Scores

জয় দিয়ে শুরু গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্সের

ঘরোয়া ক্রিকেট আসরের অন্যতম সেরা লিগ ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে নিজেদের প্রথম ম্যাচে জয় দিয়ে শুভ সূচনা করে গাজী গ্রুপ  ক্রিকেটার্স দল। টসে জিতে প্রাইম ব্যাংকের অধিনায়ক শুভাগত হোম ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নিলে ব্যাটিংয়ে করতে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৩০৩ রানের পাহাড়সম স্কোর দাড় করান গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ১৯৭ রানেই গুটিয়ে যায় প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব।

Prime Bank-Gazi

 

Also Read - ইমতিয়াজের ব্যাটে দোলেশ্বরের শুভসূচনা


গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্সের শুরুটা দুর্দান্ত করেন দলের দুই ওপেনার আনামুল হক বিজয় ও শামসুর রহমান। দুই জনের জোড়া হাফসেঞ্চুরিতে ১১৩ রানের ওপেনিং পার্টনারশিপ গড়েন, ব্যক্তিগত ৫৬ রান নিয়ে আউট হয়ে প্যাভিলিয়নে ফিরে যান শামসুর রহমান। ধীরগতির ইনিংস হলেও মূল্যবান ৬৭ রান করে আউট হন উইকেট কিপার এনামুল হক বিজয়। দলের বাকি কাজটা যেন একাই করে দেন ২১ বছর বয়সী মেহেদী হাসান।

Mehedi after centuryএক প্রান্তে আগলে থেকে সাইদ আনোয়ার জুনিয়ারকে সঙ্গে নিয়ে ৮৪ রানের পার্টনারশিপ করে দলকে বড় স্কোরের পথ দেখান মেহেদী। ফার্স্ট ক্লাস ক্রিকেটে নিজের অভিষেক ম্যাচেই সেঞ্চুরি হাঁকান মেহেদী হাসান, ব্যক্তিগত ১০৩ রান করে রুবেল হোসেনের বলে এল্বিউয়ের শিকার হয়ে প্যাভিলিয়নে ফিরে যান মেহেদি হাসান, ইনিংসে ছিল ৮টি চার ও ৫টি ছয়ের মার। শেষ দিকে অধিনায়ক অলক কাপালির ১০ বলে অপরাজিত ১৫ রানের ইনিংসে ৫০ ওভারে ৩০৩ রানের পাহাড়সম রান বোর্ডে তুলেন গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স দল। প্রাইম ব্যাংকের হয়ে ১টি করে উইকেট লাভ করেন রুবেল হোসেন, মোহাম্মদ আজিম ও নাজমুল ইসলাম।

৩০৪ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই খেই হারিয়ে ফেলেন প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাবের প্লেয়াররা। দলীয় ৪ রানের মাথায় ওপেনার দিলশান মুনাবিরাকে ফিরান দেলোয়ার হোসেন। বড় স্কোর চেজ করতে যে ওপেনিং পার্টনারশিপের বড় ভূমিকা পালন করতে হয় সেটা করতে অক্ষম হন প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাবের দুই ওপেনার। কিছুটা আশার আলো দেখিয়েছিলেন মারকুটে ব্যাটসম্যান সাব্বির রহমান তবে সবাইকে Wicket celebration of Prime Bankহতাশ করে ব্যক্তিগত ৩০ বলে ৩১ রান করে সাজঘরে ফিরে যান তিনি। অধিনায়কের দায়িত্বটা ঠিকঠাকভাবে পালন করতে ব্যর্থ হন শুভাগত হোম, ব্যাটিংয়ে মাত্র ৪ রানে আউট হয়ে প্যাভিলিয়নে ফিরে যেতে হয়। রান করতে ব্যর্থ হন উইকেট কিপার ব্যাটসম্যান নুরুল হাসান সোহানও তবে উজ্জ্বল ছিলেন ইয়াসির আলী,  ব্যাট হাতে ৮০ বলে ৫৬ রান করেন। অন্যদিকে ব্যাটসম্যানদের দায়িত্বটা কিছুটা পালন করেছিলেন বোলার রুবেল হোসেন, বল হাতে উইকেটের পাশাপাশি ব্যাট হাতে করেন কার্যকারী ৪৫ রান কিন্তু ততক্ষণে শুধু পরাজয়ের ব্যবধানটাই কমাতে পেরেছিলেন রুবেল। শেষ পর্যন্ত ১৯৭ রানে অল আউট হন প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব। গাজী গ্রুপের হয়ে সর্বোচ্চ ৩ উইকেট লাভ করেন সাইদ আনোয়ার জুনিয়ার, মোহাম্মদ শরীফ ও মইনুল ইসলাম ২টি করে উইকেট লাভ করে।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃঃ

গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স ৩০৩/৪ (৫০ ওভার)

মেহেদি হাসান ১০৩, এনামুল হক বিজয় ৬৭; নাজমুল ইসলাম ১-৩৪

প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব ১৯৭ (৪৬.৩ ওভার)

ইয়াসির আলী ৫৬, রুবেল হোসেন ৪৫; সাইদ আনোয়ার ৩-৩১

ফলাফলঃ ১০৬ রানে জয়ী গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স

ম্যান অফ দ্যা ম্যাচঃ মেহেদি হাসান ( গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স)

-মুশফিকুর রিফাত,প্রতিবেদক, বিডিক্রিকটিম ডট কম

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

ওবায়দুল কাদেরকে দেখতে হাসপাতালে মাশরাফি

এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ জিতলো ভারত

মেডিকেল রিপোর্টের উপরেই নির্ভর করছে সাকিবের এনওসি

শঙ্কা কাটিয়ে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে খেলছেন মুস্তাফিজ

দুদকের শুভেচ্ছাদূত হলেন সাকিব