Scores

চট্টগ্রামের পারফরম্যান্সে বিমোহিত অধিনায়ক মিঠুন

বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপে রীতিমত উড়ছে গাজী গ্রুপ চট্টগ্রাম। অধিনায়ক হিসেবে মোহাম্মদ মিঠুন স্বভাবতই ফুরফুরে মেজাজে আছেন। দুই ম্যাচেই বল হাতে প্রতিপক্ষকে গুড়িয়ে তার দল তুলে নিয়েছে ৯ উইকেটের জয়। 

শনিবার (২৮ নভেম্বর) গাজী গ্রুপ চট্টগ্রামের জয়টি এসেছে টুর্নামেন্টের সবচেয়ে খরুচে দল জেমকন খুলনার বিপক্ষে। খুলনাকে মাত্র ৮৬ রানে আটকে দিয়ে এদিনও জয় নিশ্চিতের কাজ করেন লিটন দাস। সৌম্য সরকারের সঙ্গ কাজে লাগিয়ে উদ্বোধনী জুটিতে জয়ের ভিত গড়ে দেওয়ার পর লিটন জয় নিয়ে মাঠ ছাড়েন মুমিনুল হককে সঙ্গী করে। বোলাররাও ছিলেন ফর্মের তুঙ্গে। সব মিলিয়ে যেন ঠিক আগের ম্যাচের রুপায়ন!

Also Read - অজুহাত দিতে চান না মাহমুদউল্লাহ


ম্যাচ শেষে আনুষ্ঠানিক আলাপচারিতায় স্বস্তি প্রকাশ করে মিঠুন বলেন, ‘আমরা একটি দল হিসেবে যেভাবে খেলছি তা চমৎকার। বোলারদের নিয়ে আমি খুবই খুশি। দুই ম্যাচেই মাত্র ৩ জন ব্যাটসম্যানকে ব্যাট করতে হয়েছে। ব্যাটসম্যানরা তাদের কাজ ঠিকঠাকভাবে করছে।’

লিটন, সৌম্য ও মুমিনুল ছাড়া চট্টগ্রামের কাউকে এখনো ব্যাট হাতে ক্রিজে নামতে হয়নি। এতে তাদের ব্যাটিং ছন্দে ভাটা পড়বে না তো? গর্বিত অধিনায়ক মিঠুনের জবাব, ‘অন্যদের ব্যাটিং প্রস্তুতি হচ্ছে এমন না আসলে। সবাই ভালো অবস্থায় আছে। সবাই নিজের দায়িত্ব সম্পর্কে জানে। আমি বিশ্বাস করি, সুযোগ এলে সবাই যার যার দায়িত্ব ঠিকমত পালন করবে।’

টানা দুই জয়ে পয়েন্ট টেবিলে সুবিধাজনক অবস্থানে থাকা চট্টগ্রাম দলপতি পুরো দলকেই দিচ্ছেন সাফল্যের কৃতিত্ব। তিনি বলেন, ‘আমার কাছে কোনো একক খেলোয়াড় গুরুত্বপূর্ণ নয়। দলই সবার আগে প্রাধান্য পাচ্ছে। এভাবেই দল সামলাচ্ছি। চেষ্টা করছি সব খেলোয়াড়কে কৃতিত্ব দিতে।’

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

 

Related Articles

মুস্তাফিজের কাছ থেকে অনেক কিছু শিখেছেন শরিফুল

বঙ্গবন্ধু টি-২০ কাপের ‘সেরা একাদশ’

রুদ্ধশ্বাস জয়ে বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপে চ্যাম্পিয়ন খুলনা

রিয়াদের ক্যারিয়ার সেরা ইনিংস, খুলনার লড়াকু পুঁজি

অধিনায়ক মিঠুনের ‘মাথা’র প্রশংসায় সালাহউদ্দিন