Scores

‘জন্মদিনে অনেক অনেক শুভেচ্ছা, বান্টু দা’

মুশফিকুর রহিম- বাংলাদেশ ক্রিকেটের অনেক ইতিহাসের স্বাক্ষী এই নামটি। দেশের ক্রিকেটের সবচেয়ে নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যানের খ্যাতি পেয়েছেন তিনি। এই মানুষটি আজ ৩৩ বছর পূর্ণ করে ৩৪ এ পা রাখলেন। তার জন্মদিনে ভক্ত অনুসারীদের থেকে শুভেচ্ছা পেয়েছেন অসংখ্য। অবশ্যই সেসব নিঃস্বার্থ ভালোবাসার কোনো তুলনা হয় না। তবে জাতীয় দলের সতীর্থদের কাছে থেকে শুভেচ্ছা অব্যশই একটু বিশেষ।

'জন্মদিনে অনেক অনেক শুভেচ্ছা, বান্টু দা'

মুশফিকের জন্মদিনে তাকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন জাতীয় দলের তার সতীর্থরা। দলের সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা কয়েকদিন আগেই তামিম ইকবালের সাথে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সরাসরি আড্ডায় এসে দলের মধ্যে মুশফিকের ডাকনাম ‘বান্টু’ প্রকাশ করেছিলেন। আজ (শনিবার) মুশফিকের জন্মদিনে সেই নামেই তাকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন মাশরাফি। এই পেসার লিখেছেন, ‘জন্মদিনে অনেক অনেক শুভেচ্ছা বান্ট দা।’

Also Read - আফগানদের উড়িয়ে দিয়েও বাদ পড়ে বাংলাদেশ


জাতীয় দলের তরুণ সদস্য মেহেদী হাসান মিরাজ ছোটবেলা থেকেই মুশফিকের ভক্ত ছিলেন। সতীর্থরা তাই মজা করে মিরাজকে ছোটা রহিম বলে ডাকেন। প্রিয় ক্রিকেটার ও সতীর্থের জন্মদিনে মিরাজ শুভেচ্ছা জানিয়ে লিখেছেন, ‘জন্মদিনে অনেক অনেক শুভেচ্ছা মুশফিকুর রহিম ভাই। জীবনে চলার পথে আপনার সঙ্গী হোক আশাবাদ।’

শুক্রবার তামিমের সাথে সরাসরি আড্ডায় এসে এক প্রকার ফেঁসে গিয়েছিলেন তাসকিন আহমেদ। মজার ছলে তামিম তাকে শর্ত দিয়ে বলেছিল মাশরাফি অথবা মুশফিক- যেকোনো একজনকে বাঁচাতে। তাসকিন বাঁচিয়ে ছিলেন মাশরাফিকে। পরের দিনই মুশফিকের জন্মদিনে শুভেচ্ছা জানাতেও ভোলেননি এই পেস বোলার।

তাসকিন লিখেছেন, ‘আমার জানা মতে একজন ক্রিকেটারের থেকেও মানুষ হিসাবে তিনি চমৎকার। জন্মদিনে শুভেচ্ছা মুশফিকুর রহিম ভাই। নিরাপদে থাকেন, সুখে থাকেন।’

জাতীয় দলের দীর্ঘদিনে সদস্য ইমরুল কায়েস লিখেন, ‘শুভ জন্মদিন মুশফিকুর রহিম মিতু। আল্লাহ তোমার ও তোমার পরিবারকে সুখে রাখুক।’

গ্লাভস জোড়া হাতে মুশফিকের উত্তরসূরী লিটন দাস লিখেছেন, ‘শুভ জন্মদিন ভাই। আপনার সাথে একইসাথে খেলতে পারাটা খুবই আনন্দের। আপনার কাছে থেকে অনেক কিছু শিখেছি, ভাইয়া।’

উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান এনামুল হক বিজয় লিখেছেন, ‘শুভ জন্মদিন, মিস্টার ডিপেন্ডেবল। আপনার সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করি। আশা করি, আপনার ব্যাট থেকে বাংলাদেশ দল আরও বড় বড় উপহার পাবে। শুভ কামনা।’

বাংলাদেশ দলের সবচেয়ে পরিশ্রমী এই ক্রিকেটারটি দলের এবং আগামীর অনেক ক্রিকেটারের কাছেই অনুসরণীয়। ক্রিকেটের ব্যাপারে কোনো কিছুতেই এক ফোঁটাও ছাড় দিতে রাজি নন মুশফিক।

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

সাকিবের স্বীকৃতিতে সতীর্থদের উচ্ছ্বাস

সবার বিরোধিতা করে তাসকিনকে দলে নিয়েছিলাম : সুজন

তাসকিনদের শৃঙ্খলা মেনে চলার আহ্বান সুজনের

বাবা দিবসে ক্রিকেটারদের আবেগঘন বার্তা

তাসকিনের বিয়েতে মাশরাফি যেভাবে ‘উকিল বাবা’