‘চাকরি বাঁচিয়ে’ মিসবাহর স্বস্তির নিঃশ্বাস

টানা ব্যর্থতায় মিসবাহ উল হকের চাকরি ছিল যায় যায় অবস্থায়। অনেক বিতর্কের মুখে হারিয়েছিলেন প্রধান নির্বাচকের পদ। প্রধান কোচের পদ থেকে তাকে সরিয়ে বিদেশি কোচ নিয়োগের কথাও ভেবেছিল পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)। তবে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে হোম সিরিজের সাফল্য এ যাত্রায় বাঁচিয়ে দিয়েছে মিসবাহর চাকরি।

Advertisment

মিসবাহ কোচ হওয়ার পর দল নিয়ে অনেক বেশি পরীক্ষানিরীক্ষা করেছেন। এতে সমর্থকরা তো বটেই, বোর্ডের একাংশও ক্ষিপ্ত ছিল। মিসবাহর সিদ্ধান্ত নিয়ে দলে দেখা দেয় তীব্র অসন্তোষ। মোহাম্মদ আমিরের মত সিনিয়র ক্রিকেটার অবসরের ঘোষণা দেন। এতকিছুর পর মিসবাহর কোচের পদ হারানোটা যেন সময়ের ব্যাপার ছিল।

তবে দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজে দক্ষিণ আফ্রিকাকে হোয়াইটওয়াশ করে আপাতত মিসবাহর চাকরি বাঁচিয়ে দিয়েছে বাবর আজমের দল। আর এই জয়ে যেন স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলছেন সাবেক পাকিস্তান অধিনায়ক। সাফল্যের জন্য তাড়াহুড়া করা যাবে না- এই মর্মে নিজের বক্তব্যও জানিয়েছেন মিসবাহ।

তিনি বলেন, ‘মনে হচ্ছে খোলা বাতাসে স্বস্তির নিঃশ্বাস নিচ্ছি। দলের আত্মবিশ্বাস তলানিতে ছিল, মানুষ ক্ষিপ্ত ছিল, তাই এই জয়টা খুব গুরুত্বপূর্ণ ছিল। এমন পরিস্থিতিও ছিল যখন মনে হয়েছে আমরা হেরে যাব। শীর্ষস্থানীয় দলের বিপক্ষে এমন জয়ের কৃতিত্ব ছেলেদের দিতেই হবে।’

মিসবাহ অবশ্য সফলতার মত দলের ব্যর্থতার দায়ও নিতে রাজি। তিনি বলেন, ‘বলছি না আমি ব্যর্থতার দায়ভার নিতে চাই না। জয়ের পর যদি আমি কৃতিত্ব পাই তাহলে অবশ্যই পরাজয়ের দায়ভারও আমাকেই নিতে হবে। অপেক্ষা করতে হবে, উত্থানপতন থাকবেই। শুধু জয় থাকবে এমন নয়, আবার শুধু পরাজয় থাকবে এমনও নয়। ফলাফল পেতে কিছু সময় লাগে। হতাশা থেকে নেওয়া সিদ্ধান্ত উপকার করবে না। পরিবর্তন ভালো, তবে তা হতে হবে উন্নতির জন্য।’