Scores

ক্রিকেটীয় দর্শনেই করোনা প্রতিরোধের পরামর্শ সাকিবের

মহামারী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধের মূল উপায় সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা। তবে বাংলাদেশের মত দেশে সামাজিক দূরত্ব সুষ্ঠুভাবে বজায় রাখা কঠিন হয়ে দাঁড়িয়েছে। দেশের বিপুল সংখ্যক নিম্ন আয়ের মানুষ পেটের দায়ে কর্মের খোঁজে বের হচ্ছেন, করোনার দুর্যোগে যারা রীতিমত দিশেহারা। করোনা প্রতিরোধ করতে হলে তাই তাদের খাদ্যের নিশ্চয়তা অত্যন্ত জরুরী।

সর্বকালের সেরা টি-টোয়েন্টি একাদশে সাকিব

নজিরবিহীন দুর্যোগে দরিদ্রদের দুর্ভোগ লাঘবে অবশ্য সামর্থ্যবানদের চেষ্টার কমতি নেই। জাতীয় দলের তারকা ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান দ্য সাকিব আল হাসান ফাউন্ডেশন এর মাধ্যমে নিম্ন আয়ের মানুষের সহায়তার জন্য তহবিল গঠন করেছেন। এছাড়া করোনা মোকাবেলায় যারা সামনে থেকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন, তাদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে বিভিন্ন উপকরণ জোগাড় করে দেওয়ার বিষয়েও রেখেছেন মনোযোগ।

Also Read - করোনায় কপাল পুড়ছে ভেট্টোরির!







করোনাভাইরাসে নিজের ফাউন্ডেশনের কার্যক্রম সম্পর্কে আলাপকালে সাকিব বলেন, ‘যাদের সামর্থ্য আছে, তারা তাদের জায়গা থেকে যেন অসহায় মানুষদের সাহায্য করেন। সেটা যেকোনো ধরনের ফান্ড হতে পারে; কারও যাকাতের টাকা, কারও জমানো টাকা, কারও ছুটি কাটানোর জন্য রাখা টাকা। তাছাড়া সামনে থেকে লড়াই করছেন যারা, তাদের জন্য যদি আমরা প্রয়োজনীয় উপকরণ কিনে দিতে পারি আপনাদের অনুদানের মাধ্যমে; তাহলে এই যুদ্ধে জয়ী হলে আমরা সন্তুষ্টি অনুভব করবো- আমি এই যুদ্ধে কিছু অবদান রাখতে পেরেছি। তাই মানবিক জায়গা থেকে সামর্থ্য অনুযায়ী চেষ্টা করা উচিৎ।’

সহযোগিতার মনোভাবই সাকিব বড় করে দেখছেন, তার কাছে মুখ্য নয় সহযোগিতার আর্থিক পরিমাপ। তিনি বলেন, ‘সহায়তা ১ টাকা, ১০ টাকা, ১ হাজার টাকা, ৫ হাজার টাকা, ১ লাখ টাকা- যেকোনো পরিমাণ হতে পারে। আমাদের ফাউন্ডেশনেই দিতে হবে এমন নয়। যাদের প্রয়োজন তাদের হাতেই পৌছাতে হবে।’





সবার ছোট ছোট চেষ্টাই কীভাবে বড় আকার ধারণ করতে পারে, সাকিব সেই উদাহরণ দিয়েছেন ক্রিকেট দিয়েই। তিনি জানান-

‘১১ জন যদি ২০ রান করেও করে তাহলেও ২২০ হয়। কিন্তু কেউ ৭০ রান করল আর বাকি তেমন কেউ রান করল না, তাহলে মোট সংগ্রহ একশতে আটকে যায়।’

তিনি আরও বলেন, ‘অনেক বিদেশি ক্রিকেটার খেলার উপকরণ নিলামে তুলছেন। আমরা এরকম কিছুও চাইলে করতে পারি।’

সাকিব বলেন, ‘সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টা আমাদের করোনাভাইরাস থেকে মুক্তি দিতে পারে। অনেকেই বলছেন- কেন মানুষ বাইরে যাচ্ছে, কী কারণে বাইরে যাচ্ছে। কিছু মানুষ প্রয়োজন ছাড়াই বের হচ্ছে। কিন্তু অনেকেই পেটের দায়ে বের হচ্ছে। আমরা অনেকেই যাকাত দেই। সেটা উল্লেখ করে কেউ দিলে সেই টাকা দিয়ে আমরা গরীব মানুষদের খাবার উপহার দিতে পারব যা এই বিপদে অনেক সাহায্য করবে।’

নিজের ফাউন্ডেশনের যাত্রা শুরুর বিষয়েও ফেসবুক লাইভে আলাপ করেন সাকিব। জনপ্রিয় এই ক্রীড়াবিদ জানান, খেলাধুলায় অবদান রাখার মাধ্যমেই ফাউন্ডেশন শুরুর পরিকল্পনা ছিল তার। তবে করোনাভাইরাসের কারণে দুস্থদের সহায়তার মাধ্যমেই ফাউন্ডেশনের কার্যক্রম শুরু করেছেন।

সাকিব বলেন, ‘প্রথমে খেলাধুলা সম্পর্কিত ভাবনা ছিল। পরবর্তীতে শিক্ষা ও স্বাস্থ্য নিয়ে কাজ করার ইচ্ছা ছিল। আরও কিছুদিন পর যাত্রা শুরু করতে চেয়েছিলাম। মহামারীর পরিস্থিতির কারণে সবকিছু বদলে যায়। তখন ভাবলাম- ফাউন্ডেশন থেকে কোনো সাহায্য করার এখনই সময়। ওখান থেকেই শুরু।’

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

Related Articles

দুজনের বর্ডার-লাইন ‘নেগেটিভ’; আইসোলেশনে ‘১০’ ক্রিকেটার

ক’রোনামুক্ত জাতীয় দলের স্কিল ক্যাম্পের সব ক্রিকেটার

ক’রোনা পরীক্ষায় ‘নেগেটিভ’ সাইফ, চতুর্থ পরীক্ষা মঙ্গলবার

যেভাবে সাজানো হল বিসিবির ‘বায়ো-সেফটি বাবল’

দ্বিতীয় দফা ক’রোনা পরীক্ষায় নেগেটিভ ‘১৮’ ক্রিকেটার