‘জিম্বাবুয়ে-অস্ট্রেলিয়া সিরিজে তরুণরা নিজেদের প্রমাণ করেছে’

0
696

সাম্প্রতিক সময়ে বেশ কয়েকটি ম্যাচ ও সিরিজে কয়েকজন সিনিয়র ক্রিকেটারদের ছাড়াই খেলেছে বাংলাদেশ। এই ম্যাচগুলো তরুণদের প্রমাণেরও একটি সুযোগ ছিল। তখন গুরুত্বপূর্ণ সময়ে দলের হাল ধরে নিজেদের প্রমাণ করেছেন তারা।

হাবিবুল বাশার সুমন
হাবিবুল বাশার সুমন

তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিমের মতো জ্যৈষ্ঠ ক্রিকেটার ও লিটন দাসের মতো গত কয়েক বছরের নিয়মিত মুখদের ছাড়াই জিম্বাবুয়ে ও অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলেছে বাংলাদেশ। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্টে তামিম ও ওয়ানডেতে মুশফিকও ছিলেন না। সিনিয়রদের অনুপস্থিতির সুযোগগুলো ভালোভাবেই কাজে লাগান আফিফ-সোহানরা।

Advertisment

আফিফ হোসেন ধ্রুব, নুরুল হাসান সোহান, শরিফুল ইসলাম, নাসুম আহমেদদের সাম্প্রতিক পারফর্ম বাংলাদেশকে স্বস্তি এনে দিয়েছে। জিম্বাবুয়েতে অভিষেক সিরিজে দারুণ খেলেছিলেন শামীম হোসেন পাটোয়ারি। টি-টোয়েন্টি প্রায় নিয়মিতই রান পাচ্ছেন নাঈম ইসলামও। ব্যাট হাতে খুব উজ্জ্বল না হলেও বল হাতে সুযোগ কাজে লাগিয়েছেন শেখ মেহেদী হাসান।

সিনিয়রদের অনুপস্থিতির সময়ে জুনিয়রদের এভাবে দায়িত্ব নিয়ে খেলা দেখে সন্তুষ্ট জাতীয় দলের নির্বাচক হাবিবুল বাশার সুমন। বিডিক্রিকটাইমকে তিনি বলেন,

‘আমরা চাই দলের মধ্যে সুস্থ প্রতিযোগিতা হোক যেটা বড় দলের জন্য খুব দরকার। খুব গুরুত্বপূর্ণ বিষয় দেখার ছিল যে যখন আমাদের সিনিয়র খেলোয়াড়রা সবাই খেলবেন না, তখন তরুণরা কী করে, তারা দায়িত্ব নেওয়ার জন্য কতটুকু প্রস্তুত হয়েছে। এই সিরিজে তারা সেটা প্রমাণ করেছে। জিম্বাবুয়েও গুরুত্বপূর্ণ সময়ে নতুন ছেলেরা এসে সামনে দাঁড়িয়েছে।’

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষ ৪-১ ব্যবধানে সফল সিরিজ শেষে এখন বাংলাদেশের মিশন নিউজিল্যান্ড সিরিজ। কিউইরা ইতোমধ্যে বাংলাদেশের বিপক্ষে স্কোয়াড ঘোষণা করেছে। তবে এই স্কোয়াডে নেই তাদের বিশ্বকাপ স্কোয়াডের কোনো খেলোয়াড়। তাতে অবশ্য কোনো সমস্যা দেখছেন না বাশার। তার মতে যে স্কোয়াডই আসুক না কেন বাংলাদেশের পরিকল্পনা সবসময় একই থাকবে।

তিনি বলেন, ‘নিউজিল্যান্ড কোন দল পাঠাবে সেটা ব্যাপার না। ওরা যদি বিশ্বকাপ দলও পাঠাত তাহলেও আমরা এভাবে পরিকল্পনা করতাম, ওরা এখন যে দল আসছে সেই দলের সাথেও একই পরিকল্পনা থাকবে। আমাদের পরিকল্পনায় কোনো পরিবর্তন নেই।’