Scores

ছক্কা বৃষ্টিতে রাজস্থানের অবিশ্বাস্য জয়

ত্রয়োদশ আসরের নবম ম্যাচে এসে রানবন্যার এক ম্যাচ দেখলো আইপিএল। মায়াঙ্ক আগারওয়ালের শতকও কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবকে জয় এনে দিতে পারলো না বোলারদের ব্যর্থতায়। ব্যাটসম্যানদের দৃঢ়তায় ৪ উইকেটের জয়ে শেষ হাসি হেসেছে রাজস্থান রয়্যালস।

ছক্কা বৃষ্টিতে রাজস্থানের রোমাঞ্চকর জয়

কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের দুই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান দলের পক্ষে দুর্দান্ত শুরু করেছিলেন। ৫০ বলে ১০৬ রান করেন মায়াঙ্ক। অপরদিকে ৫০ বলে ৬৯ রান করেন লোকেশ রাহুল। তারা দুইজনে গড়েছিলেন ১৮৩ রানের জুটি।

Also Read - মায়াঙ্কের সেঞ্চুরিতে পাঞ্জাবের রান পাহাড়


এবারের আসরের দ্বিতীয় সেঞ্চুরিটি এসেছে মায়াঙ্কের ব্যাট থেকে। এটা আইপিএলে ভারতীয়দের মধ্যে দ্বিতীয় দ্রুততম শতক৷ মাত্র ৪৫ বলে তিন অঙ্ক স্পর্শ করেন তিনি। তার ইনিংসে ছিল ১০টি চার ও ৭টি ছয়। ৩৮ বলে শতক হাঁকিয়ে মায়াঙ্কের ওপরে আছেন কেবল ইউসুফ পাঠান। সবমিলিয়ে আইপিএলের দ্রুততম শতকটি হাঁকিয়েছেন ক্রিস গেইল, ৩০ বলে।

৩৫ বলে অর্ধশতক হাঁকানো রাহুল আউট হন ৬৯ রানে। শেষ দিকে ছোট ঝড় তোলেন নিকোলাস পুরান। তিনটি ছক্কা ও এক চারে করেন ২৩ রান। গ্লেন ম্যাক্সওয়েল অপরাজিত থাকেন ৯ বলে ১৩ রানে।

ব্যাটসম্যানদের দুর্দান্ত ইনিংসে রাজস্থানকে ২২৪ রানের লক্ষ্য ছুঁড়ে দেয় পাঞ্জাব।

শুরুতেই জস বাটলারকে আউট করে পাঞ্জাবের বোলিংয়ে শুভ সূচনা এনে দেন শেলডন কটরেল। তবে স্টিভ স্মিথ ও সাঞ্জু স্যামসনের জুটিতে শুরুর ধাক্কা কাটাতে সময় নেয়নি রাজস্থান। দলীয় ঠিক ১০০ রানে ৫০ করে আউট হন স্মিথ। জেমস নিশামের শতক হাঁকানোর আগে করেন ২৭ বলে ৫০ রান।

স্যামসন চালিয়ে যেতে থাকেন তার দুর্দান্ত ব্যাটিং প্রদর্শনী। তিনি যতক্ষণ ক্রিজে ছিলেন রাজস্থান জয়ের পথেই ছিল। ২৭ বলে অর্ধশতক হাঁকান তিনি। এরপরেই আরও ভয়ঙ্করী হয়ে ওঠেন। শতকের আশা দেখালেও স্যামসনকে ৮৫ রানে থামিয়ে দেন মোহাম্মদ শামি। রাহুলের তালুবন্দী হওয়ার আগে তিনি খেলেন ৪২টি বল এবং চারটি চার ও সাতটি ছক্কা হাঁকান।

স্যামসন ফেরার পরে হাত খুলে খেলতে থাকেন রাহুল তেবাটিয়া। শেলডন কটরেলের এক ওভারে পাঁচটা ছক্কা হাঁকান তেবাটিয়া। ৩০ বলে অর্ধশতক পূর্ণ করেন তিনি। তবে পরেই বলেই আউট হয়ে ফিরে যান। এদিকে আর্চার এসে প্রথম দুই বলেই ছক্কা হাঁকিয়ে ম্যাচ রাজস্থানের হাতের মুঠোই নিয়ে চলে আসেন।

শেষ ওভারে রাজস্থানের প্রয়োজন ছিল ২ রান। রাহুল পরাগ আউট হলেও টম কারান নেমেই চার হাঁকিয়ে দলের জয় নিশ্চিত করেন। আর্চার ৩ বলে ১৩ রান করে অপরাজিত থাকেন। তেবাটিয়া ৭ ছক্কায় করেন ৫৩ রান। ফলে ৪ উইকেটের শ্বাসরুদ্ধকর জয় পেয়েছে রাজস্থান।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব ২২৩/২ (২০ ওভার)
মায়াঙ্ক ১০৬, রাহুল ৬৯, পুরান ২৩*, ম্যাক্সওয়েল ১৩*;
রাজপুত ১/৩৯, কারান ১/৪৩।

রাজস্থান রয়্যালস ২২৬/৬ (১৯.৩ ওভার)
স্যামসন ৮৫, তেবাটিয়া ৫৩, স্মিথ ৫০, আর্চার ১৩*;
শামি ৩/৫৩।

ফলাফল : ৪ উইকেটে জয়ী রাজস্থান।

Related Articles

ইনিংসের শেষ বলে পাঞ্জাবের রোমাঞ্চকর জয়

এক নজরে আইপিএলের দলগুলো