Scores

ঘরের বাইরে ‘ছন্নছাড়া’ মিরাজের ঘুরে দাঁড়ানোর প্রত্যয়

বাংলাদেশ দলে সুযোগের পর থেকে ‘বোলিং অলরাউন্ডার’ হিসেবেই বিবেচিত হয়েছেন মেহেদী হাসান মিরাজ। দলের প্রয়োজনে মিরাজের স্পিনের উপরে ভরসা রেখেছেন অধিনায়ক। তবে তার আস্থা কতটুকু দিতে পেরেছেন তিনি? ঘরের মাঠে খানিক সাফল্য পেলেও বিদেশে একেবারেই ছন্নছাড়া মিরাজ।

২০১৬ সালে অভিষেকের পর ৩৮টি ওয়ানডে সাথে ২২টি টেস্ট এবং দেশের হয়ে ১৩টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলে ফেলেছেন মিরাজ। এমন সুযোগের পর অভিজ্ঞতার দিক থেকে বেশ পোক্তই বলতে হবে। অথচ দলে তার মূল যে কাজ, সেই বোলিংয়ে ঘর আর ঘরের বাইরের পারফম্যান্স দুই বিন্দুতে নিয়ে গেছে মিরাজকে।

Also Read - প্রিভিউ: ইতিহাস গড়ার লক্ষ্যে মাঠে নামছে বাংলাদেশ


সাদা পোশাকের ক্রিকেট অর্থাৎ টেস্টে মিরাজের বোলিং পরিসংখ্যান: দেশে– ১১ ম্যাচে ৬১ উইকেট, ইনিংসে ৫ উইকেট নিয়েছেন ৬ বার। ম্যাচে ১০ উইকেট ২ বার। ক্যারিয়ার সেরা ৫৮ রানে ৭ উইকেট।

দেশের বাইরে– ১১ ম্যাচে ২৯ উইকেট। ইনিংসে ৫ উইকেট ১বার। ম্যাচে ১০ উইকেট নেই। ক্যারিয়ার সেরা বোলিং ৯৫ রানে ৫ উইকেট।

ওয়ানডেতে মিরাজের বোলিং পরিসংখ্যান: দেশে– ৬ ম্যাচে ১১ উইকেট। যেখানে ২২ গড়ে ওভার প্রতি রান দিয়েছেন ৪.৩২ করে। ক্যারিয়ার সেরা ২৯ রান দিয়ে ৪ উইকেট।

দেশের বাইরে– ৩২ ম্যাচে ২৬ উইকেট। এক ইনিংসে ৫ উইকেটের স্বাদ পাননি। গড় প্রায় পঞ্চাশ ছুঁইছুঁই। ওভার প্রতি ৪.৯০ করে রান দিয়েছেন। ক্যারিয়ার সেরা ২১ রানে ২ উইকেট।

টি-টোয়েন্টিতে মিরাজের বোলিং পরিসংখ্যান: দেশে– ৩ ম্যাচে মোটে ১ উইকেট। যেখানে ৮৬ গড়ে ওভার প্রতি দিয়েছেন ১২.২৯ রান। ক্যারিয়ার সেরা ২৩ রানে ১ উইকেট।

দেশের বাইরে– ১০ ম্যাচে ৩ উইকেট। ৮১.৩৩ গড়ে ওভার প্রতি দিয়েছেন ১১.৮৬ রান। যেখানে ক্যারিয়ার সেরা ৩১ রানে ২ উইকেট।

এমন ছন্নছাড়া পরিসংখ্যানের পর খোদ নিজেকে কিভাবে মূল্যায়ন করছেন মিরাজ? জবাবে এই অলরাউন্ডার বলেন, দেশের বাইরে ভালো করতে এরই মধ্যে কাজ শুরু করে দিয়েছেন তিনি। নিজেকে গুছিয়ে নিয়ে স্পিন বোলিং কোচ ড্যানিয়েল ভেট্টোরির সঙ্গে আলাদা করে কথাও বলেছেন মিরাজ।

বুধবার গণমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে এ প্রসঙ্গে মিরাজ বলেন, ‘দেশের বাহিরে যখন যাই তখন কন্ডিশন অনেক সময় পক্ষে থাকে না। দেশের মাটিতে উইকেটে হেল্প থাকে, ওখানে থাকে না। আমি এইটা নিয়ে কাজ করছি। যে কোচ আছে সোহেল স্যার, ড্যানিয়েল ভেট্টোরির সঙ্গেও কথা বলেছি। আশা করি সামনে অবশ্যই ভালো হবে।’

‘ড্যানিয়েল ভেট্টোরির সঙ্গে ভ্যারিয়েশন নিয়ে কাজ করেছি। আসলে ও দেখেছে ঘুরিয়ে-ফিরিয়ে কিভাবে করলে ভালো হয়। সোজা করলে ভালো হয় নাকি আ্যঙ্গেল করলে ভালো হয়। আমাদের সঙ্গে ও তো বেশি দিন কাজ করেনি, কিন্তু যতদিন করেছে দেখেছে কিভাবে করলে ভালো হয়।’ সাথে যোগ করেন তিনি।

Related Articles

ম্যাকমিলানের পর আসছেন না ভেট্টোরিও

ব্যাটিং কোচের খোঁজে বিসিবি; চূড়ান্ত হয়নি ভেট্টোরির আসার দিনও

শ্রীলঙ্কা নয়, ভেট্টোরি ও ম্যাকমিলান আসবেন বাংলাদেশে

ভেট্টোরি-ম্যাকমিলানদের সাক্ষাৎ মিলবে লঙ্কায়

শ্রীলঙ্কায় কাজের পরিধি বাড়ছে ভেট্টোরির