Scores

জুনায়েদের শতকে ব্রাদার্সের জয়

জুনায়েদের শতকে ব্রাদার্সের জয়
জুনায়েদের শতকে ব্রাদার্সের জয়

পরাশক্তি মোহামেডানকে ধসিয়ে দিয়ে ১২৯ রানের জয় পেল ব্রাদার্স ইউনিয়ন। সেঞ্চুরির দেখা পেয়েছেন জুনায়েদ সিদ্দিকি।  তার শতকে ভর করে বড় স্কোর দাঁড় করায় ব্রাদার্স। এরপর মোহামেডানকে গুটিয়ে দেয় ১৭৬ রানে।

টস জিতে বিকেএসপির তিন নাম্বার মাঠে বোলিং এর সিদ্ধান্ত নেয় ঢাকা মোহামেডান। ব্যাটিং করতে নেমে ওপেনিং জুটিতে ২২ রান যোগ করে ব্রাদার্স। তাইজুলের বলে লেগ বিফোরের ফাঁদে পরেন মিজানুর রহমান। এরপর জুনায়েদ সিদ্দিকির সাথে ৫৯ রানের জুটি গড়েন মোঃ রুবেল। ৫৫ বলে ৩৬ করে ফিরে যান রুবেল। অধিনায়ক অলক কাপালির সাথে ১০০ রানের জুটি গড়ে দলকে বড় সংগ্রহের ভিত তৈরি করেন জুনায়েদ সিদ্দিকি।

দলের রান যখন ১৮১ তখন এনামুল হক জুনিয়রের বলে এলবিডব্লিউ হন অধিনায়ক কাপালি। ড্রেসিংরুমে ফেরার আগে ৪৮ বলে ৭ চারে ৫১ রানের ইনিংস খেলে সামনে থেকে নেতৃত্ব দেন কাপালি। এরপর আর কেউই সঙ্গ দিতে পারেন নি জুনায়েদ সিদ্দিকিকে। ভারতীয় রিক্রুট বিসলা করেন ২২ বলে ২৪ রান।

Also Read - টেস্ট র‍্যাঙ্কিংয়ে রেটিং পয়েন্ট বাড়লো বাংলাদেশের


জুনায়েদ সিদ্দিক অন্যদিকে এক প্রান্ত আগলে রেখে তুলে নেন সেঞ্চুরি। ১২৩ বলে আট চারে ১১০ রান করেন সিদ্দিকি। শেষদিকে আর কেউ ভাল স্কোর করতে না পারলে ৩০০ রানের আশেপাশের স্কোরটা থামে ২৭৬ এ। সাজেদুল, তাইজুল, এনামুল হক জুনিয়র নেন দুটি করে উইকেট।

শুরুটা ভাল না হলেও ব্যাট করতে নেমে শুরুর ধাক্কা সামলে নিয়ে জয়ের পথেই থাকে সাদাকালোরা। সৈকত আলী আর অভিষেক মিত্র মিলে গড়ে তোলেন জুটি। ৭০ রানে সৈকত আউট হওয়ার পরই ছন্দপতন হয় মোহামেডান ব্যাটসম্যানদের। আর কেউই দাঁড়াতে পারেন নি ক্রিজে। ২৭ রান করেন অভিষেক। পরিশেষে ১৪৭ রানে অলআউট হয় মোহামেডান।

চার উইকেট নেন ইফতেখার সাজ্জাদ। ম্যান অফ দি ম্যাচ হন শতক হাঁকানো জুনায়েদ সিদ্দিকি। সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ ব্রাদার্স ২৭৬/৮ (জুনায়েদ ১১০) মোহামেডানঃ ১৪৭ (সৈকত আলি ৭০, ইফতেখার ১৯/৪)

– রাইয়ান কবির, প্রতিবেদক, বিডিক্রিকটাইম ডট কম 

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

আলাদা কোচ ঠিক করেছেন সোহান

প্রথম বাংলাদেশি পেসার হিসেবে মাশরাফির চারশো

নাসিরের বোলিং তোপে বিপর্যস্ত আবাহনী

আগামীকাল মাঠে ফিরছেন তাসকিন

বৃষ্টি আইনে খেলাঘরের জয়ে বিফলে ফজলের শতক