিফুলের ব্যাটে তাকিয়ে স্বাগতিকরা

জাকির-আফিফকে বাদ দেওয়ার কারণ ব্যাখ্যা

ধারাবাহিক ভালো করার ফলাফল পেয়েছেন আফিফ

টি-টোয়েন্টি স্কোয়াডে একাধিক চমক রাখার ব্যাখ্যা

ফিরলেন সাকিব-সৌম্য, দলে পাঁচ নতুন মুখ