Score

“ছেলেরা ফিল্ডিংয়ে আরও উন্নতি করবে”

বাংলাদেশ দলের ফিল্ডিং কোচ রায়ান কুক মনে করেন, সামনের দিনগুলোতে বাংলাদেশ নিজেদের সীমাবদ্ধতা কাটিয়ে উঠে ফিল্ডিংয়ে আরও উন্নতি করবে।

“ছেলেরা ফিল্ডিংয়ে আরও উন্নতি করবে”

সোমবার (১১ নভেম্বর) কুকের সাথে সংবাদমাধ্যমের আলাপকালে উঠে আসে ঢাকা টেস্টে বাংলাদেশের মিস ফিল্ডিং ও ক্যাচ মিসের প্রসঙ্গ। এ সময় তিনি জানান, ভুল থেকে শিক্ষা নিয়ে তার শিষ্যরা আসন্ন সিরিজে ভালো করতে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ।

সিলেট টেস্টে দল হারলেও ক্যাচ মিস হয়েছে কম। ঠিক উল্টো চিত্র ঢাকায়। দ্বিতীয় টেস্টে দল জিতেছে, কিন্তু ক্যাচ মিসের মহড়া চলেছে সমানতালে। কুকের মতে, আগামী দিনগুলোতে ভালো করতে তার দল প্রস্তুত।

Also Read - ধোনির থেকে প্রত্যাশা কমানোর পরামর্শ কপিলের

তিনি বলেন, প্রথম টেস্টে আমরা ৯১ শতাংশ ক্যাচ নিয়েছিআমি মনে করি, এটা অসাধারণ ছিলদ্বিতীয় টেস্টে কঠিন কিছু সুযোগ সৃষ্টি হয়েছিল যেগুলো ছেলেরা মিস করেছেকিন্তু ছেলেরা প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হয়েছে, ফিল্ডিংয়ে তারা আরো উন্নতি করবেতারা আর ক্যাচ মিস করতে চায় না।’

পেশাদার ক্রিকেটার হিসেবে সবসময় ভালো ফিল্ডিং বা ক্যাচ ধরা যে ‘নিয়মের’ মতই, সেটি বোঝাতে কুক উদাহরণ দিয়েছেন ডাক্তারদের। তিনি বলেন, একজনকে যদি ছয় ঘন্টা মাঠে রাখা হয় এরপর ছয় ঘন্টার শেষ দিকে ক্যাচ দেওয়া হয় তবে মিস হয়ে যেতেই পারেতবে তারা পেশাদারএকজন চিকিৎসকের অস্ত্রোপচারের টেবিলে শেষ দিন যেমন থাকবেন শুরুর দিনও তেমনই থাকতে হবে।’

বাংলাদেশ দলের অন্যতম বড় সমস্যার নাম স্লিপে ফিল্ডিং। টেস্টে এই ফিল্ড পজিশনে বলের ‘আনাগোনা’ থাকে প্রচুর, তাই ফিল্ডাররাও থাকেন ব্যস্ত। যদিও স্লিপে বাংলাদেশের মিস ফিল্ডিংয়ে পরিমাণ কম নয়।

কুক বলেন, অতীতের ধারা ধরে রেখে এটা হয়দক্ষিণ আফ্রিকায় একেবারে তরুণ বয়স থেকে চার স্লিপ ও গালি দেখে অভ্যস্ত একজন ক্রিকেটারএখানে উইকেট-কন্ডিশন একটা ব্যাপারবাংলাদেশে চার স্লিপ রাখার মতো অবস্থা হয়তো নেইদুই স্লিপ নিয়ে খেলতে হয়এখানে শর্ট লেগ কিংবা সিলি পয়েন্ট বেশি ফিল্ডার থাকে।’

আরও পড়ুন: ফিল্ডারদের দৃষ্টিভঙ্গি দেখে মুগ্ধ কোচ

Related Articles

পার্থ টেস্টে থাকছেন না রোহিত-অশ্বিন, নেই পৃথ্বীও

টিভির সামনে শাস্ত্রীর অশ্লীল মন্তব্যে টুইটারে ঝড়

ভারতীয় বোলারদের নো বল ‘দেখেন না’ আম্পায়াররা!

রমিজ রাজাকে ‘উড়িয়ে মারলেন’ কেন উইলিয়ামসন

শন মার্শের লজ্জার রেকর্ড