Score

টাইগারদের নিয়ে দারুণ আশাবাদী ম্যানেজার সুজন

আর এক সপ্তাহ পরেই শুরু হবে এশিয়ার সেরা হবার লড়াই। আসন্ন এশিয়া কাপে বাংলাদেশের লক্ষ্য কি? এমন প্রশ্নে শিরোপার কথাই বলেছেন জাতীয় দলের ম্যানেজার খালেদ মাহমুদ সুজন।

'আমি তো চাই ওদের ১০ বছর নিষিদ্ধ করতে''
 

এশিয়া কাপের ফাইনাল দুইবার খেলেছে বাংলাদেশ। ২০১২ সালে প্রথমবারের মতো এশিয়া কাপের ফাইনালে উঠে লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা। কিন্তু শ্বাসরুদ্ধকর ফাইনালে পাকিস্তানের কাছে ২ রানে হেরে যায়। এরপর ২০১৬ সালের টি-টোয়েন্টি এশিয়া কাপেও ফাইনালে খেলেছিল বাংলাদেশ। তবে সেবারও হয়েছে স্বপ্নভঙ্গ। ৭ বল আর ৮ উইকেট হাতে রেখেই ফাইনালে জিতে যায় ভারত।

শিরোপা না জিতলেও ফাইনাল খেলার অতিত অভিজ্ঞতা থেকে এবার শিরোপা জয়ের স্বপ্ন দেখছেন জাতীয় দলের ম্যানেজার খালেদ মাহমুদ সুজন। তিনি বলেন, ‘এমন নয় যে বাংলাদেশ আগে ফাইনালে খেলেনি। যেহেতু আমরা ফাইনাল খেলেছি, স্বপ্নও দেখতেই পারি শিরোপা জয়ের। আফগানিস্তান বলেন বা শ্রীলঙ্কা বলেন সবার সঙ্গেই চাপ থাকবে আমাদের। চাপ কাটিয়ে কিভাবে ভালো করা যায় এটাই দেখার।’

Also Read - এশিয়া কাপে ১১ জন ধারাভাষ্যকার

ক্রিকেটের তিন সংস্করণের মধ্যে বাংলাদেশ সবচেয়ে ভালো পারফর্ম করে ওয়ানডে ফরম্যাটে। র‍্যাংকিং ও অতিত পারফরম্যান্স বলছে সেই কথা। একদিনের ক্রিকেট র‍্যাংকিংয়ে টাইগারদের অবস্থান ৭ নম্বরে। শ্রীলঙ্কার থেকেও এগিয়ে আছে বাংলাদেশ। এছাড়া উইন্ডিজে গিয়ে সর্বশেষ একদিনের সিরিজ জিতেছে মাশরাফিরা। তাই আত্মবিশ্বাস থাকবে উপরে।পাশাপাশি অনুশীলনও ভালো হয়েছে। এশিয়া কাপের জন্য গত ২৭ আগস্ট বিশেষ ক্যাম্প শুরু করে বাংলাদেশ।

সবমিলিয়ে আসন্ন এশিয়া কাপে টাইগারদের নিয়ে দারুণ আশাবাদী বাংলাদেশ ম্যানেজার সুজন। তিনি বলেন ‘এই ফরম্যাটে আমরা সবসময় ভাল ক্রিকেট খেলি। অনুশীলনও ভালোভাবে হয়েছে। সব মিলিয়ে তৃপ্তি আছে। যদি কারো ইনজুরি না হয়, সব ঠিক থাকে তাহলে এবার ভাল সুযোগ আছে। ওয়েস্ট ইন্ডিজ থেকে আসার পরে দলের আত্মবিশ্বাস অনেক বেশি ভাল। আমার মনে হয় সবমিলিয়ে আমরা ভাল ক্রিকেট খেলব।’

[আরও পড়ুনঃ এশিয়া কাপে ১১ জন ধারাভাষ্যকর]

Related Articles

মেডিকেল রিপোর্টের উপরেই নির্ভর করছে সাকিবের এনওসি

এই মিরাজ অনেক আত্মবিশ্বাসী

মিঠুনের ‘মূল চরিত্রে’ আসার তাড়না

‘আঙুলটা আর কখনো পুরোপুরি ঠিক হবে না’

এক নয় মাশরাফির তিন ইনজুরি