Scores

টাইগারদের তুলোধুনো করেই ‘পুরনো’ গাপটিল

ভারত সিরিজে চোট পেয়েছিলেন। সেই চোটের কারণে সিরিজের শেষ ওয়ানডে তো বটেই, অনুপস্থিত ছিলেন টি-২০ সিরিজেও। তবে বাংলাদেশ সিরিজে মাঠে ফিরেই গাপটিলের ব্যাটে রানের ফোয়ারা। আর এমন নৈপুণ্য কিউই এই ব্যাটসম্যানকে ফিরিয়ে নিয়ে যাচ্ছে বছর কয়েক আগের সময়ে।

টাইগারদের তুলোধুনো করে ‘পুরনো’ গাপটিল

২০১৫ বিশ্বকাপের দুই আয়োজকের একটি ছিল নিউজিল্যান্ড। পরিচিত কন্ডিশনের সুবিধা কাজে লাগিয়ে ঐ আসরে দারুণ পারফরম্যান্স করেছিলেন গাপটিল। বিশ্বকাপের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক হয়েছিলেন, দলকে নিয়ে গিয়েছিলেন ফাইনালে। যদিও মাঝখানের সময়টুকু খুব একটা ভালো কাটেনি। আহামরি খারাপ না হলেও এমন পারফরম্যান্স গাপটিলের সাথে মানানসই নয় যেন, তার কাজই তো নিয়মিত রান করে যাওয়া!

শনিবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) ক্রাইস্টচার্চে সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডেতে বাংলাদেশি বোলারদের তুলোধুনো করে মাত্র ৮৮ বলে ১১৮ রানের ইনিংস খেলেন গাপটিল। ম্যাচ জেতানোর পাশাপাশি এই ম্যাচেও পান ‘ম্যান অব দ্যা ম্যাচ’ এর খেতাব। এর আগে নেপিয়ারে সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে করেছিলেন ১১৭ রান। টানা দুটি ম্যাচ জেতানো ইনিংস ও শতক হাঁকানোর পর গাপটিল যেন খুঁজে পাচ্ছেন নিজের পুরনো রূপ কিংবা সময়কে।

Also Read - কিউইদের ডেরায় স্বস্তির হাওয়া


আর এমন দুর্দান্ত পারফরম্যান্স আরেকটি বিশ্বকাপের আগে তাকে দিচ্ছে আত্মবিশ্বাস। সিরিজ নিশ্চিত করা ওয়ানডে শেষে সংবাদমাধ্যমের সাথে আলাপকালে কিউই ওপেনার বলেন, আজ মনে হয়েছিল আমি কয়েক বছর আগের অবস্থায় ফিরে গেছি। এটি আমাকে স্বস্তি দিচ্ছে, আশা জাগাচ্ছে- এই ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে পারব

ভারতের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ চলাকালে চোট পেলে মাঠের বাইরে চলে যেতে হয়েছিল গাপটিলকে। ঐ সময়টায় নিজের দুর্বলতা নিয়ে কাজ করেছেন, ব্যাটিংয়ের উন্নতি করেছেন। তিনি বলেন, ভারত সিরিজের পর চোটের কারণে আমি মাঠের বাইরে ছিলাম। আমি আমার ব্যাটিংয়ের ভিডিও দেখেছি, কিছু জায়গা পেয়েছি যেখানে উন্নতি করার সুযোগ ছিল এবং ঘরে থাকা অবস্থায় এসব নিয়ে কাজ করেছি। এখন পর্যন্ত এটি বেশ ভালো কাজে দিচ্ছে

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

বড় লিডের পথে এগোচ্ছে ভারতের ইনিংস

তিন দিনেই রোমাঞ্চ ছড়াচ্ছে হেডিংলি টেস্ট

ডি সিলভার প্রতিরোধের পর ছেড়ে কথা বলছেন না লাথামও

আফগানিস্তান টেস্টেই বাংলাদেশের জার্সিতে নাম-নম্বর

বাংলাদেশকে মোকাবেলার জন্য আবুধাবিতে ঘাম ঝরাচ্ছেন রশিদরা