Scores

গেইল তান্ডবে বড় জয় পেল জ্যামাইকা

ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগের সপ্তম ম্যাচে ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্সকে ৭ উইকেটে হারিয়েছে জ্যামাইকা তালাওয়াহস। ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্সের নির্ধারিত ২০ ওভারে ছুড়ে দেওয়া ১৯২ রানের লক্ষ্যমাত্রা গেইল তান্ডবে ১০ বল হাতে রেখেই টপকে যায় জ্যামাইকা। এ জয়ের ফলে আসরে টানা দ্বিতীয় জয়ের দেখা পেল জ্যামাইকা তালাওয়াহস।

ক্রিস গেইল
ছবিঃ সংগৃহীত

ত্রিনিদাদের কুইন্স পার্ক ওভালে টস ভাগ্যে জিতে প্রথমে ব্যাট করার জন্য ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্সকে আমন্ত্রণ জানায় ক্রিজ গেইল। আমন্ত্রণে সাড়া দিয়ে ম্যাচের শুরু থেকেই দারুণ খেলতে থাকে ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্স। দলের দুই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যানের আক্রমাণাত্বক ব্যাটিংয়ে সুবিধা করতে পারেনি ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে বল করতে আসা সাকিব আল হাসান, প্রথম দুই ওভারে দিয়ে বসেন ২৬ রান।

৫.৩ ওভারে ৪৯ রান যোগ করার পর ইমাদ ওয়াশিমের বলে সরাসরি বোল্ড হয়ে মাঠ ছাড়েন মারকুটে খেলতে থাকা ব্রেন্ডন ম্যাককালাম। ৩ ছয় আর ৩ চারে্র মারে ১৮ বল মোকাবেলায় ৩৫ রান করে সাজঘরে ফিরেন তিনি। এরপর দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে আমলা ও মুনরো দৃঢ়তার পরিচয় দিয়ে দলকে এগিয়ে নিতে থাকেন শক্ত অবস্থানে। ৬৩ বল থেকে ১০৩ রানের জুটির মধ্যে অর্ধশতকের মুখ দেখেন উভয় ব্যাটসম্যান।

Also Read - ঈদের অনুষ্ঠানে একসাথে আসছেন তামিম-আয়েশা

১৬ তম ওভারের শেষ বলে ৫৫ রান করে স্টেইনের বলে সাঙ্গাকারার গ্লাভসে মুনরো তালুবন্দী হলে বিচ্ছিন্ন হয় ১০৩ রানের এ জুটি। ৫২ বল মোকাবেলায় ইনিংস সেরা ৭৪ রান করে ইনিংসের শেষ ওভারে এসে আউট হয় হাশিম আমলা। আউট হওয়ার ৬ চার ও ৩ চারে এ রান করেন তিনি। আমলা চাড়াও অধিনায়ক ব্রাভোর ১০ ও সারলেসের ৮ রানে ভর করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে ১৯১ রানের বড় পুঁজি পায় ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্স। জ্যামাইকা তালাওয়াহসের পক্ষে উইলিয়ামস, স্টেইন ও ওয়াশিম প্রত্যেকেই একটি করে উইকেট নেন।

জবাবে, ধীর গতিতে ইনিংস শুরু করে জ্যামাইকা তালাওয়াহস। পাওয়ার প্লে-তে ওয়ালটনের উইকেট হারিয়ে সংগ্রহ করে মাত্র ২৯ রান। কুমার সাঙ্গাকারা দ্বিতীয় উইকেটে ক্রিজ গেইলের সাথে জুটি বেধে রানের চাকা সচল করার আপ্রাণ চেষ্ঠা চালালেও বেশি দূর এগোতে পারেননি তিনি। সুনিল নারাইনের ঘুর্ণি জাদুতে দলীয় ৬৯ রানে ব্যক্তিগত ২০ রান করেই মাঠ ছাড়তে হয় তাকে। এরপরই ম্যাচে শুরু হয় গেইল তান্ডব। ইনিংসের শুরুর দিকে আস্তে-আস্তে সামনের দিকে এগোতে থাকলেও সাঙ্গাকারার বিদায়ের পরই খোলস ছেড়ে বেরিয়ে আসেন এই মারকুটে ব্যাটসম্যান।

নাইট রাইডার্সের বোলারদের নাকানি-চুবানি খাওয়ানোর পাশাপাশি একের পর বাউন্ডারিতে ব্যবধান কমিয়ে ম্যাচের সমীকরণ নিজেদের দিকে নিয়ে আসতে থাকেন তিনি। ইনিংসের ১৩তম ওভারে স্বদেশী সোলেমান বেনের ওভারে বিশাল চার ছয় হাঁকানোর পাশাপাশি ওভারে ৩০ রান সংগ্রহ করে দলের জয়ের ব্যবধান আরো সহজ করে দেন তিনি। গেইলের এমন তান্ডব ক্রিজের অন্য প্রান্তে থেকে উপভোগ করেই যেতে হয় আন্দ্রে রাসেলকে। ইনিংসের ১৬তম ওভারে গেইল ডেভিচেরের হাতে ধরা পড়লে শুরু হয় নাইট রাইডার্স শিবিরে উদযাপনের আনন্দ। তবে এ আনন্দ পর মুহূর্তেই পরিণত হয় বেদনায়। রনসফুডের করা সে বলটি ওভার স্টেপিং এর জন্য নো-বল ঢাকা হলে নতুন জীবন পান ক্রিস গেইল। আর তাতেই বাজিমাত। স্ট্রাইকে ফিরে পরের বলেই লং-অনের মাথার উপর দিয়ে ছয় হাঁকিয়ে পূর্ণ করেন শতক।

আন্দ্রে রাসেল ব্যক্তিগত ২৪ রানে ফিরে গেলেও, দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছিয়ে তবেই মাঠ ছাড়েন গেইল। শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থাকেন ১০৮ রানে। এই রান করতে মোকাবেলা করেন মাত্র ৫৪টি বল আর ৬ চারের পাশাপাশি হাঁকান মোট ১১টি ছয়। নাইট রাইডার্সের বোলারদের মধ্যে ব্রাভো ও নারাইন একটি করে উইকেট শিকার করেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর-
 
নাইট রাইডার্সঃ ১৯১-৪ (২০ ওভার)
আমলা ৭৪, মুনরো ৫৫; ওয়াসিম ৩-০১৮-১
 
জ্যামাইকা তালাওয়াহসঃ ১৯২-৩ (১৮.২ ওভার)
গেইল ১০৮*, রাসেল ২৪; নারাইন ৪-০-৯-১

ফলাফলঃ জ্যামাইকা তালাওয়াহস ৭ উইকেটে জয়ী।
ম্যাচসেরাঃ ক্রিস গেইল

-ইমরান হাসান, প্রতিবেদক, বিডিক্রিকটিম ডট কম

Related Articles

গেইলের অভিষেকের পর জন্ম নিয়ে অভিষেকে গেইলের উইকেট

ইউনিভার্স বসকে সম্মান কর : গেইল

গেইলের অর্জনের পালকে আরেকটি অনন্য রেকর্ড

গেইলের ঝড়ো ফিফটি, ওয়েস্ট ইন্ডিজের সিরিজ জয়

লুইস-গেইল-রাসেল তাণ্ডবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের দাপুটে জয়