Scores

জাতীয় দলে ফিরলেই ফিরবে মোসাদ্দেকের সন্তুষ্টি

জাতীয় দলের অবিচ্ছেদ্য অংশে পরিণত হয়েই গিয়েছিলেন প্রায়। এমন সময় বাঁধ সাধল চোখে সংক্রমণ। বেশ ভোগান্তির পর চোখের সেই সমস্যা সেরে উঠেছে, তবে মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতের ক্যারিয়ার পড়ে গেছে কিছুটা ব্যাকফুটে। সেই মোসাদ্দেক এখন ব্যস্ত ডিপিএল নিয়ে, আর চোখ রাখছেন জাতীয় দলে।

জাতীয় দলে ফিরলেই ফিরবে মোসাদ্দেকের সন্তুষ্টি

চোখের অসুখ নিয়েই ঘরোয়া ক্রিকেটে মাঝেমাঝে খেলে গেছেন। তাতে স্বভাবতই ভালো পারফরম্যান্স প্রদর্শন করতে পারেননি। শেষমেশ রোগ পিছু ছাড়লেও এখনও ফর্ম ফেরেনি আগের মত জায়গায়। মোসাদ্দেক জানালেন, সুস্থ হওয়ার পর পূর্ণ সন্তুষ্টি পেতে তিনি তার ‘নিজের জায়গা’ জাতীয় দলে ফিরতে চান।

Also Read - বিপিএলের চোট কাটিয়ে ওয়ার্নারের রাজসিক প্রত্যাবর্তন


মোসাদ্দেক বলেন, ‘সন্তুষ্টির জায়গাটা তখনই আসবে যখন আমি জাতীয় দলে ফিরতে পারবো। আমি যেমন আশা করি তেমন পারফরম্যান্স হচ্ছে না।’

মোসাদ্দেক মনে করেন, জাতীয় দলের বাইরে থাকা ক্রিকেটাররা নিজেদের প্রমাণের জন্য ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগের ওয়ানডে সংস্করণ বড় এক মঞ্চ। আবাহনীর অধিনায়ক বলেন, ‘এই লিগটা হচ্ছে আমাদের ওয়ানডের জন্য বড় মাধ্যম। আমি মনে করি প্রমাণ করার জন্য সবচেয়ে বড় জায়গা হচ্ছে এটা।’

একইসাথে তিনি এই আসরে খুঁজে পাচ্ছেন সুস্থ প্রতিযোগিতাও। ‘এখানে আসলে কেউ বলে-কয়ে স্কোর করতে পারবে না। ঘোষণা দিয়ে কেউ পারফর্ম করতে পারবে না যে আমি ভালো খেলবো বা খারাপ।’– বলেন মোসাদ্দেক।

আসরের নতুন দলগুলোর ভালো খেলা প্রসঙ্গে তার ভাষ্য, ‘বিকেএসপি বলেন, উত্তরা বলেন- সবাই আমাদের কাছে অচেনা। এখানে সব নতুন নতুন খেলোয়াড় খেলে। এদের আমরা খুব একটা চিনিও না। নতুন খেলোয়াড়দের বিপক্ষে খাপ খাওয়ানো কঠিন। আসলে এসব সংস্করণে হঠাৎ করেই কোনো দলের বিপক্ষে ভালো খেলা কঠিন।’

সংবাদমাধ্যমের সাথে আলাপকালে মোসাদ্দেক জানালেন, আসরে ভালো খেলে জাতীয় দলের দরজা আবারও খোলা দেখতে চান তিনি। মোসাদ্দেক বলেন, ‘আমার লক্ষ্য অবশ্যই ভালো খেলার। বাকিটা আল্লাহর ইচ্ছা। আমি চেষ্টা করছি ভালো খেলার।’

Related Articles

আর্থিক দুরাবস্থায় ক্রিকেটাররা; ঘরোয়া ক্রিকেট চালুর দাবি

অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত জাতীয় লিগ

রংপুরকে ম্যাচ জিতিয়েই মাঠ ছাড়লেন নাসির

পাল্টাপাল্টি জবাবে ড্রয়ের পথে ঢাকা-সিলেট

মুগ্ধর পেস তোপে জয়ের সুবাস পাচ্ছে রংপুর