Scores

ক্রিকেটে ফিরলেন নাজমুল হোসেন

জাতীয় দলে খুব বেশি ম্যাচ খেলা হয়নি নাজমুল হোসেনের। তবে যেটুকু সুযোগ পেয়েছিলেন বেশ দাপটের সাথেই খেলেছিলেন। কিন্তু হঠাৎই অভিমানে ক্রিকেট ছাড়া নাজমুল আবার ফিরেছেন ক্রিকেটে। তবে এবার কোচের ভূমিকায়।

 

সতীর্থদের সাথে পেসার নাজমুল হোসেনের উইকেট উদযাপন।
সতীর্থদের সাথে পেসার নাজমুল হোসেনের উইকেট উদযাপন।

 

Also Read - ফিরবে কি ওয়েলিংটনের সুখস্মৃতি?


প্রায় ১৫ বছর আগে ২০০৪ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ওয়ানডে ম্যাচ দিয়ে জাতীয় দলে অভিষেক হয় তার। একই বছর ভারতের বিপক্ষে টেস্ট অভিষেক। তবে ইনজুরি আর টিম কম্বিনেশনের কারণে টেস্ট ক্যারিয়ার স্থায়ী না হলেও নাজমুল খেলে যাচ্ছিলেন ওয়ানডে।

সর্বশেষ ওয়ানডে খেলেছেন ২০১২ সালে বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত এশিয়া কাপে। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দারুণ বোলিং করে যখন দলে জায়গাটা শক্ত করছিলেন তখনই আবার ঝড়ো হাওয়া লাগে। ইনজুরির কারণে জাতীয় দল থেকে ছিটকে পড়ে আর ফেরা হয়নি তার।

এরপরে ঘরোয়া ক্রিকেটের দলেও ব্রাত্য হয়ে পড়েছিলেন। তাই অনেকটা রাগে বা অভিমানেই ২৮ বছর বয়সে ছেড়ে দিয়েছিলেন ক্রিকেট। নীরবেই সরে গিয়েছিলেন ক্রিকেট থেকে দূরে। সেই সাথে বাংলাদেশ ছেড়েও পাড়ি জমিয়েছেন বিদেশে। তবে আবার দেশে ফিরে এসেছেন ক্রিকেটের টানে।

বিসিবির ডাকে অনূর্ধ্ব-১৮ ক্রিকেট দলের বোলিং পরামর্শকের দায়িত্ব নিতে দেশে ফিরে এসেছেন ৩১ বছর বয়সী এই মিডিয়াম পেসার। ডিবিসি নিউজে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন দেশের ক্রিকেটের পাইপলাইনে থাকা ক্রিকেটারদের কিছু দিতে পারলে তার নিজেরও ভালো লাগবে। খেলোয়াড় হিসেবে দেশকে প্রতিনিধিত্ব করার পরে কোচ হয়ে ভালো কিছু দেয়াটাও সম্মানের।

নাজমুল হোসেনের ভাষায়, ‘ব্যবসা বাণিজ্যসহ অনেক কাজই করা যায় কিন্তু গত ২০ বছরে ক্রিকেট রক্তে মিশে গেছে। এটা থেকে নিজেকে সরানো খুব কঠিন। এটা খুব ভালো হবে যে আমি আমার অভিজ্ঞতাগুলো ছোট ভাইদের সাথে শেয়ার করবো।’

নাজমুল হোসেন তার আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে ২টি টেস্টে ৫ উইকেট এবং ৩৮টি ওয়ানডে ম্যাচে নিয়েছেন ৪৪ উইকেট। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে খেলেছেন ৫২টি ম্যাচ। উইকেট শিকার করেছেন ৯৬টি।

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

সিনিয়রদের নিয়ে ‘কালচারের’ পরিবর্তন চান নাজমুল

মাত্র একত্রিশেই অবসর নিলেন নাজমুল