টেস্টে বাংলাদেশ আর ভারতের পার্থক্য কোথায়, জানালেন কোহলি

0
1041

রঙিন পোশাকে যেনতেন, সাদা জার্সি খানা গায়ে চাপালেই মলিন হয়ে যায় বাংলাদেশ দলের পারফরম্যান্স। অথচ সিমিত ওভারের সাথে পাল্লা দিয়ে পাঁচ দিনের ক্রিকেটেও ছড়ি ঘোরাচ্ছে ভারত। এই ফরম্যাটে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে কেন এতো ফারাক? এই ব্যাখ্যা দিয়েছেন খোদ ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি।

Advertisment
বাংলাদেশকে সমীহ কোহলির
সংবাদ সম্মেলনে বিরাট কোহলি। ছবি: বিডিক্রিকটাইম

 

ঘরের মাঠে ‘নবাগত’ আফগানিস্তানের বিপক্ষে হারের পর ভারতে গিয়ে রীতিমত বিধ্বস্ত বাংলাদেশ দল। পাঁচ দিনের টেস্ট আত্মসমর্পণ করতে হয়েছে মোটে আড়াই দিনেই। এটাতো গেল মাঠের পারফরম্যান্স। বাইশ গজে যারা পারফর্ম করবেন, তাদের অনেকেরই অনীহা আছে এই ফরম্যাটে খেলতে নামা নিয়ে। অথচ ভারত, অস্ট্রেলিয়া ইংল্যান্ড কিংবা দক্ষিণ আফ্রিকার মত বড় সারির দলেরা আলাদা পরিকল্পনা সাজাই টেস্ট ক্রিকেটের জন্য।

এদিকে মাস দুয়েক আগে বিসিবি সভাপতি বলেছিলেন, ‘আমরা লক্ষ্য করছি টেস্ট খেলায় বেশ কিছুদিন থেকে সাকিব আল হাসানের আগ্রহ নেই। বিশেষ করে দেশের বাইরে টেস্ট খেলার সময় হলে সে ছুটি চায়। হয়তো তার আগ্রহ কম।’

শুধু নিষেধাজ্ঞা কবলে পড়া সাকিবই নন, সাদা পোশাকে নাকি খেলতে চান না বাংলাদেশ দলের অধিকাংশ পেস বোলার। এমনটাই জানিয়েছিলেন আবু হায়দার রনি। প্রসঙ্গে টেস্ট উঠলেই ভারতের সাথে বাংলাদেশের ক্রিকেটের কেন এতো পার্থক্য? এমন প্রশ্নের জবাবটা বেশ জুতভাবেই দিলেন কোহলি।

ভারতীয় অধিনায়কের ভাষায়, ‘আপনারা দেখে থাকবেন দল হিসেবে গত দুই-তিন বছরে আমরা কতট সফল। আমার মনে হয়, এটা বোর্ড ও খেলোয়াড়দের একটা সুন্দর জুটির মতো, যা সঠিক পথে এগিয়ে নিচ্ছে সব। আপনি যদি আমাদের চুক্তির ব্যাপারটা দেখেন, তাহলে দেখবেন টেস্ট ক্রিকেটারদের যথেষ্ট গুরুত্ব দেওয়া হয়।’

‘অন্য দল বা বোর্ড কীভাবে বিষয়টা দেখে বা সামলায় আমি এই ব্যাপারে অবগত না। আমাদের বোর্ডের পক্ষ থেকে এবং খেলোয়াড়দের পক্ষ থেকে যেমন প্রতিশ্রুতি দরকার তা দিয়ে টেস্ট ক্রিকেটকে উঁচুতে নিয়ে গেছি।’ বলে আরো যোগ করেন তিনি।

টেস্ট ক্রিকেটে উন্নতি করতে হলে ক্রিকেটারদের অর্থনৈতিক দিকে ভালোভাবে লক্ষ্য রাখাটা জরুরি বলে মত দেন কোহলি, ‘আপনি শুধু টেস্ট ক্রিকেটের প্রতি মনোযোগী হতে বলতে পারেন না। আমরা পেশাদার ক্রিকেটার। এটা আমাদের রুটি-রুজি। যখন বলা হবে টেস্ট ক্রিকেট সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ, তখন সবকিছুই (অর্থনৈতিক) সেই হিসেব মেনেই হওয়া উচিত।’