Scores

ছুটির প্রস্তাব ক্রিকেটারদের, সায় নেই বিসিবির

ইংল্যান্ডে আসন্ন বিশ্বকাপ ও তার আগে আয়ারল্যান্ডের মাটিতে ত্রিদেশীয় সিরিজ মিলিয়ে প্রায় আড়াই মাসের সফর টাইগার ক্রিকেটারদের সামনে। ইতোমধ্যেই দুইটি টুর্নামেন্টের মাঝে কয়েকদিন ছুটি নিয়ে দেশের ঘুরে যাওয়ার প্রস্তাব দিয়েছেন কিছু ক্রিকেটার। তবে বিসিবি হয়তো সেই সুযোগ দেবে না।

ইতিহাসের সেরা দল নিয়ে বিশ্বকাপে যাবে বাংলাদেশ

আগামী ১লা মে আয়ারল্যান্ডে যাবে মাশরাফি বিন মুর্তজার দল। সেখানে স্বাগতিক আয়ারল্যান্ডের সাথে বাংলাদেশের আরেক প্রতিপক্ষ উইন্ডিজ। সেই সিরিজে বাংলাদেশের প্রথম ম্যাচ ৭ মে উইন্ডিজের বিপক্ষে। টুর্নামেন্টটির ফাইনাল ম্যাচ ১৭ মে। অর্থাৎ এই ফাইনাল খেললে মাশরাফি-মুশফিকরা ইংল্যান্ডে যাবে ১৮ মে।

Also Read - অভিনব পদ্ধতিতে দল ঘোষণা করলো নিউজিল্যান্ড


 

 

এরপরে আইসিসি ওয়ানডে বিশ্বকাপের জন্য ইংল্যান্ডে প্রস্তুতি নেয়া শুরুর কথা টাইগারদের। সেখানে দলটি আইসিসির অধীনে চলে যাবে ২৩ মে থেকে। বিশ্বকাপে বাংলাদেশের প্রথম ম্যাচ ২ জুন দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে। টাইগারদের গ্রুপ পর্বের ম্যাচ শেষ হবে আগামী ৫ জুলাই পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে।

বিশ্বকাপের সেমি ফাইনালে না উঠলেও ম্যাচ ও ভ্রমণ দিয়ে প্রায় ৬৬ দিন টানা খেলার মধ্যে থাকতে হবে ক্রিকেটারদের। তাই এতো বড় সফরের মাঝে অর্থাৎ আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজ খেলার পরে যে চার-পাঁচদিনের মতো সময় থাকবে হাতে সেটা দেশে কাটিয়ে যাওয়ার প্রস্তাব করেছেন কয়েকজন ক্রিকেটার।

আয়ারল্যান্ড থেকে বাংলাদেশে আসা আবার দেশ থেক ইংল্যান্ডে ফিরে যেতেই দুই-তিন সময় লেগে যাবে। এতে ভ্রমণ ক্লান্তিতে পড়ে উল্টো খেলায় নেতিবাচক প্রভাব পড়তে পারে। তাই ক্রিকেটারদের এই প্রস্তাবে সায় নেই বিসিবির। তবে এখনো চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি।

একই ফ্রেমে মুশফিক, মাহমুদুল্লাহ ও তাইজুলের পরিবার

 

বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘এটা কতটা বাস্তবসম্মত, দেখার বিষয়। যে বিরতির কথা বলা হচ্ছে, পাঁচ-ছয় দিনের মধ্যে যেতে–আসতে আবার দুই-তিন দিন নষ্ট হয়ে যাবে। এটা স্বাচ্ছন্দ্যের চেয়ে কষ্ট বেশি হয়ে যাবে কি না, সেটাও দেখার বিষয়। তিন-চার দিনের জন্য দেশে আসাটা কতটা কাজে দেবে, কতটা উদ্দেশ্য পূরণ হবে, সব দেখতে হবে।’

উল্লেখ্য গত অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ড (২০১৫) বিশ্বকাপে সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদরা পরিবার সাথে করে নিয়েই সফর করেছিলেন। ধারণা করা হচ্ছে, এবারো লম্বা সফরে পরিবার সাথে করে নিয়ে যাওয়ার অনুমতি পাবেন বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা।

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

‘আমি সর্বদা বলি, সমর্থকরা আমাদের দ্বাদশ খেলোয়াড়’

আইসিসিকে নিশামের খোঁচা

সুপার ওভারের নিয়মে পরিবর্তন আনল আইসিসি

বিশ্বকাপ-ফাইনালের বিতর্কিত নিয়ম ‘চলবে না’ বিগ ব্যাশে!

ড্রেসিংরুমের ভেতরের কথা বাইরে না যাওয়াই ভালো: মুশফিক