জাদেজা-চাহালদের তুলোধুনো করে অস্ট্রেলিয়ার রান পাহাড়

0
425

করোনা মহামারীর পরে ক্রিকেটে ফেরার শুরুর অর্ধে ভারতীয় বোলাররা অজি ব্যাটসম্যানদের কাছে তুলোধুনো হলো। ফিঞ্চ-স্মিথের শতক ও গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের টর্নেডো ব্যাটিংয়ে নির্ধারিত ৫০ ওভারে অস্ট্রেলিয়া সংগ্রহ করেছে ৩৭৪। এই ম্যাচ দিয়েই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে স্টেডিয়ামে দর্শক ফিরল।

জাদেজা-চাহালদের তুলোধুনো করে অস্ট্রেলিয়ার রান পাহাড়

Advertisment

টস জিতে আগে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেন অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ। শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক খেলতে থাকেন ফিঞ্চ ও ডেভিড ওয়ার্নার। উদ্বোধনী জুটিতে তারা গড়েন ১৫৬ রানের জুটি। ৫৪ বলে অর্ধশতক হাঁকান ওয়ার্নার। ৭৬ বলে ৬৯ রান ওয়ার্নারকে ফিরিয়ে ভারতের প্রথম উদযাপনের উপলক্ষ এনে দেন মোহাম্মদ শামি। ওয়ার্নারের ইনিংসে ছিল ৬টি চারের মার।

দ্বিতীয় উইকেটেও শতরানের জুটি পায় অস্ট্রেলিয়া। স্টিভ স্মিথের সাথে ১০৮ রানের জুটি গড়েন ফিঞ্চ।.৬৯ বলে অর্ধশতক হাঁকানোর পরে ১১৭ বলে তিন অঙ্ক স্পর্শ করেন অজি অধিনায়ক। ৯০ রান পার করার পরে বেশ ধীরগতিতে খেলে শতক স্পর্শ করেন তিনি। জাসপ্রীত বুমরাহের শিকার হয়ে ফিঞ্চ সাজঘরে ফিরে যান। তার আগে করেন ১২৪ বলে ১১৪ রান। ততক্ষণে ৪০ ওভারেই ২৬৪ রান তুলে ফেলে অস্ট্রেলিয়া। অপরপ্রান্তে মারমুখী ব্যাটিং করছিলেন স্মিথ।

হতাশ করেন আইপিএলে দুর্দান্ত পারফর্ম করা মার্কাস স্টয়নিস। তবে চেনা রূপে ফিরেছেন ম্যাক্সওয়েল। চতুর্থ উইকেটে ঝড় তোলেন স্মিথ ও গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। মাত্র ২১ বলে ৫০ রানের জুটি পূর্ণ করেন তারা। টর্নেডো ইনিংস খেলে ম্যাক্সওয়েল ফেরার সময় তাদের জুটি দাঁড়ায় ২৫ বলে ৫৭ রান। যেখানে ম্যাক্সওয়েল একাই করেন ১৯ বলে ৪৫ রান। তার ইনিংসটি সাজানো ছিল ৫টি চার ও ৩টি ছক্কায়।

৬২ বলে ঝড়ো শতক পূর্ণ করেন স্মিথ। শেষ ওভারে শামির তৃতীয় শিকারে পরিণত হওয়ার আগে করেন ১০৫ রান। তার ৬৬ বলের ঝড়ো ইনিংসটিতে ১১টি চার ও ৪টি ছক্কা।

নির্ধারিত ৫০ ওভারে অস্ট্রেলিয়া সংগ্রহ করেছে ৩৭ ভারতের পক্ষে ৩টি উইকেট শিকার করেন মোহাম্মদ শামি। ১০ ওভারে যুযবেন্দ্র চাহাল খরচ করেন ৮৯ রান, সাইনি ৮৩ রান, বুমরাহ ৭৩ ও জাদেজা দেন ৬৩ রান।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

অস্ট্রেলিয়া ৩৭৪/৬ (৫০ ওভার)
ফিঞ্চ ১১৪, স্মিথ ১০৫, ওয়ার্নার ৬৯, ম্যাক্সওয়েল ৪৫, ক্যারি ১৭*;
শামি ৩/৫৯।