গ্যাব্রিয়েল-বধের মন্ত্র আছে রোডসের কাছে

বাংলাদেশ দলের কোচ হিসেবে ইংল্যান্ডের স্টিভ রোডসের প্রথম অ্যাসাইনমেন্টই উইন্ডিজ সফর। তিনটি ভিন্ন ফরম্যাটের ভিন্ন তিন সিরিজের এই সফরে বাংলাদেশের উপর থাকবে ভালো করার চাপ। সর্বশেষ আফগানিস্তান সিরিজে অপ্রত্যাশিত ফলাফল আর ক্যারিবীয় অঞ্চলের অনভ্যস্ত পরিবেশ মিলে বাংলাদেশের কপালে এখন দুশ্চিন্তার ভাঁজ। আর নবনিযুক্ত কোচ রোডসও জানেন, সহজ হবে না আলোচিত উইন্ডিজ সফর।

অভিজ্ঞ ও ইংলিশ বলেই এগিয়ে রোডস
স্টিভ রোডস। ছবি: জনাথন ব্যারি

বুধবার সংবাদমাধ্যমের সাথে আলাপকালে রোডস বলেন, জানি ওয়েস্ট ইন্ডিজের (উইন্ডিজ) কন্ডিশন সহজ ও অনুকূল নয়লঙ্কানদের উড়িয়ে ক্যারিবীয়রা আছে আত্মবিশ্বাসের তুঙ্গেতাদের সাথে সিরিজ মোটেও সহজ হবে নাসেটা আর সবার মত আমারও জানা

তবে মাঠের লড়াই যতই কঠিন হোক, বাংলাদেশ নামবে ইতিবাচক মানসিকতা নিয়েই, তারপরও আমরা ইতিবাচক মানসিকতা নিয়েই খেলতে নামবোজেতাটাই লক্ষ্যওইযে বললাম টিমওয়ার্ক! সবাই মিলে ভালো পারফর্ম করলে জিততেও পারি

Also Read - শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত মাইক্রোবাস পেল নারী দল

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স উইন্ডিজ পেসার শ্যানন গ্যাব্রিয়েলের। আলোচিত সেন্ট লুসিয়া টেস্টে গ্যাব্রিয়েল একাই পেয়েছেন ১৩টি উইকেট। তার অনবদ্য ফর্ম ভালো করে দেখছেন বাংলাদেশের নতুন কোচও।

তবে এই গ্যাব্রিয়েলকেই কোচিং করানোর অভিজ্ঞতা আছে রোডসের। আর তিনি টাইগারদের সাথে ভাগাভাগি করবেন সেই অভিজ্ঞতাই। রোডস বলেন,

আমি ঘরে বসে খুব কাছ থেকে উইন্ডিজের সিরিজটি দেখেছিতাদের যে ফাস্ট বোলার শ্যানন গ্যাব্রিয়েল খুব ভালো করল তাকে আমি উস্টারশায়ারে কোচিং করিয়েছিউইন্ডিজের বিপক্ষে সেই অভিজ্ঞতা আমি বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের সাথে শেয়ার করবো

উইন্ডিজ সফর শুরু হবে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ দিয়ে। ওয়ানডে এবং টি-২০’তে উইন্ডিজদের মোকাবেলা করা অধিকতর সহজ না হলেও নিজেদের মাটিতে সাম্প্রতিক সময়ে ফর্মের তুঙ্গে রয়েছে ক্যারিবীয়রা। আর সেজন্য বাংলাদেশকে সবচেয়ে কঠিন অবস্থায় পড়তে হবে সফরের শুরুতেই।

৪ জুলাই অ্যান্টিগায় শুরু হবে দুই দলের মধ্যকার প্রথম টেস্ট। নিজেদের সামর্থ্যের জানান দিতে এবং সাফল্যের দেখা পেতে রোডস সেই ম্যাচেই ভালো করে শুরু করতে চান। সেই প্রত্যাশায়ই হয়ত তার অনুমান, খুব একটা জটিল হবে না টেস্ট সিরিজ।

সাংবাদিকদের রোডস বলেন, ‘টেস্ট সিরিজটা খুব একটা জটিল হবে না। আমরা টেস্ট ম্যাচ জয়ের সর্বাত্মক চেষ্টাই করবো। সেজন্য আমাদের শুরুটা ভালো করতে হবে। সেটা করতে পারলেই বাকি কাজগুলো সহজ হয়ে যাবে।’

ক্রিকেটে সাফল্য পেতে হলে ভালো করার কোনো বিকল্পই নেই। আর তাই শুরু থেকেই উইন্ডিজদের চেপে ধরার প্রত্যাশা বাংলাদেশের নতুন কোচের, ‘আপনারা নিশ্চয়ই জানেন ক্রি‌কে‌ট কোন মহাকাশ বিজ্ঞান নয়। এখানে আপনাকে মাঠের খেলাটা ভালো খেলতে হবে এবং প্রতিপক্ষের ওপর প্রভাব বিস্তার করতে হবে। আমরা চেষ্টা করবো যেন তারা ম্যাচেই ফিরতে না পারে।’

দলের দায়িত্ব নিয়ে রোডস আনুষ্ঠানিকভাবে টাইগারদের সাথে কাজ করা শুরু করেছেন বুধবার থেকে। উইন্ডিজ সফরে যাওয়ার আগে তার অধীনে তিনদিন অনুশীলন করবে দল। তাতে নিজেদের ঝালাই করে নেওয়ার সুযোগ থাকছেই।

রোডস বলেন, উইন্ডিজ যাওয়ার আগে আমরা তিনদিন অনুশীলনের সুযোগ পাচ্ছি। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ওদের চলতি সিরিজটি দেখলে বুঝবেন ওখানকার উইকেট বাউন্সি যা বোলারদের জন্য সহায়ক হবে। আমার মনে হয় আমাদের সঙ্গে সিরিজেও উইকেট এমনই হবে। অতএব যে কয়টা দিন আমরা এখানে সময় পাব ওভাবেই প্রস্তুতি নিব। তাছাড়া উইন্ডিজে প্রস্তুতির উইকেটও আশা করি আমাদের এখানকার মতোই হবে।’

৫৩ বছর বয়সী রোডসের সাথে বিসিবির চুক্তি হয়েছে ২০২০ সালে অনুষ্ঠিতব্য টি-২০ বিশ্বকাপ পর্যন্ত। তাকে পছন্দ হওয়ায় বিসিবি সরে এসেছে ভিন্ন ফরম্যাটে ভিন্ন ভিন্ন প্রধান কোচ নিয়োগের ভাবনা থেকেও। বাংলাদেশের কোচ হওয়ার জন্য শোনা গিয়েছিল অনেকেরই নাম। তবে শেষপর্যন্ত চূড়ান্ত হয়েছেন রোডসই।

রোডসকে বাংলাদেশের কোচ হিসেবে বাছাই করার ক্ষেত্রে বড় মাধ্যম ছিলেন ভারতের হয়ে বিশ্বকাপ জেতা দক্ষিণ আফ্রিকা কোচ গ্যারি কারস্টেন। এখনও কোনো জাতীয় দলকে কোচিং না করালেও কোচ হিসেবে অভিজ্ঞতা খারাপ নয় রোডসের। সেই অভিজ্ঞতাই তাকে করেছে চন্ডিকা হাথুরুসিংহের উত্তরসূরি।

আরও পড়ুনঃ বাংলাদেশের কোচ হতে পেরে উচ্ছ্বসিত রোডস

Related Articles

হুট করে সরে গেলেন লুইস

‘পুঁচকে’ বাংলাদেশই আবার পিছনে ফেলতে পারে উইন্ডিজকে!

দুই ম্যাচ নিষিদ্ধ স্টুয়ার্ট ল

বাংলাদেশে ভারতের চেয়েও বেশি স্পিনের শঙ্কা হোল্ডারের

তিনদিনেই হেরে উইন্ডিজের লজ্জার রেকর্ড