Scores

জহুরুলের পর সৌম্যর অর্ধশতক

টানা ব্যর্থতার বৃত্তে ঘুরপাক খেতে থাকা সৌম্য সরকার ছন্দে ফিরেছিলেন আগের ম্যাচেই। শতক হাঁকিয়ে আবাহনীর জয়ে বড় ভূমিকা রাখেন তিনি। ডিপিএলের শেষ রাউন্ডের মহাগুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে আজও সেই ছন্দ ধরে রেখেছেন বাঁহাতি এ ওপেনার।

 

সৌম্য-জহুরুলের ব্যাটে শিরোপা জয়ের স্বপ্ন দেখছে আবাহনী।
সৌম্য-জহুরুলের ব্যাটে শিরোপা জয়ের স্বপ্ন দেখছে আবাহনী।

শেখ জামালের দেওয়া ৩১৮ রানের জবাবে ব্যাট করতে নেমে আবাহনীকে দুর্দান্ত শুরু এনে দিয়েছেন সৌম্য সরকার ও জহুরুল ইসলাম। তাদের উড়ন্ত সূচনায় শিরোপা জয়ের স্বপ্ন দেখছে মাশরাফিবাহিনী।
শিরোপা জিততে হলে শেখ জামালের বিপক্ষের আজকের ম্যাচটি জিততে হবে আবাহনীকে। এমন সমীকরণের ম্যাচে আবারও ব্যাট হাতে জ্বলে ওঠলেন সৌম্য। আগের রাউন্ডে বিকেএসপির ৪ নম্বর মাঠে হাঁকিয়েছিলেন শতক। ঐদিন যেখানে শেষ করেছিলেন আজ যেন ঠিক সেখান থেকেই তার ইনিংসের শুরু।

Also Read - সৌম্য-জহুরুলে আবাহনীর উড়ন্ত শুরু


সৌম্যর আগ্রাসী ব্যাটিংয়ের বিপরীতে যথারীতি আদর্শ সঙ্গী হিসেবে ব্যাট করছেন জহুরুলও। ডিপিএলজুড়ে ছন্দের সাথে ব্যাট করা এ ব্যাটসম্যান লিগের শেষ ম্যাচেও খেলছেন কার্যকরী ইনিংস। ৫৫ বলে আজ অর্ধশতক পূর্ণ করেছেন তিনি।
জহুরুলের অর্ধশতক পূর্ণের পর একই মাইলফলক স্পর্শ করেছেন সৌম্যও। সমান ৪ চার ও ছক্কায় ৫২ বলে মাইলফলকের দেখা পান তিনি।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ২০ ওভারের খেলা শেষে আবাহনীর সংগ্রহ বিনা উইকেটে ১২০ রান। ৫ চার ও ৩ ছক্কায় ৬৪ বল থেকে ৫৮ রান নিয়ে ব্যাট করছেন জহুরুল। আর তার সাথে ৫৯ রান নিয়ে অপরাজিত আছেন সৌম্য। ৪ চার ও ৫ ছক্কায় এ রান সংগ্রহ তার।

এর আগে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয় শেখ জামাল। আগে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা মোটেও ভালো হয়নি দলটির। মাশরাফি-মোসাদ্দেকদের বোলিং তোপে স্কোরবোর্ডে ৮৫ রান যোগ করতেই ৫ উইকেট হারিয়ে বসে নাসির-সোহানরা। ১৭ ওভারের মধ্যে এমন ব্যাটিং বিপর্যয়ে এক সময় মনে হচ্ছিল পুরো ৫০ ওভার ব্যাট করতে পারবে না দলটি।

শেষ পর্যন্ত তা হতে দেননি তানভীর হায়দার। লিস্ট ‘এ’ ক্যারিয়ারের প্রথম শতক হাঁকিয়ে এ যাত্রায় দলকে রক্ষা করেন তিনি। শুধু রক্ষাই নয় ক্যারিয়ার সেরা ১১০ বলের ১৩৬ রানের ইনিংসে রীতিমত শেখ জামালকে রান পাহাড়ে চড়ান তিনি। ১০ চার ও ৬ ছক্কায় শেষ পর্যন্ত থাকেন অপরাজিত।

তার শতকের পাশাপাশি দলকে বড় সংগ্রহ দাঁড় করাতে সাহায্য করে ইলিয়াস সানির ৪৫ ও মেহরাব হোসেনের ৪৪ রানের ইনিংস।

আবাহনীর বোলারদের মধ্যে ৫৬ রান খরচায় সর্বোচ্চ ৪টি উইকেট শিকার করেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। তাছাড়া মোসাদ্দেক, মিরাজ, সৌম্য ও সাইফউদ্দিন প্রত্যাকেই লাভ করেন একটি করে উইকেট।

প্রথমবারের মত বিডিক্রিকটাইম নিয়ে এলো অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ্লিকেশন। বাংলাদেশ এবং সকল আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের বল বাই বল লাইভ স্কোর, এবং সাম্প্রতিক নিউজ সহ সবকিছু এক মুহূর্তেই পাবেন বাংলাদেশ ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় অনলাইন পোর্টাল BDCricTime এর অ্যাপে। অ্যাপটি ডাউনলোড করতে গুগল প্লে-স্টোর থেকে সার্চ করুন BDCricTime অথবা ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

‘লোভের বশে’, ‘লুকিয়ে’ ডিপিএল খেলেছেন সাইফউদ্দিন!

সৌম্যকে যেভাবে সাহায্য করেছেন জাফর

ওয়াসিম জাফরের পরামর্শ কাজে লাগানোর প্রত্যাশা

তাণ্ডবের আগে ‘নার্ভাস’ ছিলেন সৌম্য

গর্বিত ‘অধিনায়ক মোসাদ্দেক’, কৃতিত্ব মাশরাফিকে