টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের জন্য সেরা দলটাই তৈরির লক্ষ্য বাশারের

0
351

অক্টোবরে পর্দা উঠবে আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের। বাকি বোর্ডগুলোর মতো বিসিবিও ব্যস্ত টুর্নামেন্টের জন্য সেরা দলটাই তৈরি করতে। যে কারণে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের পাশাপাশি ডিপিএলও আয়োজন হচ্ছে টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে।

সিনিয়ররা থাকতেই জুনিয়রদের শেখাতে চান বাশার

Advertisment

কোভিডের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে না এলে ভারত থেকে সরে যেতে পারে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আসর। সেক্ষেত্রে টুর্নামেন্টটি আয়োজন করা হতে পারে সংযুক্ত আরব আমিরাতে। তবে ভারতে হলে চেনা কন্ডিশনে সুবিধা নিতে পারবে বাংলাদেশ। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ।

এছাড়াও এই মাসেই আরম্ভ হচ্ছে গত বছর করোনায় স্থগিত হওয়া টুর্নামেন্ট ডিপিএল। ৫০ ওভারের ফরম্যাটটি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের জন্য আয়োজিত হবে টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে। নির্বাচক হাবিবুল বাশারের লক্ষ্য বিশ্বকাপের আগেই সিনিয়রদের ছায়াতে তরুণ ক্রিকেটারদেরও তৈরি করা। একই সাথে বিশ্বকাপের জন্য সেরা দল বাছাই করতে নজর থাকবে ডিপিএলেও। বিডিক্রিকটাইমকে দেওয়া সাক্ষাতকারে তিনি বলেন,

“হ্যাঁ, অবশ্যই। আমরা যাই করছি না কেন বিশ্বকাপকে মাথায় রেখেই করছি। তবে সেরা দল বলিদান দিয়ে নয়। প্রথম লক্ষ্যই বিশ্বকাপের জন্য সেরা দল তৈরি করা এবং ভবিষ্যতের পরিকল্পনা মাথা রেখেই করা। যেগুলোই করছি আমরা চেষ্টা করছি সমন্বয় তৈরি করতে। যাতে করে পুরনো ক্রিকেটারদের সঙ্গে নতুন ক্রিকেটারদের তৈরি করতে পারি।”

তিনি আরও যোগ করেন, “ঘরোয়া ক্রিকেট লিগগুলো নতুন খেলোয়াড় বের করে আনতে এবং বাকিদের পারফরম্যান্স মূল্যায়ন করতে আমাদের অনেক সাহায্য করে। আশা করছি এবার ডিপিএলেও কিছু ভালো পারফর্ম দেখতে পারব। আশা করছি নতুন কেউ ভালো করবে এবং তাকে নিয়ে যেন আমরা কাজ করতে পারি। আশা করছি পরবর্তী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে আমাদের টি-টোয়েন্টি দলটা ভালোভাবে তৈরি হয়ে যাবে।”

এবারের ডিপিএলে মোহামেডানের হয়ে খেলবেন সাকিব আল হাসান। সাকিব ফেরাতে টুর্নামেন্টটির সৌন্দর্য আরও বাড়বে বলে বিশ্বাস করেন হাবিবুল বাশার। সেই সাথে প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক টুর্নামেন্টের আশা করছেন তিনি।

“সব ক্রিকেটারই ডিপিএল খেলছে যেটা কিনা আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। এজন্য ডিপিএলটা প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক এবং জমজমাট একটি টুর্নামেন্ট হবে।”