খাবার আনতে বাইরে গিয়েছিলেন, দাবি বহিষ্কৃত লঙ্কানদের

জৈব সুরক্ষা বলয় ভেঙে বাইরে যাওয়ার অপরাধে বহিষ্কৃত তিন শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটার দাবি করেছেন, খাবারের পার্সেল আনতে তারা বাইরে গিয়েছিলেন। একইসাথে বার বা নাইট ক্লাবে যাওয়ার কথা অস্বীকার করেছেন তারা। 

বায়োবাবল ভাঙায় '৩' ক্রিকেটারকে বহিস্কার করল শ্রীলঙ্কা
জৈব সুরক্ষা বলয় ভেঙে বাইরে ঘুরাঘুরি করছিলেন তারা। ছবি : টুইটার

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজে ভরাডুবির পর গোটা শ্রীলঙ্কা দল যখন সমালোচিত হচ্ছিল, তখন বলয় ভেঙে বেরিয়ে নতুন বিতর্কের জন্ম দেন কুশল মেন্ডিস, দানুশকা গুনাথিলাকা ও নিরোশান ডিকওয়েলা। তাৎক্ষণিকভাবে তাদের দল থেকে বহিস্কার করা হয়।

Advertisment

তিন ক্রিকেটারের বিরুদ্ধে বড় শাস্তির ব্যবস্থা করতে চলেছে বোর্ড। তাদের বর্তমান নিষেধাজ্ঞা সাময়িক হলেও তিনজনই বিভিন্ন মেয়াদে নিষেধাজ্ঞা পেতে পারেন। তবে দেশে ফিরে তিন ক্রিকেটারই নিজেদের পক্ষে সাফাই গেয়েছেন।

ভাইরাল হওয়া একটি ভিডিওতে দেখা যায়, কুশল মেন্ডিস ও নিরোশান ডিকওয়েলা ডারহামের বাজারে ঘুরাঘুরি করছেন এবং মেন্ডিস ধূমপানের পায়তারা করছেন। হোটেলের কড়াকড়ি ও বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে কীভাবে তারা বাইরে এলেন এই প্রশ্নে ভিডিওটি দ্রুতই ছড়িয়ে পড়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলোতে। পরে জানা যায়, তাদের সাথে ছিলেন গুনাথিলাকাও।

কলম্বো থেকে সূত্র জানায়, ‘তারা দাবি করেছেন, কাছাকাছি দূরত্বের কোনো এক জায়গা থেকে খাবার (চিকেন লাম্ব) আনতে বের হয়েছিলেন এবং হেঁটে হেঁটে গিয়েছেন। তাদের বলা হয়েছিল, শহরের কেন্দ্রে যেন না যান। অথচ তাদের সেখানেই পায়চারি করতে দেখা গেছে।’

মেন্ডিসের ধূমপানের প্রচেষ্টা দেখে সমর্থকদের একাংশ ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন। তবে সূত্রের দাবি, তিনি পারতপক্ষে ধূমপান করেন না। তারা সেই রাতে কোনো নাইট ক্লাব বা বারে যাননি বলেও বক্তব্য দিয়েছেন।

দলছুট হওয়ার পর মঙ্গলবার (২৯ জুন) দেশে ফিরে কোয়ারেন্টিন শুরু করেছেন তিন ক্রিকেটার। তাদের বিরুদ্ধে এখনও কোনো শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়নি শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট (এসএলসি)। তবে নিয়ম ভঙ্গ ও দলের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ করার অপরাধে কিছু ম্যাচের বা কয়েক মাসের নিষেধাজ্ঞা পেতে পারেন মেন্ডিস, ডিকওয়েলা ও গুনাথিলাকা।