জমে উঠেছে পার্থ টেস্ট

জমে উথেছে পার্থ টেস্ট। তৃতীয় দিনশেষে লড়াই চলছে সমানে সমানে। জয়ের সম্ভাবনা রয়েছে দুই দলেরই। তৃতীয় দিনশেষে অস্ট্রেলিয়া এগিয়ে রয়েছে ১৭৫ রানে। ভারতের পেসাররাও তুলে নিয়েছে অস্ট্রেলিয়ার দ্বিতীয় ইনিংসের চার উইকেট। এর আগে ভারত বড় লিদের সম্ভাবনা জাগালেও তা হতে দেয়নি অস্ট্রেলিয়ার বোলাররা।

জমে উঠেছে পার্থ টেস্ট
শতকের পর কোহলি। ©গেটি ইমেজেস।

শতকের বেশ কাছে ছিলেন বিররাট কোহলি। তৃতীয় দিন শতকের জন্য দরকার ছিল মাত্র ১৮ রান।  ৫১ রানে অপরাজিত থাকা আজিঙ্কা রাহানেকে নিয়ে তৃতীয় দিনের শুরুটা অবশ্য ভালো হয়নি। দিনের প্রথম ওভারেই নাথান লায়নের বলে বিদায় নেন আজিঙ্কা রাহানে। ৫১ রান করে নাথান লিয়নের বলে টিম পেইনের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান আজিঙ্কা রাহানে।

Advertisment

পঞ্চম উইকেট জুটিতে হনুমা বিহারিকে সাথে নিয়ে শতক তুলে নেন বিরাট কোহলি। ক্যারিয়ারের ২৫ তম ও দেশের বাইরে ১৪ তম শতক হাঁকান কোহলি। দুর্দান্ত এক স্ট্রেইট ড্রাইভে চার হাঁকিয়ে শতক তোলার পর করেন ভিন্নধর্মী উদযাপন। ইশারায় বুঝিয়ে দেন ব্যাট দিয়ে কথা বলেন তিনি!

২২৩ রানের মাথায় জশ হ্যাজলউডের বলে হনুমা বিহারী বিদায় নিলে ভাঙে এ জুটি। ২০ রান করে ফেরত যান হনুমা বিহারি। এরপর বিরাট কোহলির সঙ্গী হন রিশাভ পান্ট। ২৮ রানের জুটি হয় ষষ্ঠ উইকেটে। ১২৩ রান করে বিদায় নেন বিরাট কোহলি। প্যাট কামিন্সের বলে ড্রাইভ করতে গিয়ে স্লিপে ক্যাচ তুলে দেন। দারুণ ক্যাচ নেন পিটার হ্যান্ডসকম। আউট হয়েছে কিনা সেটা থার্ড আম্পায়ার বারবার যাচাই করেন। শেষ পর্যন্ত সিদ্ধান্ত যায় অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে।

জমে উঠেছে পাঁচ টেস্ট
৫ উইকেট শিকার করেন লায়ন। ©গেটি ইমেজেস।

এরপর নাথান লায়নের ঘূর্ণির তোপে পড়ে গুটিয়ে যায় ভারতের লোয়ার অর্ডার। কোহলির বিদায়ের পরের ওভারে নাথান লায়ন ফিরিয়ে দেন মোহাম্মদ সামিকে।

নিজের পরের ওভারে ইশান্ত শর্মাকে ফেরান নাথান লায়ন। নিজের বলে নিজেই ক্যাচ নেন নাথান লায়ন। নবম উইকেটে রিশাভ পান্ট আর উমেশ যাদব প্রতিরোধ গড়ার চেষ্টা করেন। তাদের ২৫ রানের জুটিটাও ভাঙেন লায়ন। লায়নের বলে তুলে মারতে গিয়ে লং অনে থাকা মিশেল স্টার্কের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরেন ২ চার ও ১ ছক্কায় ৫০ বলে ৩৬ রান করা রিশাভ পান্ট।  ঐ ওভারে জাসপ্রিত বুমরাহর উইকেট তুলে নিয়ে ভারতকে অলআউট করে দেন লায়ন। পাশাপাশি পূর্ণ করেন নিজের পাঁচ উইকেট। ৩ উইকেটে ১৭২ রান থেকে দিন শুরু করা ভারত গুটিয়ে যায় ২৮৩ রান করে। বোলাররা অস্ট্রেলিয়াকে এনে দেয় ৫৩ রানের লিড।

বোলিংয়ে দ্বিতীয় ইনিংসে ভারতের শুরুটা হতে পারত দুর্দান্ত। ইশান্ত শর্মার বলে দলীয় ৮ রানের মাথায় জীবন পান মার্কুস হ্যারিস। প্রথম উইকেট ৫৯ রানের মাথায় পড়লেও অস্ট্রেলিয়া ধাক্কাটা খায় তারও আগে। দারুণ ছন্দে ছিলেন অ্যারন ফিঞ্চ। ২৯ বলে ২৫ রান করার পর মোহাম্মদ সামির একটি বল আঘাত হানে তার আঙুলে। মাঠ ছাড়তে হয় তাকে। তবে দিনশেষে এক্স-রেতে দেখা গিয়েছে শঙ্কামুক্ত আছেন তিনি। তবে ব্যাট হাতে এ ম্যাচে আর নামতে পারবেন কিনা তা নিয়ে রয়েছে অনিশ্চয়তা।

৫৯ রানের মাহায় জাসপ্রিত বুমরাহর বল ছেড়ে দিতে গিয়ে বোল্ড হন ব্যক্তিগত ১ রানে জীবন পাওয়া হ্যারিস। এরপর শন মার্শ টিকেননি বেশিক্ষণ। মোহাম্মদ সামির বলে পুল করতে গিয়ে ক্যাচ দেন উইকেটরক্ষকের কাছে। দলীয় ৮৫ রানের মাথায় পিটার হ্যান্ডসকম ফিরেন ইশান্ত শর্মার দারুণ বলে এলবিডব্লিউ হয়ে।

ট্রাভিস হেড আর উসমান খাজা মিলে যোগ করেন ৩৫ রান। ১৯ রান করে সামির বলে থার্ড ম্যানে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান ট্রাভিস হেড। অধিনায়ক টিম পেইন ও উসমান খাজা দিনের বাকি সময় বিপদ হতে দেননি। ৪ উইকেটে ১৩২ রান করে দিনশেষ করে অস্ট্রেলিয়া।

সংক্ষিপ্ত স্কোর :

অস্ট্রেলিয়া ৩২৬/১০, প্রথম ইনিংস, ১০৮.৩ ওভার
হ্যারিস ৭০, হেড ৫৮, ফিঞ্চ ৫০
ইশান্ত ৪/৪১, বিহারি ২/৫৩, বুমরাহ ২/৫৩

ভারত ২৮৩/১০, প্রথম ইনিংস, ১০৫.৫ ওভার
কোহলি ১২৩, রাহানে ৫১, পান্ট ৩৬
লায়ন ৫/৬৭, হ্যাজলউড ২/৬৬

অস্ট্রেলিয়া ১৩২/৪, দ্বিতীয় ইনিংস, ৪৮ ওভার
খাজা ৪১*, ফিঞ্চ ২৫ (রিটায়ার্ড হার্ট), হ্যারিস ২০
সামি ২/২৩, বুমরাহ ১/২৫, ইশান্ত ১/৩৩


আরো পড়ুনঃ পার্থ টেস্টে কোহলির শতকে যত রেকর্ড