Scores

জঙ্গী তৎপরতার অভিযোগে উসমান খাজার ভাই গ্রেফতার

বৃহস্পতিবার ভারতের বিপক্ষে প্রথম টেস্টের মাধ্যমে ইনজুরি কাটিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরতে চলেছেন অস্ট্রেলিয়ার অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান উসমান খাজা। কিন্তু খেলা নিয়ে নয়, তিনি এবার পত্রিকার শিরোমান হয়েছেন একদমই ভিন্ন ও অনাকাঙ্ক্ষিত একটি কারণে।

জঙ্গী তৎপরতার অভিযোগে উসমান খাজার ভাই গ্রেফতার
পরিবারের অন্য সদস্যদের সাথে উসমান খাজা (ডান থেকে দ্বিতীয়) ও তার ভাই আরসালান (বা থেকে দ্বিতীয়)।

গ্রেপ্তার করা হয়েছে খাজার বড় ভাই আরসালান খাজাকে। অভিযোগ খুবই গুরুতর। তিনি নাকি অস্ট্রেলিয়ার বেশ কয়েকজন শীর্ষস্থানীয় রাজনৈতিক ব্যক্তিকে হত্যার চেষ্টা করেছেন। এমনকি সেই তালিকায় রয়েছেন দেশটির সাবেক প্রধানমন্ত্রী ম্যালকম টার্নবুলও!

গত মঙ্গলবার (৪ ডিসেম্বর) সিডনির পশ্চিমে প্যারামাট্টায় গাড়ি চালানো অবস্থায় স্থানীয় সময় সকাল ৮টা ৩০ মিনিটে গ্রেফতার করা হয় ৩৯ বছর বয়সী আরসালানকে। পরে তাকে স্থানীয় পুলিশ স্টেশনে নিয়ে যাওয়া হয় এবং তার বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিকভাবে মামলা দায়ের করা হয়। স্থানীয় আদালতে তার জামিনের আবেদনও নামঞ্জুর করে দেয়া হয়।

অস্ট্রেলীয় গণমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, আরসালান খাজা উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে ফাঁসানোর চেষ্টা করে মোহাম্মদ কামের নিলার নিজামেদিন নামের (২৫) এক ছাত্রকে। একজন নারীকে ঘিরে নিজামেদিনের সঙ্গে বিবাদ ছিল তার। তাই জঙ্গিবাদের মতো সংবেদনশীল মামলায় নিজামেদিনকে ফাঁসিয়ে দেন তিনি।

Also Read - ওয়ানডে সিরিজের উইন্ডিজ দল ঘোষণা, ফিরলেন ব্রাভো


আরসালান পুলিশকে বুঝিয়েছিলেন তাঁর লঙ্কান সাবেক সহকর্মী নিজামদিন অস্ট্রেলিয়ার তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ম্যালকম টার্নবুলকে হত্যার পরিকল্পনা করেছেন। ২৫ বছর বয়সী নিজামদিনকে গত আগস্টে পুলিশ এ জন্য গ্রেপ্তার করেছিল। কারণ তাঁর নোট বইয়ে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড ঘটানোর তালিকা ছিল।

কিন্তু মাসখানেক পর পুলিশ তাঁকে ছেড়ে দিতে বাধ্য হয়। অস্ট্রেলিয়ার পুলিশ নিশ্চিত হয়েছিল, নোট বইয়ের সেই তালিকার হাতের লেখা নিজামদিনের নয়। পিএইচডি গবেষক নিজামদিন পুলিশকে জানান, কর্মক্ষেত্র নিউ সাউথ ওয়েলস বিশ্ববিদ্যালয়ে এক প্রতিদ্বন্দ্বী তাঁকে ফাঁসিয়েছেন। এরপর তদন্তের ভিত্তিতে পুলিশ অভিযোগ করে, নিজামদিনকে ‘পরিকল্পনা করে ফাঁসিয়েছেন’ আরসালান।

সংবাদমাধ্যমে ইতিমধ্যেই এ ব্যাপারে মুখ খুলেছেন পাকিস্তানী বংশোদ্ভূত ক্রিকেটার খাজা। তিনি বলেন, ‘আমি এ বিষয়ে বেশি কিছু বলব না। পুলিশই এই বিষয়টির সুরাহা করবে। বিদ্যমান প্রক্রিয়ার প্রতি শ্রদ্ধাশীল আমি, তাই এ ব্যাপারে আমার আর কোনো মন্তব্য করা উচিৎ হবে না।’

৩১ বছর বয়সী খাজা আরও বলেন, ‘আমি শুধু আপনাদেরকে অনুরোধ করব আপনারা যেন এই মুহূর্তে আমার এবং আমার পরিবারের প্রাইভেসির প্রতি যথোপযুক্ত সম্মান প্রদর্শন করেন।’ 

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

ওয়েডের ‘মাথার খুলি উড়িয়ে দিতে চেয়েছিল’ আর্চার!

একাধিক রেকর্ড দিয়ে অ্যাশেজ শেষ করলেন স্মিথ

সমতায় শেষ হলো অ্যাশেজ, ট্রফি গেল অস্ট্রেলিয়ায়

অস্ট্রেলিয়ার অধিকাংশ সমর্থকই আমাকে ঘৃণা করে: মার্শ

নেতৃত্বে ফিরবেন স্মিথ!