Scores

ক্রিকেটের কসম কেটে নিজেকে নির্দোষ দাবি সাব্বিরের

অতীতে বারবার বিতর্কের জন্ম দেওয়া ক্রিকেটার সাব্বির রহমান আবারো নতুন করে নেতিবাচক খবরের আলোচনায়। এবার তার বিরুদ্ধে অভিযোগ- রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের এক পরিচ্ছন্নতাকর্মীর গায়ে হাত তুলেছেন। রাতভর এ নিয়ে বিস্তর আলোচনা-সমালোচনার পর বিডিক্রিকটাইমের সাথে আলাপকালে নিজেকে নির্দোষ দাবি করেছেন জাতীয় দলের এই ক্রিকেটার।

আমি খুবই ভীতু সাব্বির

‘ক্রিকেট আমার ভালোবাসা, আমার জান। আমি ক্রিকেটের কসম কেটে বলছি, তার গায়ে আমি হাতই দেইনি’– এমন দাবি খোদ সাব্বিরের। স্ত্রীকে নিয়ে বাসায় প্রবেশের সময় প্রবেশমুখে পরিচ্ছন্নতাকর্মীর বাহন দেখতে পান সাব্বির। সেই বাহন সরানোর অনুরোধ করলে পরিচ্ছন্নতাকর্মীই উল্টো তার উপর ক্ষেপে যান বলে দাবি এই ব্যাটসম্যানের।

Also Read - হাথুরুর কোচিংয়ে কেন অসন্তোষ, ব্যাখ্যা দিলেন মোসাদ্দেক






সাব্বির বলেন, ‘অতীত অতীতই। অতীত থেকে আমি অনেক শিক্ষা গ্রহণ করেছি। এখন যে কথা রটেছে- এরকম কিছুই আসলে হয়নি। একটা মানুষকে মারা এত সহজ না।’

পুরো ঘটনার বর্ণনা দিয়ে সাব্বির বলেন, ‘আমি বাড়ির সামনে একটি ময়লার গাড়ি ছিল। স্ত্রীকে নিয়ে আমি বাড়ি আসছিলাম। আমি বললাম- ভাই, এই যে রাস্তার মাঝখানে গাড়ি রেখেছেন, কেউ তো আসতে-যেতে পারবে না। কোনো রোগী এখন যদি যেতে চায়, আপনি যে গাড়ি এভাবে রেখে গল্প করছেন। এভাবে না রেখে একটু পাশে নিয়ে রাখুন? এই কথা বলেছি শুধু। আমি হর্ণ দিতেই উনি এমন প্রতিক্রিয়া করল যেন আমি খুব ভুল কাজ করে ফেলেছি। চোখ রাঙাচ্ছে, বিড়বিড় করে কী বলেই যাচ্ছে।’






এতে একটু ক্ষেপে যান সাব্বির। তবে গায়ে হাত তোলার মত কোনো ঘটনাই ঘটেনি বলে দাবি তার।

তিনি জানান, ‘আমার কাছে খুব অদ্ভুত লাগল। বললাম- ভাই, কিছু বলছেন নাকি? এভাবে কথা বলছেন কেন? আমি তো খারাপ কিছু বলিনি। আমাকে বলে- আমি আমার মত কাজ করছি, আপনি বলার কে, হর্ণ দিচ্ছেন কেন আপনি। এইটুকই তর্কাতর্কি হয়েছে, আর কিছুই না।’

সাব্বিরের ভাষ্যমতে, পরিচ্ছন্নতাকর্মী বিষয়টিকে অতিরঞ্জিত করে তোলেন। সাব্বির বিডিক্রিকটাইমকে বলেন, ‘রাস্তায় একজন মানুষকে চাইলেই তো মারা যায় না। ত্রাণ দেওয়ার সময় তাকে ডেকে ডেকে ত্রাণ দেই, যাকাতের টাকা দিই, করোনার টাকা দিই, তাকে কেন আমি মারবো? আমিও তো একজন মানুষ। সবসময় আমিও শিরোনামের শীর্ষে থাকব, এটা তো হওয়া উচিৎ না। একটা ছোট বিষয়কে বড় করে, তিলকে তাল করে… এক হাতে তো তালি বাজে না। সেই লোক আধাঘণ্টা পর এসে আমাকে আমার বাবা-মা, আমাকে মারার হুমকি দেয়। আমি তো দেশের জন্য খেলেছি, দেশকে প্রতিনিধিত্ব করেছি। এটা যদি আমার প্রাপ্য হয়ে থাকে, দেশের জন্য খেলে তো লাভ নেই আমার।’

গণমাধ্যমে সাব্বিরের ঘটনা ছড়িয়ে পড়ে দ্রুতই, তবে ভুলভাবে- অন্তত এমনই দাবি তার। তার বক্তব্য না নিয়ে খবর প্রচার করায় হতাশাও প্রকাশ করেছেন।

সাব্বিরের ভাষ্য, ‘আমার নম্বরে অন্তত ফোন দেওয়া উচিৎ ছিল, বা আমার কাছ থেকে জানা উচিৎ ছিল। আমার সাথে আমার স্ত্রী ছিল, ড্রাইভার ছিল- ওরা তো মিথ্যে বলবে না। আমি নামাজ-কালাম পড়ি, আল্লাহর ঘর ছুঁয়ে এসেছি- আমিও তো মিথ্যা বলব না।’

বিডিক্রিকটাইমকে দেওয়া সাব্বিরের সাক্ষাৎকার দেখুন-

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

৪৫ ক্রিকেটারকে নিয়ে অনূর্ধ্ব-১৯ দলের ক্যাম্প

রফিককে ভারতে থেকে যেতে বলেছিলেন সৌরভ

‘৫০ হাজার টাকায় তো আমার পোষাবে না’, সুজনের দাবি প্রসঙ্গে রফিক

সাকিবই বিশ্বের এক নম্বর স্পিনার : রফিক

সিরিজ সেরার পুরস্কার সবাইকে ভাগ করে দিতেন রফিক