Scores

খুলনার ঘুরে দাঁড়ানো নাকি তামিমদের পথে ফিরা ?

বিপিএল এর ৪র্থ আসরে এখন পর্যন্ত সব দলের ২টি করে খেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে, রংপুর রাইডার্স ২ ম্যাচ জিতে ৪ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে অবস্থান করছে। আজকের খেলায় মুখোমুখি হচ্ছে চিটাগং ভাইকিংস এবং খুলনা টাইটানস।

উচ্ছ্বাসিত এনামুল হক তাসকিন আহমেদের সাথে আনন্দ ভাগাভাগি করে নিচ্ছেন।
উচ্ছ্বাসিত এনামুল হক তাসকিন আহমেদের সাথে আনন্দ ভাগাভাগি করে নিচ্ছেন।

চিটাগং উদবোধনী ম্যাচে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন কুমিল্লা কে ২৯ রানে হারিয়ে ভালো সূচনা করেছিলো, অধিনায়ক তামিম সেই ম্যাচে অর্ধ শতক করেন, পাকিস্তানি রিক্রুট শোয়েব মালিক করেন ৪২ রান, ৪ উইকেট নিয়ে আফগান ক্রিকেটার নবী ম্যান অফ দ্যা ম্যাচ হন, ২য় ম্যাচে ভাইকিংস হেরে যায় রংপুর রাইডার্স-এর কাছে। ২য় ম্যাচে চিটাগং ১২৪ রান করে, রংপুর সহজেই সেই রান তাড়া করে জিতে নেয় ম্যাচ।

চিটাগং দলের মূল শক্তি ব্যাটিং অর্ডারে তামিম, বিজয়, শোয়েব মালিক, মিলনদের টি-২০ ক্রিকেটে ঝড় তোলায় সক্ষম ব্যাটসম্যান থাকা। নবি, জহুরুল ইসলামও ব্যাট হাতে বেশ কার্যকর, কিন্তু, সময়মত জ্বলে উঠতে না পারায় এক ম্যাচ জিতেই সন্তুষ্ট থাকতে হচ্ছে দেশের বাণিজ্যিক নগরীর এই ফ্রাঞ্চাইজিকে। বোলিং বিভাগে ২ ম্যাচ মিলিয়ে অভিজ্ঞ আব্দুর রাজ্জাক বেশ ধারাবাহিক ভালো করেছেন। তাসকিন ২য় ম্যাচে সুবিধা করতে না পারলেও গতির ঝড় তুলে খুলনাকে বিধ্বস্ত করার সামর্থ্য তার আছে।

Also Read - ফ্রেমবন্দী মুহূর্তগুলোঃ বিপিএল ৪, ম্যাচ-৭, ঢাকা ডায়নামাইটস বনাম রাজশাহী কিংস


খুলনার বিপক্ষে জিততে হলে চিটাগং-এর ব্যাটসম্যানদের দায়িত্বশীল ব্যাটিং করা ছাড়া বিকল্প নেই। তামিম শুরুর গতিটা ধরে রাখতে চাইবেন, বিজয় ২০১৫ বিশ্বকাপে ইঞ্জুরির কারণে বাদ পড়ে আর বাংলাদেশ দলে ফিরতে পারেননি। এই বিপিএল তার জন্যেও সুবর্ণ সুযোগ। অভিজ্ঞ শোয়েব মালিক, হার্ড হিটার মিলন-সবাই মিলে খুলনার বোলিং শক্তির ভালো পরীক্ষা নেবেন মিরপুরে।

১ম ম্যাচে যাদুর ভেল্কি দেখিয়ে ম্যাচ জিতে নিয়েছিলো খুলনা, অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের ক্ষুরধার ক্রিকেট মস্তিষ্কের এক অনুপম প্রদর্শনী ছিলো সেই ম্যাচ। লো স্কোরিং ম্যাচ জিতে নিতে বোলারদের বিশেষ কিছু করে দেখাতে হয়। খুলনা সেদিন বোলিংয়ে অনন্য সাধারণ পারফরম্যান্স দেখিয়েছে।

রাজশাহী কিংসের বিপক্ষে গুরুত্বপূর্ণ ৪ উইকেট নেন জুনায়েদ খান।
রাজশাহী কিংসের বিপক্ষে গুরুত্বপূর্ণ ৪ উইকেট নেন জুনায়েদ খান।

পাকিস্তানি সীমার জুনায়েদ ৪ উইকেট নিয়েছেন, আর শেষ ওভারে স্নায়ুক্ষয়ী যুদ্ধে বিজয়ের হাসি হেসেছে খুলনা, বোলার রিয়াদের সৌজন্যে। খুলনা দলে ব্যাটিং-এর গভীরতা অপেক্ষাকৃত দূর্বল। রিয়াদ আর ওয়েসেলস ৩২ রান করে করেছিলেন ১ম ম্যাচে। ২য় ম্যাচে রংপুরের বিপক্ষে ৪৪ রানে অল আউট হয়ে যায় রানা-সেতুর স্মৃতিবাহী এই দলটি।

ব্যাটিং তাই খুলনার এক মহা দুশ্চিন্তার কারণ। আব্দুল মজিদ, শুভাগত, অলক কাপালি, বিদেশি রিক্রুট পুরান- এদের ব্যাট হাতে পারফর্ম করার ওপর নির্ভর করছে চিটাগং-এর মতো শক্তিশালী ব্যাটিং লাইন আপের বিপক্ষে কেমন রান জমা করতে পারে খুলনা।

একটা দিকে দুই দলের মধ্যেই মিল রয়েছে, দুই দলই হেরেছে রংপুর রাইডার্সের কাছে। এবং, দুই দলই হারার প্রধান কারণ ব্যাটিং পারফরম্যান্স প্রত্যাশিতভাবে ভালো করতে ব্যর্থ হওয়া। মিরপুরের উইকেট এখন বেশ ধীর হয়ে যাচ্ছে, বল ব্যাটে আসছে ধীরে ধীরে, ব্যাটিংয়ে তাই অখণ্ড মনোযোগ খুব জরুরী হয়ে পড়েছে, টি-২০ ধুম-ধাড়াক্কা ব্র্যাণ্ডের ক্রিকেট হলেও কখনো কখনো হিসেবি ব্যাটিং পার্থক্য গড়ে দেয়। এই ম্যাচে তাই খুব বড়ো স্কোরের সম্ভাবনা কম। ম্যাচ জমবে স্পিন আর পরিস্থিতির দাবি মিটিয়ে ব্যাট করতে পারারদের দিকেই।

সম্ভাব্য একাদশ-

খুলনা টাইটান্সঃ আবদুল মজিদ, নিকোলাস পুরান, ওয়েসেলস, আরিফুল হক, মাহমুদউল্লাহ ©, অলক কাপালি, মোশাররফ হোসেন, শুভাগত হোম, মোহাম্মদ আসগর, জুনায়েদ খান এবং শফিউল ইসলামন।

চিটাগং ভাইকিংসঃ তাসকিন , আনামুল হক (উইকেটরক্ষক), স্মিথ, তামিম ইকবাল ©, শোয়েব মালিক, আব্দুর রাজ্জাক, মিলস, মোঃ নবী, জহুরুল এবং নাজমুল মিলন।

-তানজিল আহমেদ, বিডিক্রিকটিম ডট কম

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

ওবায়দুল কাদেরকে দেখতে হাসপাতালে মাশরাফি

এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ জিতলো ভারত

মেডিকেল রিপোর্টের উপরেই নির্ভর করছে সাকিবের এনওসি

শঙ্কা কাটিয়ে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে খেলছেন মুস্তাফিজ

দুদকের শুভেচ্ছাদূত হলেন সাকিব