জয় কতো কাছে, তবুও কতো দূরে!

0
718

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) ষষ্ঠ আসরের ১৫ তম ম্যাচে রাজশাহী কিংসকে ২৫ রানে হারিয়ে টুর্নামেন্টে প্রথম জয় তুলে নিয়েছে খুলনা টাইটান্স।


এবারের আসরের সিলেট পর্বের প্রথম ম্যাচে টসে জিতে আগে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেন খুলনা টাইটান্সের অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। শুরুতে ঝড় তোলার আভাস দিলেও বেশিক্ষণ স্থায়ী হতে পারেননি খুলনার ওপেনার জহুরুল ইসলাম অমি। ৬ বলে ১ চার আর ১ ছয়ে ১৫ রান করে বিদায় নেন তিনি। এরপর আরেক ওপেনার জুনায়েদ সিদ্দিকীর সাথে জুটি গড়েন মালান। এই জুটিতে আসে ২২ রান।

দলীয় ৩৭ রানের মাথায় বিদায় নেন চলতি বিপিএলে রানের মধ্যে থাকা সিদ্দিকী। এরপর নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকা পরাজয়ের বৃত্তে থাকা খুলনা টাইটান্স। বড় কোনও জুটি না হওয়ায় নির্ধারিত ২০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে তোলে ১২৮ রান। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ২৭ বলে ২৬ রান করেছেন আরিফুল হক।

Advertisment

এদিকে রাজশাহীর পক্ষে অধিনায়ক মেহেদি হাসান মিরাজ, আরাফাত সানি, ইসুরা উদানা ২টি করে উইকেট নিয়েছেন।

টি-টোয়েন্টিতে ১২৯ রানের টার্গেট খুব বেশি বড় নয়। তবে রাজশাহীর ব্যাটসম্যানরা যেন সেটি ভুল প্রমাণ করতে মাঠে নামেন। দলীয় ১ রানের মাথায় ইংলিশ ক্রিকেটার লরি ইভান্সের আউটের মাধ্যমে যার সূচনা হয়। ৩ বলে শূন্য রানে জুনায়েদ খানের বলে তাইজুলের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরেছেন তিনি।

এরপর অধিনায়ক মিরাজ দ্রুত রান করার তোলার চেষ্টা করেন। দলীয় ৩০ রানের মাথায় ১৬ বলে ২ চার আর ১ ছক্কায় ২৩ রানে মিরাজ বিদায় নিলে রাজশাহীর ব্যাটিংয়ে মারাত্মক ধ্বস নামে।  ৩২ রানের মাথায় চার উইকেট হারিয়ে ফেলে রাজশাহী। যার মূলে ছিলেন স্পিনার তাইজুল ইসলাম। আবারও ব্যর্থ হয়েছেন মুমিনুল হক (১১ বলে ৭) ও সৌম্য সরকার।(৪ বলে ২)।  সেই ধাক্কা আর সামাল দিতে পারেনি রাজশাহী কিংস। হয়নি বড় কোনও জুটি। ধুঁকতে থাকা রাজশাহী ১৯.৫ ওভারে ১০৩ রানে গুটিয়ে যায়। যার ফলে বিপিএলের ষষ্ঠ আসরের প্রথম জয়ের দেখা পায় খুলনা টাইটান্স।

দুর্দান্ত বোলিং করেছেন খুলনার তাইজুল ইসলাম। ৪ ওভারে মাত্র ১০ রানে নিয়েছেন ৩ উইকেট। এছাড়া অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ৪ ওভারে ১২ রানে নেন ২ উইকেট। একটি মেডেনও ছিল তাঁর এই স্পেলে।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ
খুলনা টাইটান্সঃ ১২৮/৯ (২০ ওভার)
আরিফুল ২৬; মিরাজ ২/২১, সানি ২/২৫

রাজশাহী কিংসঃ ১০৩/১০ (১৯.৫ ওভার) 
মিরাজ ২৩; তাইজুল ৩/১০, রিয়াদ ২/১২

[আরও পড়ুনঃ আশরাফুলের কণ্ঠে জেমসের গান]